ব্রেকিং:
দুধে ভেজাল আছে কি-না পরীক্ষা করুন এই উপায়ে অবৈধ ডিটিএইচ সংযোগ ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে সরানোর নির্দেশ বরখাস্ত হলেন কাউন্সিলর সাঈদ শাহ আমানতে সাড়ে ছয় কোটি টাকার সোনার বার উদ্ধার যুবলীগের বয়স নিয়ে সিদ্ধান্ত গণভবনে: কাদের আওয়ামীলীগ নেতার উপর বর্বরোচিত হামলা সবার আগে দৃষ্টি দুই নারী ব্যবসায়ীসহ গ্রেফতার ৫ চালকদের ডোপ টেস্ট করেছে হাইওয়ে পুলিশ অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি উত্তোলনে জরিমানা বেতন ভাতা উন্নীতকরণের দাবিতে মানববন্ধন শাসনগাছার খাজা হোটেলকে জরিমানা এ সমস্যা সমাধানে সম্মিলিত প্রচেষ্টা জরুরী গোপন অভিযানে চোরাইচক্রের মূল হোতা আটক পাঠক শূন্য কুমিল্লার পাঠাগার বাবাকে বাঁচাতে কুবি শিক্ষার্থীর আকুতি অবৈধ ড্রেজার মেশিনে হুমকীর মুখে সরকারি খাল নবাগত ওসি’র চমক, এক রাতেই ৯ পলাতক আসামি আটক স্কাউটিংই পারে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে গড়ে তুলতে থানার পাশেই অবৈধ অস্ত্র

শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৩ ১৪২৬   ১৯ সফর ১৪৪১

কুমিল্লার ধ্বনি
১৩৩৪

উপজেলা নির্বাচন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছে৩৩ প্রার্থী

প্রকাশিত: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রথম ও দ্বিতীয় ধাপে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৩৩ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন। অর্থাৎ এই ৩৩ জনের কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। আগামী ২৭ ফেব্রুয়ারি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের সময়সীমা শেষ হলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতদের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে।

নির্বাচন কমিশনের সহকারী সচিব আশফাকুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, প্রথম ধাপে ৮ জন এবং দ্বিতীয় ধাপে ২৫ জন একক প্রার্থী রয়েছেন। বাছাই শেষে বৈধ প্রার্থী হলে তারা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেন।

২০০৯ সালে ২২ জানুয়ারি এক দিনেই দেশের সব উপজেলায় ভোট হয়। তাতে ১২ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। সর্বশেষ ২০১৪ সালে উপজেলায় ভোট হয় পাঁচ ধাপে। আওয়ামী লীগ-বিএনপির হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয় দুই ধাপে; শেষে ব্যবধান বাড়িয়ে বেশিরভাগ উপজেলায় জয় পায় আওয়ামী লীগ।

ইসি সূত্র জানায়, সোমবার দ্বিতীয় ধাপের উপজেলাগুলোয় মনোনয়নপত্র জমার শেষ দিন ছিল। এ ধাপের নির্বাচনে ২৫ জন চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান ১৪ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পাঁচজন ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান ছয়জন।

চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত ভাইস চেয়ারম্যান পদের সবকটিতেই একক প্রার্থী পাবনা সদর, ফরিদপুর সদর, নোয়াখালীর হাতিয়া ও চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলায়।

১৪টি উপজেলার চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী রয়েছেন। এর মধ্যে চট্টগ্রাম জেলার সাতটি উপজেলার পাঁচটিতেই চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী রয়েছেন। সেগুলো হচ্ছে- চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড, সন্দ্বীপ, রাঙ্গুনিয়া, মিরসরাই ও রাউজান। বাকি দুটির উপজেলার হাটহাজারীতে দুইজন ও ফটিকছড়িতে তিনজন প্রার্থী রয়েছেন।

এছাড়া যেসব উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী রয়েছেন সেগুলো হচ্ছে- বগুড়ার আদমদীঘি, নওগাঁ সদর, পাবনা সদর, মৌলভীবাজার সদর, ফরিদপুর সদর, নোয়াখালীর হাতিয়া, রাংগামাটির কাপ্তাই, খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি। যে পাঁচটি উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী রয়েছেন সেগুলো হচ্ছে- পাবনা সদর, ফরিদপুর সদর ও বোয়ালমারী, নোয়াখালীর হাতিয়া এবং চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলা।

আর যে ছয়টি উপজেলায় সংরক্ষিত বা নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে একক প্রার্থী সেগুলো হচ্ছে- পাবনা সদর, সিলেটের কানাইঘাট, ফরিদপুর সদর, নোয়াখালীর হাতিয়া এবং চট্টগ্রামের রাউজান ও মিরসরাই উপজেলা।

এর আগে প্রথম ধাপে মনোনয়নপত্র জমার পর একক প্রার্থী থাকায় ৮ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হওয়ার পথে রয়েছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে চারজন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুজন ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুজন।

চেয়ারম্যান পদে জামালপুরের সরিষাবাড়ি, মেলান্দহ, মাদারগঞ্জ ও জয়পুরহাট সদর উপজেলায়; ভাইস চেয়ারম্যান পদে সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর ও উল্লাপাড়ায় একজন এবং নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে রাজশাহীর গোদাগাড়ী ও সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে একজন করে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

পঞ্চম উপজেলা পরিষদের ভোট হচ্ছে পাঁচ ধাপে। এরমধ্যে প্রথম ধাপে ৮৬ উপজেলা এবং দ্বিতীয় ধাপে ১২৪ উপজেলায় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন প্রার্থীরা।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর