ব্রেকিং:
তিস্তা ব্যারাজের কমান্ড এলাকায় সেচ কার্যক্রম শুরু সিকৃবির সাফল্য: অভয়াশ্রমে রক্ষা দেশীয় মাছ ফসলের ফলন বাড়ছে তরল সার উদ্ভাবনে প্রাণ ফিরেছে পর্যটনে, জমজমাট হোটেল ব্যবসা দুর্গম চরে আশার আলো ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১০৯১ গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার অক্সিজেনের ন্যূনতম মূল্য ১০০-১২০ টাকা টিকা দেওয়ার ছক প্রস্তুত উন্নয়ন দেখতে বাংলাদেশে আসতে চান বেলজিয়ামের রাজা ফিলিপ মহাকাশ চর্চার যুগে প্রবেশ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ শিক্ষার্থীদের বাসায় রাখা নিশ্চিত করবেন প্রতিষ্ঠান প্রধানরা নতুন ৬ মেডিকেল কলেজের মাস্টারপ্ল্যান শরীয়তপুরে ধর্ষণ মামলার মীমাংসা করতে ডেকে নিয়ে ফের গণধর্ষণ সরকারি স্কুলে ২০ জানুয়ারির মধ্যে ভর্তির নির্দেশ বিএসএফের আমন্ত্রণে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষের অনুষ্ঠানে বিজিবি ৭০০০ অ্যাম্বুল্যান্স মালিক যুক্ত হয়েছেন ৯৯৯ জরুরি সেবায় হোয়াইট হাউজের শীর্ষ পদে বাংলাদেশের জায়ান স্বাভাবিক জীবনে ৯ জঙ্গি আবিদা বলল, ভুল পথে ছিলাম বিশ্বজুড়ে করোনায় ২০ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু রাজনীতি ছেড়ে দেব এমপি বাহার,কিন্তু কেন ??
  • শনিবার   ১৬ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৩ ১৪২৭

  • || ০১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

১৮৫

কুমিল্লায় ছুরিকাঘাতে যুবক খুন

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১৫ ডিসেম্বর ২০২০  

কুমিল্লায় জহিরুল ইসলাম (২৫) নামে এক যুবক ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছেন।

কুমিল্লায় জহিরুল ইসলাম (২৫) নামে এক যুবক ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছেন। সোমবার  শহরের আড়াইওড়া এলাকায় এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত জহির সাতরা চম্পকনগর এলাকার ফরিদ মিয়ার পুত্র। তিনি কুমিল্লা কৃষি গবেষণা অফিসে চাকরি করেন বলে জানা গেছে।

জহিরুল ইসলামের বন্ধু এরশাদ জানান, সোমবার রাত রাত ৮টার দিকে আমাকে সাথে নিয়ে জহির তার মোটরসাইকেল সার্ভিসিং করানোর জন্য আড়াইওড়া যায়। সেখানে বাইক রাখার পর সাইফুদ্দিন ও আজহারুল নামে দুই ব্যক্তি জহিরকে ডেকে নিয়ে যায়। একটু পরেতার চিৎকার শুনে কাছে গিয়ে দেখি সে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। তাৎক্ষণিক তাকে উদ্ধার করে প্রথমে কুমিল্লা সদর হাসপাতাল ও পরে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসক আবুল হাসেম মনসুর জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে জহিরকে রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। একটু পরই মারা যায় সে। কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনোয়ারুল হক জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। 

শহরের আড়াইওড়া এলাকায় এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত জহির সাতরা চম্পকনগর এলাকার ফরিদ মিয়ার পুত্র। তিনি কুমিল্লা কৃষি গবেষণা অফিসে চাকরি করেন বলে জানা গেছে।

জহিরুল ইসলামের বন্ধু এরশাদ জানান, সোমবার রাত রাত ৮টার দিকে আমাকে সাথে নিয়ে জহির তার মোটরসাইকেল সার্ভিসিং করানোর জন্য আড়াইওড়া যায়। সেখানে বাইক রাখার পর সাইফুদ্দিন ও আজহারুল নামে দুই ব্যক্তি জহিরকে ডেকে নিয়ে যায়। একটু পরেতার চিৎকার শুনে কাছে গিয়ে দেখি সে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। তাৎক্ষণিক তাকে উদ্ধার করে প্রথমে কুমিল্লা সদর হাসপাতাল ও পরে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে চিকিৎসক আবুল হাসেম মনসুর জানান, রাত সাড়ে ৮টার দিকে জহিরকে রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। একটু পরই মারা যায় সে। কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনোয়ারুল হক জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। 

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর