ব্রেকিং:
আওয়ামী লীগই জনগণের পাশে থাকে, এটাই আওয়ামী লীগের ঐতিহ্য - ওবায়দুল পাশে উঁচু জায়গা রেখে পরিকল্পিতভাবে পানিতে ঈদের নামাজ ৯ জুন পর্যন্ত ভ্যাট রিটার্ন জমার সময় বাড়ালো এনবিআর লোহাগড়ায় ঈদ উপহার পাঠালেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া নতুন ১৫২ সদস্যসহ পুলিশে করোনা আক্রান্ত চার হাজার ছাড়াল প্লাজমা দিতে চান এই চিকিৎসক দম্পতি হাসপাতালে রোগীর স্বজনদের বিরিয়ানি খাওয়ালেন আ’লীগ নেতা অনির্দিষ্টকাল জনগণের আয়ের পথ বন্ধ রাখা সম্ভব নয়: প্রধানমন্ত্রী নজরুলের গান আবৃত্তি করে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার পেল দুই শতাধিক পথশিশু ‘করোনার শুরু থেকেই ত্রাণ কার্যক্রম চালাচ্ছেন সংসদ সদস্যরা’ মোবাইল অ্যাপ ও হটলাইনে সাংসদ আসলামুল হকের অভিনব খাদ্য সহায়তা জাতীয় কবির ১২১তম জন্মদিন আজ বাঙ্গালির ঈদ উৎসবে ‘রমজানের ওই রোজার শেষে’র আগমন কিভাবে? দেশবাসীকে আওয়ামী লীগের ঈদ শুভেচ্ছা করোনাকালের ৫৬ দিনে ৩ লাখ ১৯ হাজার কনটেইনার হ্যান্ডলিং ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ মেরামতের কাজ শুরু করেছে সেনাবাহিনী ২৮০ ট্রান্সজেন্ডার ও হিজড়াকে ঈদ সামগ্রী প্রদান করেছে বন্ধু দুর্দিনে বারো হাজার মানুষকে খাদ্য সামগ্রী দিলো এসএসসি ২০০০ ব্যাচ আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত ৬হাজার পরিবারকে ৩কোটি টাকা সহায়তাদেবে ব্র্যাক
  • বুধবার   ২৭ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৭

  • || ০৩ শাওয়াল ১৪৪১

৫৩৫

একটি আইসিইউও‘র জন্য ৬০লাখ মানুষের আকুতি

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১৬ এপ্রিল ২০২০  

একটি সিটি কর্পোরেশন ও ১৭টি উপজেলার বড় জেলা কুমিল্লা। এখানে ৬০লাখ মানুষের বাস। স্বাধীনতার প্রায় ৫০বছরেও এখানে একটি আইসিইউ (ইনসেনটিভ কেয়ার ইউনিট) চালু করা যায়নি। কুমিল্লার কোন সরকারি হাসপাতালে আইসিইউ নেই। করোনার এই দুঃসময়ে আইসিইউ ইউনিট জরুরি বলে দাবি করেন কুমিল্লার চিকিৎসক ও সচেতনরা।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালে আইসিইউ‘র ১০টি বেড আছে। ১০লাখ টাকা দামের একটি ব্লাড গ্যাস এনালাইজার মেশিনের জন্য তা চালু করা যাচ্ছে না। এবিষয়ে সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার সম্প্রতি ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেছিলেন। কুমেক হাসপাতালে আইসিইউ চালু নিয়ে চিকিৎসকরা আকুতি জানিয়েছেন। ইতোমধ্যে সোমবার দুপুর পর্যন্ত কুমিল্লার সাতজন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে একজন চিকিৎসা অবহেলায় মারা গেছেন বলে তাদের স্বজনরা অভিযোগ করেন।

হাসপাতালের সূত্র জানায়,১৯৯২ সালে এ হাসপাতালটি ২৫০শয্যার হাসপাতাল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। বর্তমানে তা ৫০০শয্যা। এখানে কুমিল্লার সাথে ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চাঁদপুর, ফেনী, লক্ষীপুর ও নোয়াখালী অঞ্চলের স্বল্প আয়ের রোগীরা চিকিৎসা নিতে আসেন। এছাড়া রয়েছে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দুর্ঘটনায় সংকটাপন্ন রোগী। এদিকে কুমিল্লার চারটি বেসরকারি হাসপাতালে স্বল্প পরিসরে আইসিইউ চালু থাকলেও তা ব্যয় বহুল।

সচেতন নাগরিক কমিটি কুমিল্লার সভাপতি বদরুল হুদা জেনু বলেন, হাসপাতাল প্রশাসন আগের থেকে সেবা প্রদানে আন্তরিক। তবে বিভিন্ন যন্ত্রপাতির সংকট রয়েছে। এটা এই অঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ হাসপাতাল। এখান থেকে রোগীকে রেফার করা দুঃখজনক। পূর্ণাঙ্গ চিকিৎসার জন্য এখানে আইসিইউ চালু করা প্রয়োজন।

হাসপাতালের পরিচালক ডা.মুজিবুর রহমান বলেন, কিছু যন্ত্রপাতি সংকটে আইসিইউ চালু করতে পারছি না। যন্ত্রপাতির চাহিদা কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। আশা করছি দ্রুত পেয়ে যাবো। তিনি আরো জানান, করোনা পরীক্ষার পিসিআর মেশিন এক সপ্তাহের মধ্যে আসবে।

কুমিল্লার ধ্বনি
নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর