ব্রেকিং:
নতুন চমক, দেশে চালু হচ্ছে বেকার ভাতা লক্ষ্যমাত্রার বেশি ধান কিনতে সুপারিশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বাতিল শেখ হাসিনাকে বরণের অপেক্ষায় জাপান: রাষ্ট্রদূত নিরাপদ ঈদযাত্রায় যাত্রী কল্যাণ সমিতির ২০ প্রস্তাব চাল আমদানি নিয়ন্ত্রণ করা হবে: অর্থমন্ত্রী সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন-ভাতা ২৮ মে কবুতর দিয়ে কক্সবাজার থেকে ঢাকায় ইয়াবা পাচার বাড়ল মোবাইল ব‌্যাংকিংয়ে লেনদেন সীমা শিগগিরই যোগ্য সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হবে: শিক্ষামন্ত্রী অধিক উৎপাদনের লক্ষ্যে একীভূত হচ্ছে ঘোড়াশাল ও পলাশ সার কারখানা শিক্ষক নিবন্ধনের প্রিলিতে পাস ১ লাখ ৫২ হাজার দেশের প্রথম মহিলা কারাগারে স্থানান্তরিত হচ্ছেন খালেদা জিয়া! ঈদে ঘরমুখী যাত্রীদের ভোগান্তি কমবে: কাদের এমপিওভুক্ত হচ্ছেন ১০ হাজার ৮৫ শিক্ষক অর্থ দেয়নি বলে র‌্যাংকিং থেকে বাদ পড়েছে ঢাবি ‘মিল মালিক নয়, কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনার পরামর্শ’ ভয়েস কলের দিন প্রায় শেষ: মোস্তাফা জব্বার জুলাই থেকে ১০ বছর মেয়াদি ই-পাসপোর্ট শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা

মঙ্গলবার   ২১ মে ২০১৯   জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪২৬   ১৬ রমজান ১৪৪০

কুমিল্লার ধ্বনি
সর্বশেষ:
কুষ্টিয়ায় শিক্ষিকা ধর্ষণে শিক্ষকের যাবজ্জীবন ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবিতে বেঁচে যাওয়া ১৫ বাংলাদেশি দেশে ফিরেছেন হজযাত্রীদের প্রশিক্ষণ শুরু আজ ১৩০ বছর পর বদলে গেল কিলোগ্রামের সংজ্ঞা কৃষকের প্রয়োজনে সব করা হবে: কৃষিমন্ত্রী বিচারাধীন বিষয়ে সংবাদ প্রচারের ব্যাখ্যা দেবে সুপ্রিমকোর্ট নয়া লুকে চমক নিয়ে আসছেন অনন্ত জলিল
১০৯

অনুক্ষণ

প্রকাশিত: ১৭ জানুয়ারি ২০১৯  

বিকেলে ছাদের এক কোনায়। চুল গুলো ছেড়ে দিয়ে বসে আঁচার খাওয়ার দৃশ্যটা সত্যিই অপূর্ব। তোমাদের ছাদ থেকে আমাদের ছাদে আঁড় চোখে তাকানোটা মহল্লার মানুষ ভালো চোখে দেখতো না। তুমি কলেজের ব্যাগ কাঁদের একপাশে ফেলে দিয়ে দ্রুত গতিতে হেঁটে চলে যেতে। আমি গাছের আড়ালে লুকিয়ে লুকিয়ে দেখতাম। আমি রাস্তায় দাড়িয়ে দেখতাম তুমি ক্লাস করছো। আমার চোখের দিকে চোখ পড়তেই তুমি মাথা নিচু করে ফেলতে। তুমি চলে যেতে আমার সামনে দিয়ে মৃদু হেসে, কিছুদূর গিয়ে জানতে চাইতে….

-ইমতিয়াজ, তুমি কিছু বলতে চাও আমাকে।

আমি বোকার মত মাথা নাড়াতাম।

-না। কিছু বলবো না।

তুমি চুপ করে হেটে চলে যেতে। বিকেলে ছাদের উপর আমার দিকে তোমার কিছু জানতে চাওয়ার দৃষ্টিটা আমি এড়িয়ে যেতাম। তোমার উড়না বাতাসে দুলতো। আমি আঁড় চোখে তাকিয়ে থাকতাম। ঝড়ো বাতাসে তোমার উড়নাটা উড়ে যেত, তুমি বলতে…….

-ইমতিয়াজ, উড়নাটা একটু এনে দিবে।

আমি উড়নাটা নিয়ে আসতাম, তুমি বলতে…..

-উড়নাটা গলায় পেছিয়ে দাও।

আমি তখনোও শরীরের শিহরন বলে কিছু আছে তা জানতাম না। তোমার শরীরের মিষ্টি একটা গন্ধ আমার নাকে আসতো।মনে হতো তুমি আস্ত একটা পারফিউম। আবার সেই কিছু জানতে চাওয়ার দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকতে। আমি মাথা নুড়ে চলে যেতাম। হঠাৎ তোমার বাড়ির সামনে বিয়ের গেইট দেখে অবাক হলাম। তোমার বিয়ে। বিয়েতে সবচেয়ে বড় অতিথি আমি। তোমার বাবা জানতে চাইতো……

-ইমতিয়াজ, ডেকোরেশন ঠিক আছেতো।

-হুম, চাচা ঠিক আছে।

তুমি তোমার হবু বরের পাশে বসে আছো আর আমার দিকে তাকিয়ে আছো অনেক কিছু জানতে চাওয়ার দৃষ্টিতে। আমি সত্যিই বোকা। আমি সেদিনও বুঝতে পারিনি, তোমার এই দৃষ্টিটার মানে আমি তোমায় সত্যিই “ভালোবাসি” কিনা জানতে চাওয়ার দৃষ্টি। যদি বুঝতে পারতাম, তাহলে আমার দৃষ্টিতে তোমায় বুঝিয়ে দিতাম “আমি তোমায় সত্যিই ভালোবাসি”

 

লেখক

রাকিব ইমতিয়াজ

রামগন্জ, লক্ষীপুর

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি