ব্রেকিং:
একশ’ কোটি টাকা নিয়ে ভারতে পালালেন ব্যবসায়ী মুন্সেফ কোয়ার্টার এলাকার সড়কের নামফলক অপসারণ কুমিল্লা মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের কমিটি অনুমোদন ২০ লাখ টাকার দাবিতে বন্ধুকে অপহরণ, সাতদিন পর উদ্ধার গোসল করাকে কেন্দ্র করে সৌদিতে বাংলাদেশি যুবক খুন ‘দুর্নীতি দমনে সরকার আশাবাদী’ প্রধানমন্ত্রী আবুধাবি পৌঁছেছেন ব্রাহ্মণপাড়ায় প্রান্তিক জনগোষ্ঠিদের মাঝে অনুদান বিতরণ কুবিতে সাংবাদিক হয়রানি ও লাঞ্ছনার বিচার চেয়ে মানববন্ধন কুমিল্লায় এ্যাম্বুল্যান্সের অবৈধ পার্কিংএ সৃষ্টি হচ্ছে যানজট লাকসাম রেলওয়ে জংশনের ষ্টেশন মাস্টারের বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ তিতাসে ৭ জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা চান্দিনায় বেতন স্কেল বৃদ্ধির দাবীতে শিক্ষকদের মানববন্ধন চৌদ্দগ্রামে ৭ দফার দাবিতে শিক্ষকদের মানববন্ধন দেবিদ্বারে পুলিশের অভিযানে দুই গাঁজা ব্যবসায়ী আটক হোমনায় এনজিও কর্মীকে পিটিয়ে টাকা পয়সা ছিনতাই কুমিল্লায় নারীসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী আটক মুরাদনগরে নিজের ড্রেজারের নৌকায় বালু ব্যবসায়ীর লাশ নাঙ্গলকোটে সরকারি খাল পাড়ের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ বরুড়ায় শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ

রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আশ্বিন ৬ ১৪২৬   ২২ মুহররম ১৪৪১

কুমিল্লার ধ্বনি
২২৮

অনুক্ষণ

প্রকাশিত: ১৭ জানুয়ারি ২০১৯  

বিকেলে ছাদের এক কোনায়। চুল গুলো ছেড়ে দিয়ে বসে আঁচার খাওয়ার দৃশ্যটা সত্যিই অপূর্ব। তোমাদের ছাদ থেকে আমাদের ছাদে আঁড় চোখে তাকানোটা মহল্লার মানুষ ভালো চোখে দেখতো না। তুমি কলেজের ব্যাগ কাঁদের একপাশে ফেলে দিয়ে দ্রুত গতিতে হেঁটে চলে যেতে। আমি গাছের আড়ালে লুকিয়ে লুকিয়ে দেখতাম। আমি রাস্তায় দাড়িয়ে দেখতাম তুমি ক্লাস করছো। আমার চোখের দিকে চোখ পড়তেই তুমি মাথা নিচু করে ফেলতে। তুমি চলে যেতে আমার সামনে দিয়ে মৃদু হেসে, কিছুদূর গিয়ে জানতে চাইতে….

-ইমতিয়াজ, তুমি কিছু বলতে চাও আমাকে।

আমি বোকার মত মাথা নাড়াতাম।

-না। কিছু বলবো না।

তুমি চুপ করে হেটে চলে যেতে। বিকেলে ছাদের উপর আমার দিকে তোমার কিছু জানতে চাওয়ার দৃষ্টিটা আমি এড়িয়ে যেতাম। তোমার উড়না বাতাসে দুলতো। আমি আঁড় চোখে তাকিয়ে থাকতাম। ঝড়ো বাতাসে তোমার উড়নাটা উড়ে যেত, তুমি বলতে…….

-ইমতিয়াজ, উড়নাটা একটু এনে দিবে।

আমি উড়নাটা নিয়ে আসতাম, তুমি বলতে…..

-উড়নাটা গলায় পেছিয়ে দাও।

আমি তখনোও শরীরের শিহরন বলে কিছু আছে তা জানতাম না। তোমার শরীরের মিষ্টি একটা গন্ধ আমার নাকে আসতো।মনে হতো তুমি আস্ত একটা পারফিউম। আবার সেই কিছু জানতে চাওয়ার দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকতে। আমি মাথা নুড়ে চলে যেতাম। হঠাৎ তোমার বাড়ির সামনে বিয়ের গেইট দেখে অবাক হলাম। তোমার বিয়ে। বিয়েতে সবচেয়ে বড় অতিথি আমি। তোমার বাবা জানতে চাইতো……

-ইমতিয়াজ, ডেকোরেশন ঠিক আছেতো।

-হুম, চাচা ঠিক আছে।

তুমি তোমার হবু বরের পাশে বসে আছো আর আমার দিকে তাকিয়ে আছো অনেক কিছু জানতে চাওয়ার দৃষ্টিতে। আমি সত্যিই বোকা। আমি সেদিনও বুঝতে পারিনি, তোমার এই দৃষ্টিটার মানে আমি তোমায় সত্যিই “ভালোবাসি” কিনা জানতে চাওয়ার দৃষ্টি। যদি বুঝতে পারতাম, তাহলে আমার দৃষ্টিতে তোমায় বুঝিয়ে দিতাম “আমি তোমায় সত্যিই ভালোবাসি”

 

লেখক

রাকিব ইমতিয়াজ

রামগন্জ, লক্ষীপুর

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি