ব্রেকিং:
মাস্কের টুইটে উত্তাল ভারতের রাজনীতি চার মাসে বিদেশে চাকরি কমেছে ২০ শতাংশ রাজধানীর বড় বড় হাসপাতাল যেন ‘বাতির নিচে অন্ধকার’ ঈদের দিন যেসব উন্নত খাবার পেলেন কারাবন্দিরা আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি হাসিল নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল বাজারে লঙ্কাকাণ্ড টিনের বেড়ায় বিদ্যুতের তার চাঁদপুরে অর্ধশত গ্রামে ঈদ উদযাপন স্বস্তিতে ঘরমুখো মানুষ যেভাবে গড়ে ওঠে শতবর্ষী কুমিল্লা কেন্দ্রীয় ঈদগাহ বেশি ভাড়া রাখায় উপকূল পরিবহনকে জরিমানা মিয়ানমার সীমান্তের পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকার নির্দেশ রাখাইনে বড় সংঘাতের আশঙ্কা, বাসিন্দাদের সরে যাওয়ার নির্দেশ একদিনে পদ্মাসেতুর আয় পৌনে ৫ কোটি টাকা চামড়া সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে র‌্যাবের কঠোর হুঁশিয়ারি ঈদে ট্রেনে মানুষের নির্বিঘ্নে বাড়ি যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনে সকল রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ খাদ্যসামগ্রী ও দেড় শতাধিক মানুষ নিয়ে জাহাজ গেল সেন্ট মার্টিন কুমিল্লায় বেতন-বোনাসের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ আফজাল খান পত্নী বীর মুক্তিযোদ্ধা নার্গিস আফজালের ইন্তেকাল
  • মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৪ ১৪৩১

  • || ১০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

কুমিল্লায় হোটেল কর্মচারীকে হত্যায় একজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ৭ জুন ২০২৪  

২০১৮ সালে হোটেল কর্মচারী বদিউল আলমকে (৩০) পথরোধ করে হত্যার দায়ে মোঃ জাফর নামের এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদ- দিয়েছেন কুমিল্লার আদালত। বৃহস্পতিবার (৬ জুন) কুমিল্লার বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ পঞ্চম আদালতের বিচারক মোছা. ফরিদা ইয়াসমিন এ রায় দেন। দ-প্রাপ্ত আসামি মোঃ জাফর চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ঘোষতল গ্রামের মোঃ জাহাঙ্গীর আলম এর ছেলে মোঃ জাফর (২৮)।
মামলার বিবরণে জানা যায়- ২০১৮ সালের ২৮ এপ্রিল দিবাগত-রাত পৌনে ১০টায় বদিউল আলমকে (৩০) ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে ডিমাতলী গ্রামের জামে মসজিদের সামনে ফেলে রাখে। এরপর তাকে উদ্ধার করে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করলে চিকিৎসক অবস্থা আশংকাজনক কুমেক হাসপাতালে প্রেরণের পরামর্শ দেন। সেখানে নেওয়ার পথে মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

এ ব্যাপারে ২০১৮ সালের ২৯ এপ্রিল নিহতের মা কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার উত্তর কেচকিমুড়া'র মৃত ইসলাম মিয়ার মেয়ে হালিমা বেগম (৭০) বাদী হয়ে একই উপজেলার ঘোষতল গ্রামের জফরকে একমাত্র আসামি করে চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করিলে তদন্তকারী কর্মকর্তা শুভ রঞ্জন চাকমা তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে একই উপজেলার ঘোষতল গ্রামের জাহাঙ্গীর আলম এর ছেলে আসামি মোঃ জাফর (২৮) ও একই উপজেলার কেচকিমুড়ার আঃ লতিফ এর ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন (২৬) ও ফেনী জেলার সদর উপজেলার বগইড় গ্রামের মোঃ সিরাজ উদ্দিন এর ছেলে আসামি মোঃ এনামুল হক বাবুলকে কে গ্রেফতার করে বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করিলে আসামি মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন ফৌজদারি কার্যবিধি আইনের ১৬৪ ধারার বিধানমতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন।
তৎপর হত্যার মূল রহস্য উদ্ঘাটন করে তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মোঃ মনিরুল কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ঘোষতলের মোঃ জাহাঙ্গীর আলম এর ছেলে আসামি মোঃ জাফর (২৮) ও একই উপজেলার কেচকিমুড়া'র আবদুল লতিফ এর ছেলে মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন এবং ফেনী'র সদর উপজেলার বগইড় গ্রামের সিরাজ উদ্দিন এর ছেলে মোঃ এনামুল হক বাবলু এর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হওয়ায় দ-বিধির ৩৪১/৩০২/৩৪ ধারার বিধানমতে বিজ্ঞ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। তৎপর মামলাটি বিচারে আসিলে ২০২০ সালের ১৪ জানুয়ারি সংশ্লিষ্ট ধারায় অভিযোগ গঠনক্রমে রাষ্ট্রপক্ষে ১২জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে যুক্তিতর্ক শুনানি অন্তে আসামি মোঃ জাফরকে যাবজ্জীবন কারাদ- ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদ- অনাদায়ে আরো ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদ- এবং অপর দুই আসামি মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন ও মোঃ এনামুল হক বাবলু এর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদেরকে বেকসুর খালাস প্রদান করেন আদালত।
রায় ঘোষণা কালে দ-প্রাপ্ত আসামি মোঃ জাফর আদালত কাঠগড়ায় অনুপস্থিত ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এপিপি অ্যাডভোকেট মোঃ জাকির হোসেন বলেন আমরা আশা করছি উচ্চ আদালত এ রায় বহাল রাখবেন।