ব্রেকিং:
আওয়ামী লীগই জনগণের পাশে থাকে, এটাই আওয়ামী লীগের ঐতিহ্য - ওবায়দুল পাশে উঁচু জায়গা রেখে পরিকল্পিতভাবে পানিতে ঈদের নামাজ ৯ জুন পর্যন্ত ভ্যাট রিটার্ন জমার সময় বাড়ালো এনবিআর লোহাগড়ায় ঈদ উপহার পাঠালেন আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া নতুন ১৫২ সদস্যসহ পুলিশে করোনা আক্রান্ত চার হাজার ছাড়াল প্লাজমা দিতে চান এই চিকিৎসক দম্পতি হাসপাতালে রোগীর স্বজনদের বিরিয়ানি খাওয়ালেন আ’লীগ নেতা অনির্দিষ্টকাল জনগণের আয়ের পথ বন্ধ রাখা সম্ভব নয়: প্রধানমন্ত্রী নজরুলের গান আবৃত্তি করে দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার পেল দুই শতাধিক পথশিশু ‘করোনার শুরু থেকেই ত্রাণ কার্যক্রম চালাচ্ছেন সংসদ সদস্যরা’ মোবাইল অ্যাপ ও হটলাইনে সাংসদ আসলামুল হকের অভিনব খাদ্য সহায়তা জাতীয় কবির ১২১তম জন্মদিন আজ বাঙ্গালির ঈদ উৎসবে ‘রমজানের ওই রোজার শেষে’র আগমন কিভাবে? দেশবাসীকে আওয়ামী লীগের ঈদ শুভেচ্ছা করোনাকালের ৫৬ দিনে ৩ লাখ ১৯ হাজার কনটেইনার হ্যান্ডলিং ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ মেরামতের কাজ শুরু করেছে সেনাবাহিনী ২৮০ ট্রান্সজেন্ডার ও হিজড়াকে ঈদ সামগ্রী প্রদান করেছে বন্ধু দুর্দিনে বারো হাজার মানুষকে খাদ্য সামগ্রী দিলো এসএসসি ২০০০ ব্যাচ আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত ৬হাজার পরিবারকে ৩কোটি টাকা সহায়তাদেবে ব্র্যাক
  • বুধবার   ২৭ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৭

  • || ০৩ শাওয়াল ১৪৪১

৪০৫

কুমিল্লায় হতে পারে ছয় জেলার করোনা ভাইরাস নির্ণয় পরীক্ষাগার

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ৩ এপ্রিল ২০২০  

বর্তমান সময়ে বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে বড় মহামারির নাম করোনা ভাইরাস। আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত কিনা সেটা নির্ণয়ের জন্য কুমিল্লায় তথা আশেপাশের ৫টি জেলায় নেই কোন আধুনিক ল্যাবরেটরি। করোনা ভাইরাস পরীক্ষার একমাত্র বায়োসেফটি লেভেল-থ্রি ল্যাবরেটরি স্থাপন করা যেতে পারে কুমিল্লায় জেলায় । এ জেলার ১৭টি উপজেলার প্রায় ৬০ লাখ মানুষসহ চাঁদপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া এবং নোয়াখালী, লক্ষীপুর, ফেনীসহ ৬ জেলার প্রায় দেড় কোটিরও বেশী লোকের করোনা পরীক্ষায় ভরসার স্থল হতে পারে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল।

স্বাভাবিক সময়ে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে জটিল রোগ নিয়ে প্রতিদিনই চিকিৎসা নিতে আসে এই ৬ জেলার রোগাক্রান্ত মানুষ। অনেকেই রোগ নিরাময় শেষে বাড়ি ফিরে যান। রাজধানী ঢাকা এবং বাণিজ্যিক নগরী চট্টগ্রামের মাঝামাঝি স্থানে অবস্থান কুমিল্লার। এছাড়া আশেপাশের জেলাগুলোর সাথে সহজ ও নিরাপদ যোগাযোগ ব্যবস্থা রয়েছে এ জেলার। কিন্তু এখানে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহভাজনদের পরীক্ষার নেই কোন ব্যবস্থা। তাই অনেকটা বাধ্য হয়েই করোনা পরীক্ষার জন্য এ সকল জেলার রোগীরা ছুটতে হচ্ছে রাজধানী ঢাকা কিংবা চট্টগ্রামের দিকে। এতে বিড়ম্বনার পাশাপাশি অপচয় হচ্ছে সময় আর বাড়ছে ব্যয়। অথচ কুমিল্লায় একটি বায়োসেফটি লেভেল-থ্রি ল্যাবরেটরি স্থাপন করা হলে সহজেই লোকজন অল্প সময়ে পরীক্ষা সেরে বাড়ি ফিরে যেতে পারতো।

একান্ত সাক্ষাৎকারে সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান বলেন, বায়োসেফটি লেভেল-থ্রি ল্যাবরেটরি স্থাপনে অনেক অর্থের প্রয়োজন। এমনিতেই কুমিল্লা একটি বড় প্রশাসনিক জেলা। এ জেলায় স্থাপিত মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বৃহত্তর কুমিল্লা ও বৃহত্তর নোয়াখালীর ৬ জেলাকে কেন্দ্র করে বায়োসেফটি লেভেল-থ্রি ল্যাবরেটরি গড়ে উঠতে পারে। এই মেডিকেল কলেজে একটি অত্যাধুনিক ল্যাবরেটরিটি স্থাপন এখন সময়ের দাবি। আমরা এ বিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য হাজী আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার মহোদয়ের সাথে কথা বলেছি, তিনিও এতে সায় দিয়েছেন। কুমিল্লায় আধুনিক ল্যাবরেটরি স্থাপনের জন্য উধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছি। আশা করছি আগামীতে বায়োসেফটি লেভেল-থ্রি ল্যাবরেটরি হয়ে যাবে। করোনা পরিস্থিতিতে ডাক্তারদের সুরক্ষার পিপিই পাওয়া গেছে কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, পিপিই সন্তোষজনক সংখ্যায় পাওয়া গেছে।

কুমিল্লার ধ্বনি
নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর