ব্রেকিং:
বঙ্গবন্ধু ছিলেন কৃষকের আপনজন পাউবোর কাজে ধীর গতি, শত কোটি টাকার ক্ষতির আশঙ্কা অবশেষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ত্রাণের সব তালিকা বাতিল বাজারে হামলা, দুই চেয়ারম্যানের পাল্টা পাল্টি অভিযোগ বঙ্গমাতার ৯০তম জন্মবার্ষিকী আজ চাঁদপুরে ১২৭ রিপোর্টে পজিটিভ ২০ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আরো ২৩ জন করোনায় আক্রান্ত কুমিল্লায় নতুন করে ৪৭ জনের করোনা শনাক্ত সীমান্তের শিক্ষাগুরু আব্দুর রহমান চৌধুরী চলে গেলেন ঈদের দিন রাতের মধ্যেই কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করেছে কুসিক দেশে আক্রান্তের সংখ্যা আড়াই লাখ ছাড়ালো, একদিনে ২৭ মৃত্যু মরিতে চাহি না আমি সুন্দর ভুবনে স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজি আবুল কালামকে দুদকে তলব মেজর সিনহার হত্যাকারীরা পার পাবে না সোশ্যাল মিডিয়ায় অস্থিরতা ছড়ালে ব্যবস্থা ওসি প্রদীপ গ্রেফতার দেশে একদিনে আরো ৩৯ মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ২৯৭৭ চেয়ারম্যান-মেম্বারদের শিক্ষাগত যোগ্যতার বিষয়টি গুজব করোনা চিকিৎসায় ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি ক্রয়ে কমিটি লেবাননে জরুরি খাদ্য ও চিকিৎসক পাঠাচ্ছে বাংলাদেশ
  • শনিবার   ০৮ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৪ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

৭৪

গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে ইউপি সদস্য গ্রেফতার

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ৬ মে ২০২০  

কুমিল্লার মুরাদনগরে স্বামীকে জামিন পাইয়ে দেয়ার কথা বলে এক গৃহবধূকে সাত বার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ৬ জনের বিরুদ্ধে। ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূ বর্তমানে পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। 

ধর্ষক ৬ জন হলো, উপজেলা সদর ইউপির ডুমুরিয়া গ্রামের জায়েদ প্রধানের ছেলে ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম ভোলা, ছাফর আলী প্রধানের ছেলে মোশারফ হোসেন, জসিম মিয়ার ছেলে রিয়াজ মিয়া, শাহিন শাহ্ এর ছেলে জালাল মিয়া, হাশেম মিয়ার ছেলে জীবন মিয়া ও বেয়ারী মিয়ার ছেলে রেনু মিয়া।

এ ঘটনায় সোমবার ধর্ষকদের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার প্রধান আসামি ধর্ষক ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম ভোলাকে  আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৯ সালের ১৪ নভেম্বর ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূর স্বামী নিজ এলাকার ২য় শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা মামলায় কারাগারে যায়। স্বামী কারাগারে যাওয়ার পর শাশুরির সঙ্গে থাকতো ওই গৃহবধূ। এক পর্যায় ছেলের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার জামিনের জন্য কুমিল্লায় বাসা ভাড়া করে চলে যান শাশুরি। শাশুরি চলে যাওয়ার পর ওই গৃহবধূ স্বামীর জামিনের জন্য ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম ভোলার কাছে সহযোগিতা চাইলে সে কাজের বাহানা দেখিয়ে রাতে আসার কথা বলে। 

গত বছরের ২১ নভেম্বর রাতেই ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম গৃহবধুর স্বামীকে জামিনে ছাড়িয়ে দেয়ার নানা প্রলোভন দেখিয়ে ওই গৃহবধূকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। ধর্ষণের ঘটনা কারো কাছে প্রকাশ না করতে ভয়ভীতিও দেখান।

এ ঘটনার ১৪ দিনের মাথায় মামলার ২য় আসামি ইউপি সদস্য ভোলার সহযোগী মোশারফ হোসেন একই কায়দায় ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে। তার একদিনের মাথায় ৩য় আসামি, পরদিন ৪র্থ আসামি, তারও একদিনের মাথায় ৫ম আসামি ও ৭ দিনের মাথায় ৬ষ্ঠ আসামি ওই গৃহবধূকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। 

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের ৩ তারিখ মামলার ৫ম আসামির মামা শশুর জীবন মিয়া আবারো ওই গৃহবধূকে জোর পূর্বক ধর্ষণকালে জীবন মিয়ার স্ত্রী দেখে ফেলে। পরে জীবনের স্ত্রী মামী শাশুড়িকে সঙ্গে নিয়ে ওই গৃহবধূর শাশুরীর কাছে সব ঘটনা খুলে বলেন। এ সময় ছেলে জেলে থাকায় ধর্ষকদের ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারেনি শাশুড়ি। 

মুরাদনগর থানার ওসি একেএম মনজুর আলম বলেন, এ ব্যাপারে মুরাদনগর থানায় ৬ জনকে আসামি করে একটি মামলা হয়েছে। মামলার প্রধান আসামি ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম ভোলাকে গ্রেফতার করে মঙ্গলবার সকালে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। বাকি আসামিদেরকে ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর