ব্রেকিং:
মাস্ক ছাড়া বাইরে বের হলে ৬ মাসের জেল, ১ লাখ টাকা জরিমানা করোনা প্রকল্পে বিশেষ বরাদ্দ ২০৭ কোটি টাকা এসএসসির সব সূচকেই ভাল ফল দেশে আজও দুই হাজারের অধিক আক্রান্ত, মৃত্যু ২২ করোনা আক্রান্তদের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নতুন সেবা নারী শান্তিরক্ষীদের অবদানের কথা তুলে ধরলেন রাবাব ফাতিমা করোনা শনাক্ত করতে রাজধানীতে আরো দুটি ল্যাব চালু ভর্তুকি খাতে বরাদ্দ বাড়ছে সাড়ে ৫ হাজার কোটি টাকা মানব পাচারকারীদের গ্রেফতারে তদন্তে নেমেছে সিআইডি সিএএমএসের মাধ্যমে হচ্ছে গরিবদের ডাটাবেস শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এখনই খোলা হবে না : প্রধানমন্ত্রী ব্যবসায়ীদের ২০০০ কোটি টাকা সুদ মওকুফ করা হবে : প্রধানমন্ত্রী দুই মাস পর পুরোনো রূপে চাঁদপুর, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে লঞ্চ বৃদ্ধকে প্লাজমা দিলেন করোনাজয়ী চিকিৎসক বরুড়ার সেই চা বিক্রেতার স্কুলে শতভাগ পাশ চাঁদপুরে আরো ১১ জনের করোনা শনাক্ত ছেলের মরদেহ নিয়ে সাড়ে ৬ ঘণ্টা সড়কে দাঁড়িয়ে ছিলেন বাবা-মা কুমিল্লায় চিকিৎসকসহ নতুন আক্রান্ত ১০৩ করোনার অবনতি হলে এবার কঠোর লকডাউন: প্রধানমন্ত্রী এস.এস.সি-২০২০ এর ফলাফলে কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অভাবনীয় সাফল্য
  • মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৯ ১৪২৭

  • || ০৯ শাওয়াল ১৪৪১

৮৮৮

উচ্চতর ডিগ্রি নিতে ভোগান্তিতে কুবি শিক্ষার্থীরা

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

বিদেশে উচ্চতর ডিগ্রির আবেদন করতে নানা ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের। মূল সার্টিফিকেট না পাওয়া, ফল প্রকাশের পর বিলম্বে সার্টিফিকেট দেওয়া ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে নিয়মিত তথ্য হালনাগাদ না করাসহ বিভিন্ন সমস্যায় পড়তে হচ্ছে শিক্ষার্থীদের। ফলে অনেক শিক্ষার্থী যোগ্যতা থাকার পরও পারছে না ভালো জায়গা থেকে উচ্চতর ডিগ্রি নিতে।

জানা গেছে, দেশের বাইরে উচ্চশিক্ষা নিতে যে বিষয়গুলো প্রয়োজনীয়, সে বিষয়ে সুবিধা পাচ্ছে না শিক্ষার্থীরা। ভর্তির আবেদনে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল সার্টিফিকেট প্রয়োজন হলেও এখনও মূল সার্টিফিকেট না দেওয়ায় শিক্ষার্থীদের ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে। এ ছাড়া ফাইনাল পরীক্ষার ফল প্রকাশের পর নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে নম্বরপত্র না পাওয়ায়ও সমস্যা হচ্ছে বলে অভিযোগ বিদেশে উচ্চ শিক্ষা নিতে আবেদন করা শিক্ষার্থীদের। তবে এসব সমস্যা সমাধানে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নূরল করিম চৌধুরী। তিনি বলেন, আমরা সমাবর্তন ছাড়া মূল সার্টিফিকেট প্রদান করতে পারছি না। তবে বিশেষ গুরুত্ব বুঝে আমরা কিছু শিক্ষার্থীকে মূল সার্টিফিকেটের ব্যবস্থা করেছি। তিনি আরও বলেন, আমাদের দপ্তরে ডাটা প্রসেসিং করার মতো লোক কম থাকায় সার্টিফিকেট দিতে একটু দেরি হয়। তারপরও কোনো শিক্ষার্থীর জরুরি তাগিদে তাড়াতাড়ি দেওয়ার চেষ্টা করি।

অন্যদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটটি নিয়মিত হালনাগাদ না থাকায় বিপাকে পড়তে হয় উচ্চতর ডিগ্রি নিতে আবেদন করা শিক্ষার্থীদের। বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকাংশ বিভাগ ওয়েবসাইটে শিক্ষার্থীরা যেসব কোর্সে পড়ছে, তার বিবরণ দেয় না। মঙ্গলবার সকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা কার্যক্রম চালু থাকা ১৯টি বিভাগের মধ্যে লোকপ্রশাসন, ব্যবস্থাপনা শিক্ষা, মার্কেটিং, সিএসই, আইসিটি ছাড়া কোনো বিভাগের সিলেবাস দেওয়া হয়নি। আবার শিক্ষার্থীদের তথ্য যাচাইয়ের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব মেইল দেওয়া হলেও সেখানে সাড়া না পাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থীর জন্য অফিসিয়াল মেইল থাকার কথা থাকলেও এ ব্যাপারে কোনো উদ্যোগ নেয়নি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ফলে শিক্ষার্থীদের অফিসিয়াল তথ্য জানতে পারছে না আবেদন গ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো।

সাবেক শিক্ষার্থী তাসনিমুল আবির বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে নামেই ওয়েবসাইট রয়েছে। এখানে পর্যাপ্ত তথ্য নেই। বিশ্ববিদ্যালয়কে আন্তর্জাতিক মানের করতে হলে সবার আগে ওয়েবসাইটটি তথ্যবহুল এবং কার্যকরী করার কথা বলেন তিনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট নিয়মিত হালনাগাদ না করার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইটি উপদেষ্টা মাহমুদুল হাসান বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের আইটি বিভাগ থেকে ওয়েবসাইট নিয়মিত হালনাগাদ করা হয়। তবে বিভাগ থেকে বিভাগীয় প্রধানরা সব বিভাগের নিয়মতি আপডেট দিচ্ছেন না।

এদিকে, দেশের বাইরে পড়তে গেলে নিজ বিভাগের শিক্ষকদের থেকে শিক্ষার্থীদের রেফারেন্স লেটার নিতে হয়। সম্পর্ক ভালো থাকার ওপর অনেক সময় এ বিষয় নির্ভর করে বলে ভুক্তভোগী এক শিক্ষার্থীর অভিযোগ। এর জন্য একজন শিক্ষকের পেছনে ঘুরে অনেক সময় নষ্ট করতে হয় বলেও অভিযোগ তার।

এসব বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসিওরেন্স সেলের (আইকিউএসি) পরিচালক অধ্যাপক ড. বিশ্বজিৎ চন্দ্র দেব বলেন, বিভাগীয় প্রধানদের নিয়ে শিগগিরই একটি সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে, যেখানে ওয়েবসাইটে তথ্য হালনাগাদ করার বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হবে। ওয়েবসাইটে শিক্ষার্থীদের তথ্য আপডেট নেই, সেইসঙ্গে শিক্ষকদেরও নেই। পর্যায়ক্রমে সব সমস্যা সমাধান করা হবে। এ ছাড়া উচ্চ শিক্ষা নিতে গিয়ে শিক্ষার্থীদের যে সমস্যা হয়, তা সমাধানে তাদের সঙ্গে বসে আলোচনা করব।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর