ব্রেকিং:
পুলিশের অভিযানে নারী সহ পলাতক আসামি আটক এমপির নামে ভুয়া নিউজ প্রকাশ করায় থানায় মামলা মামলা প্রতাহারের দাবীতে প্রাননাশের হুমকি বিশ্বরোডের ছন্দু ও বড় মিয়া হোটেলকে জরিমানা শত বছরের পুরোনো মদের কারখানা গুড়িয়ে দিয়েছে প্রশাসন আমানিয়া হোটেল’কে ২০ হাজার টাকা জরিমানা আফ্রিকায় সন্ত্রাসীদের আগুনে কুমিল্লার যুবকের মৃত্যু ৬ জেলার ৪৯ জন করদাতাকে সম্মাননা নুসরাত হত্যার প্রধান আসামি এখন কুমিল্লা কারাগারে ট্রাক চাপায় এসআই নিহত নকলের দায়ে পরীক্ষার্থী, শিক্ষক ও ঝাড়ুদার বহিষ্কার ড্যান্ডি`তে আসক্ত নগরীর ছিন্নমূল পথশিশুরা ডায়াবেটিস প্রতিরোধের পাঁচ উপায় আর্থিক লেনদেন করা যাবে ফেসবুকে বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হচ্ছেন ৪৮ জন নারীর মন জয় করুন এই কৌশলে তাওবার ৬ উপকারিতা সাকিব না থাকায় ভারতীয় সিকিউরিটি গার্ডের আফসোস ফোকফেস্টের পর্দা উঠছে আজ সমুদ্রের জলে ভেসে এলো ১০০০ কেজি কোকেন

শুক্রবার   ১৫ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ৩০ ১৪২৬   ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

কুমিল্লার ধ্বনি
২৯৮

আ’লীগ নিয়ন্ত্রণ করছে বিএনপি-জামায়াত-ফ্রিডম পার্টির সাবেক নেতারা

প্রকাশিত: ৭ নভেম্বর ২০১৯  

নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিশাল জয়ের পর থেকেই দলের বিভিন্ন স্তরে শুরু হয় ব্যক্তিকেন্দ্রিক দলভারি করার প্রবণতা। কেন্দ্রীয় নেতা, মন্ত্রী-এমপিরা নিজ বলয় ভারি করতে ‘ফুলের তোড়ায়’ বরণ করে নেন বিএনপি ও জামায়াত-শিবির নেতাদের। যাদের অনেকের বিরুদ্ধে ছিল আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী হত্যাসহ নাশকতা ও অবৈধ অস্ত্রের একাধিক মামলা। দল বদল করে আওয়ামী লীগে এসে রাতারাতি পুনর্বাসিত হয়েছেন তারা। শুধু তাই নয়, বঙ্গবন্ধুর আদর্শবিরোধী ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাবিরোধীরা এখন জেলা-উপজেলায় চালকের আসনেও বসেছেন। ‘অন্য দল থেকে আওয়ামী লীগে নয়’ দলের হাইকমান্ডের এমন নির্দেশনা থাকলেও তোয়াক্কা করেননি মন্ত্রী-এমপি ও নেতারা। গত পৌনে ১১ বছরে কমপক্ষে অর্ধলক্ষাধিক অনুপ্রবেশ ঘটেছে আওয়ামী লীগে।

কুমিল্লার বিভিন্ন উপজেলায় বিএনপি-জমায়াতের নেতা-কর্মীরা আওয়ামী লীগে বেশি যোগদান করেছেন। আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কেন্দ্রীয় নেতাদের অনুপ্রবেশকারীদের তালিকা করার নির্দেশ দিলেও এখন পর্যন্ত কোনো তালিকা করা হয়নি। জেলা-উপজেলার নেতারাও কেন্দ্রে কোনো তালিকা জমা দেননি। বাধ্য হয়ে দলীয় সভানেত্রী নিজের তত্ত্বাবধানে পাঁচ হাজার অনুপ্রবেশকারীর তালিকা করে ব্যবস্থা নিতে কেন্দ্রীয় নেতাদের হাতে দিয়েছেন। ফলে টনক নড়েছে দায়িত্বপ্রাপ্তদের।

জামায়াত-শিবির ও বিএনপি নেতাদের নিয়ে যেসব কেন্দ্রীয় নেতা, এমপি-মন্ত্রী বেশি সমালোচনা করছেন তাদের অনেকের হাত ধরেই অনুপ্রবেশকারীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। বাংলাদেশ প্রতিদিনের দীর্ঘ অনুসন্ধানে গত পৌনে ১১ বছরে বিএনপি, জামায়াত-শিবির ও ফ্রীডম পার্টি থেকে যারা আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েই পদ-পদবি পেয়েছেন তাদের সংক্ষিপ্ত তালিকা তুলে ধরা হলো।

কুমিল্লার নাঙ্গলকোর্ট পৌর জামায়াতের আমির মনিরুজ্জামান প্রথমে বিএনপিতে যোগ দিয়ে কোষাধ্যক্ষ পদ পান। এরপর আওয়ামী লীগে যোগ দিয়েই হয়ে যান পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি। বাগমারা উপজেলা ও পশ্চিম জেলা শিবির সভাপতি বাংলাভাইয়ের সহযোগী মোল্লা এম আলতাফ হোসেন এখন উপজেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক।

মনোহরগঞ্জের বাইশগাঁও ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী এখন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। তার বাবা ছিলেন শান্তি কমিটির সেক্রেটারি। একই ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেন এখন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক।

লাকসাম উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আবদুল মান্নান এখন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। নওয়াব ফয়জুন্নেছা কলেজের শিবিরের একাদশ শ্রেণির সভাপতি আবদুল আলীম দিদার পৌর কাউন্সিলর ও উপজেলা যুবলীগের সদস্য। বাকই ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবদুল আউয়াল এখন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। লাকসাম পূর্ব ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম আজাদ এখন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

নাঙ্গলকোট উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নুরুল্লাহ মজুমদার এখন উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক তৌহিদুর রহমান এখন উপজেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক। বটতলী ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাওলা উপজেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক। উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি শাহজাহান মজুমদার এখন উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও দলীয় চেয়ারম্যান। উপজেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি জালাল আহমেদ এখন আওয়ামী লীগ উপজেলা সদস্য, উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি জহিরুল হুদা মজুমদার এখন উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। বিএনপির সাবেক এমপি গফুর ভূঁইয়ার ঘনিষ্ঠ এক ব্যবসায়ী এখন কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। ফ্রীডম পার্টির সাবেক নেতা এম এ রহমান নেভী ২০১১ সালে আওয়ামী লীগের সমর্থনে পেরুল দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলেন। বর্তমানে তিনি লালমাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি।

সদর দক্ষিণের বৃহত্তর পেরুল ইউনিয়ন ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান ডালিম বর্তমানে পেরুল দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। বিএনপির রাজনীতি করা রুহুল আমীন চৌধুরী এখন সদর দক্ষিণ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক।

লালমাই উপজেলার বৃহত্তর বাগমারা ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম বর্তমানে বাগমারা উত্তর ইউপি আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান ও লালমাই উপজেলা আওয়ামী লীগের ১ নং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর