ব্রেকিং:
সরকারি কলেজে ফ্রি ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন ২০ দিনে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত তিন শতাধিক রোগী চান্দিনায় বিডি ক্লিন-এর পরিচ্ছন্নতা অভিযান উদ্বোধন কুমিল্লাতেও চলছে ৩য় শ্রেণীর কর্মচারীদের কর্মবিরতি নারীসহ ডাকাত চক্রের ১১ সদস্য আটক যৌন হয়রানির ঘটনায় কুবি’র সেই শিক্ষককে অব্যাহতি মহাপরিচালকের সদর দক্ষিণ ফায়ার স্টেশন পরিদর্শন দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নতুন এ্যাম্ব্যুলেন্স ১ম শ্রেণির কর্মকর্তার দিক দিয়ে ২য় স্থানে কুমিল্লা মাঠ দখলের নামে হামলা ও সীমানা প্রাচীর ভাংচুর সড়কের ধুলাবালিতে জনজীবন বিপর্যস্ত কুমেক হাসপাতালে কর্মচারীদের টাকার খনি বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনাল নিশ্চিত করতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ স্ত্রীকে তালাক দেয়ায় দুধ দিয়ে গোসল, গ্রামে খিচুড়ি উৎসব পার্কে বসে আড্ডা, ৪০ তরুণ-তরুণী আটক প্রজনন ক্ষমতা কমায় কয়েলের ধোঁয়া! খেজুর রসে বিষ মিশিয়ে পাখি মারছে শিকারিরা দিনে পরিবহন নেতা, রাতে মাদক ব্যবসা পদত্যাগ করছেন বিবিসির মহাপরিচালক সরকারি অর্থের ৫০ ভাগ রাখতে হবে বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকে

বুধবার   ২২ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৮ ১৪২৬   ২৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

কুমিল্লার ধ্বনি
২৫৫২

কিডনি রোগ সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধির আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত: ১৪ মার্চ ২০১৯  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাগুলোকেও কিডনি রোগ সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বিশ্ব কিডনি দিবস উপলক্ষে বুধবার এক বাণীতে এ আহ্বান জানান।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও বিশ্ব কিডনি দিবস পালিত হচ্ছে জেনে সন্তোষ প্রকাশ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশ রেনাল অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ কিডনি ফাউন্ডেশন ও ক্যাম্পস যৌথভাবে দিবসটি পালনের উদ্যোগ গ্রহণ করায় আমি সংশ্লিষ্ট সবাইকে অভিনন্দন জানাচ্ছি’।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এবারের বিশ্ব কিডনি দিবসের প্রতিপাদ্য ‘সুস্থ কিডনি, সবার জন্য- সর্বত্র’ যথার্থ হয়েছে বলে তিনি মনে করেন। সুস্থাস্থ্যের জন্য সুস্থ কিডনির বিকল্প নেই উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, কিডনি রোগের চিকিৎসা অত্যন্ত ব্যয়বহুল। তবে আশার কথা, অনেক কিডনি রোগ প্রতিরোধযোগ্য। এ জন্য জনসচেতনতা ও প্রারম্ভিক পর্যায়ে রোগ শনাক্ত করা প্রয়োজন।

তিনি উল্লেখ করেন, আওয়ামী লীগ সরকার স্বাস্থ্যখাতে যুগান্তকারী সাফল্য অর্জন করেছে যা বিশ্বব্যাপী সমাদৃত হয়েছে। কিডনি রোগের প্রতিরোধ ও চিকিৎসার বিষয়ে সরকার যথাযথ গুরুত্ব দিচ্ছে এবং এ বিষয়ে প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোর মাধ্যমে প্রাথমিক পর্যায়ে কিডনি রোগ শনাক্ত করা সম্ভব। এর ফলে দীর্ঘমেয়াদি কিডনি রোগ ও কিডনি বিকল হওয়ার ঝুঁকি হ্রাস পাবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমি আশা করি, সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থাগুলোও বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে কিডনি রোগ সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।’ তিনি কিডনি দিবস-২০১৯’র সার্বিক সাফল্য কামনা করেন।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর