ব্রেকিং:
দাউদকান্দি শিশু ধর্ষণের অভিযোগ অপ্রতিরোধ্য বসুন্ধরা কুমিল্লায় নির্বিচারে শিশুশ্রম কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অচেতন করে ব্যাংক লুট বাঞ্ছারামপুর থানা থেকে লোক ছাড়াতে নেতা নিলেন দেড় লাখ টাকা! পদুয়ার বাজারে ফুটপাত ও সড়ক দখলমুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযান বিডিআর বিদ্রোহ:অভিযুক্তদের পক্ষে কেন আইনি লড়াই করে বিএনপি? বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্রের ফসল বিডিআর বিদ্রোহ একদিনে আরো পাঁচজনের মৃত্যু, শনাক্ত ৪১০ জাতীয় বিশ্ববিদ্যায়ের স্থগিত পরীক্ষাসমূহের নতুন সূচি ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রে অনিবন্ধিত বাংলাদেশিদের বৈধ করার আহ্বান মোমেনের সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪৪০০ কোটি ছাড়াল মেট্রো রেল প্রকল্পে গড় অগ্রগতি ৫৬.৯৪% দেশে হচ্ছে আরও সাত নভোথিয়েটার আসছে তাৎক্ষণিকভাবে ভোটার হওয়ার সুযোগ শঙ্কা কেটে পুনরুদ্ধারের পথে অর্থনীতি করোনা নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ বিশ্বে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপণ করেছে শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশের ভূয়সী প্রশংসায় যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধুর দুর্নীতিবিরোধী ভাষণ দূরদর্শিতার প্রমাণ
  • শুক্রবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৪ ১৪২৭

  • || ১৩ রজব ১৪৪২

অপপ্রচার চালানো ছাড়া বিএনপির কোনো কাজ নেই

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

করোনা মোকাবিলা ও ভ্যাকসিন নিয়ে সারাবিশ্ব যখন দলমত নির্বিশেষে কাজ করেছে, তখন বাংলাদেশের বিরোধী রাজনৈতিক দল বিএনপির চিত্র একেবারেই উল্টো। করোনা সংকটে সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো ছাড়া জনগণকে কী কোনো সহযোগিতা করতে পেরেছে বিএনপি- এ প্রশ্ন এখন আপামর জনগণের।

এদিকে রাজনীতিবিদদের মতে, বিএনপি গঠনতন্ত্র সংশোধন করে সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে দলীয় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নির্বাচিত করেছে, দুর্নীতিকে নীতি হিসেবে গ্রহণ করেছে, সে দল জনগণের কল্যাণে কী কাজ করবে। এর কিছুটা হলেও দেশের মানুষ ধারণা করতে পেরেছে। এছাড়া যে দল সব সময়ই লুটপাট নিয়ে ব্যস্ত, তারা মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পারবে না, এটাই বাস্তবতা।

তারা আরো বলেন, বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া দুর্নীতির দায়ে সাজাপ্রাপ্ত, আর ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানও সাজাপ্রাপ্ত আসামি। তিনি দেশেও থাকেন না, পলাতক রয়েছেন। ফেরারি আসামি হয়ে বিদেশে আশ্রয় নিয়েছেন। তাদের মাধ্যমে দল কতটুকু ভালোভাবে চলবে, জনগণের কল্যাণে কতটুকু কাজ করবে- সেই বিষয়ে সন্দেহ থাকতেই পারে- এটাই স্বাভাবিক। এছাড়া যারা নেতৃত্ব পাওয়ার মতো, তারা প্রত্যেকেই দুর্নীতিগ্রস্ত। তাদের ছত্রছায়ায় দলকে দুর্নীতির অভয়ারণ্যে পরিণত করা হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির এক শীর্ষ নেতা বলেন, খালেদা জিয়া ১০ বছরের শাসনামলে দেশে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিষ্ঠা করেন। বিএনপি সুশাসনের পরিবর্তে দেশকে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের অভয়ারণ্যে পরিণত করে। তাদের আমলে এ দেশ পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। বিরোধী রাজনৈতিক দল হিসেবেও অনেক বছর ধরে বিএনপি জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদের ভিত্তিতে তাদের কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে এবং এখনো তা অব্যাহত রয়েছে, যা অত্যন্ত দুঃখজনক।

এ বিষয়ে রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলেন, দেশবাসী আশা করে বিএনপি জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ পরিহার করে সাধারণ মানুষের কল্যাণে কাজ করবে। তবে তারা সেটা না করে করোনা সংকটের মধ্যেও সরকারের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে।

তিনি বলেন, বিএনপি দুর্নীতির লালন ও বিকাশ ছাড়া আর কী করেছে? জনগণের কাছে আজ সবই দিবালোকের মতো পরিষ্কার। কারণ তারা নিজেদের গঠনতন্ত্র থেকে ৭-ধারা বাতিল করে দুর্নীতিবাজদের নেতৃত্বে এনেছে, আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিয়েছে। যারা ক্ষমতায় থাকতে দুর্নীতির বিচার করেনি- তাদের মুখে দুর্নীতি বিরোধী কথা মানায় না।

কুমিল্লার ধ্বনি