ব্রেকিং:
কুমিল্লায় শ্যামলী পরিবহনের বাসচাপায় নিহত ৩ কুমিল্লায় গ্রাহকদের ৪০ কোটি টাকা নিয়ে কোম্পানি উধাও ড্রিমলাইনার ‘রাজহংস’ এখন ঢাকায় দাউদকান্দিতে প্রতিবন্ধি কিশোরীকে ধর্ষণ: মামলা দায়ের লালমাই আ.লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন আগে খাল উদ্ধার তারপর চালু হবে ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট : তাজুল ইসলাম সংবাদকর্মীদের বেতন বাড়ল ৮৫ শতাংশ ফার্ম করে স্বাবলম্বী এক ঝাঁক তরুণ মুরাদনগরে শিশু ধর্ষনের ঘটনায় মাতব্বর গ্রেফতার হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে ইউএই সোয়া কোটি টাকা লুটের অভিযোগে প্রতারক জামাল গ্রেফতার প্রাইভেটের পথে স্কুল ছাত্রীকে ছুরিকাঘাত ব্রাহ্মণপাড়ায় গ্রেফতার চার আসামি কারাগারে প্রধানমন্ত্রী পুলিশের প্যারেড পরিদর্শন করবেন আজ আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে শোভন-রাব্বানী বাদ, ছাত্রলীগের দায়িত্বে নাহিয়ান-লেখক কুমিল্লার ভারতীয় সীমান্ত থেকে চোরাইমালসহ ২ জন আটক আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় কুমিল্লার শিহাব লাকসামে অস্ত্রসহ কিশোর গ্যাংয়ের ছয় সদস্য আটক বদলে যাচ্ছে কারিগরি শিক্ষা, ৪০০ কোটি টাকার পরিকল্পনা

সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   ভাদ্র ৩১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

কুমিল্লার ধ্বনি
১৯১

ঈদের আগে প্রবাসী আয়ে নতুন রেকর্ড

প্রকাশিত: ৪ জুন ২০১৯  

এবারের ঈদের আগে যে পরিমাণ অর্থ প্রবাসীরা দেশে পাঠিয়েছেন, তা আগে কখনো আসেনি। যার মাধ্যমে প্রবাসী আয়ে নতুন রেকর্ড গড়লো বাংলাদেশ। 

সদ্য সমাপ্ত মে মাসে প্রবাসীদের পাঠানো ১৭৫ কোটি ৫৭ লাখ ডলার দেশে এসেছে। বাংলাদেশি টাকায় যার পরিমাণ ১৪ হাজার ৮৩৫ কোটি টাকা। বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, সবচেয়ে বেশি আয় এসেছে ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে। প্রবাসী আয় আনায় এরপরই রয়েছে ডাচ বাংলা, অগ্রণী ও সোনালী ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম বলেন, ব্যাংকগুলোতে ডলারের সংকট চলছে। এ জন্য সব ব্যাংকই প্রবাসী আয় আনার দিকে বাড়তি নজর দিয়েছে। কেউ কেউ ডলারের বেশি দামে দিয়েও আয় এনেছে। ফলে আয় অনেক বেড়েছে। 

তথ্য মতে, মে মাসে এসেছে ১৭৫ কোটি ৫৭ লাখ ডলার। এপ্রিলে এসেছিল ১৪৩ কোটি ডলার, মার্চে ১৪৫ কোটি ডলার। আর চলতি বছরের জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারিতে এসেছিল যথাক্রমে ১৫৯ কোটি ও ১৩১ কোটি ডলার। ফলে চলতি অর্থবছরের ১১ মাসে দেশে প্রবাসী আয় এসেছে ১ হাজার ৫০৬ কোটি ডলার।

গত ২০১৭-১৮ অর্থবছরে এক হাজার ৪৯৮ কোটি ১৭ লাখ (১৪.৯৮ বিলিয়ন) ডলারের রেমিটেন্স পাঠিয়েছিলেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থানকারী প্রবাসীরা। ওই অঙ্ক ২০১৬-১৭ অর্থবছরের চেয়ে ১৭ দশমিক ৩২ শতাংশ বেশি ছিল।

বাংলাদেশের অর্থনীতির অন্যতম চালিকাশক্তি হল বিদেশে থাকা বাংলাদেশিদের পাঠানো অর্থ বা রেমিটেন্স।

বর্তমানে এক কোটির বেশি বাংলাদেশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবস্থান করছেন। জিডিপিতে তাদের পাঠানো অর্থের অবদান ১২ শতাংশের মতো।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর