ব্রেকিং:
মাস্কের টুইটে উত্তাল ভারতের রাজনীতি চার মাসে বিদেশে চাকরি কমেছে ২০ শতাংশ রাজধানীর বড় বড় হাসপাতাল যেন ‘বাতির নিচে অন্ধকার’ ঈদের দিন যেসব উন্নত খাবার পেলেন কারাবন্দিরা আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি হাসিল নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল বাজারে লঙ্কাকাণ্ড টিনের বেড়ায় বিদ্যুতের তার চাঁদপুরে অর্ধশত গ্রামে ঈদ উদযাপন স্বস্তিতে ঘরমুখো মানুষ যেভাবে গড়ে ওঠে শতবর্ষী কুমিল্লা কেন্দ্রীয় ঈদগাহ বেশি ভাড়া রাখায় উপকূল পরিবহনকে জরিমানা মিয়ানমার সীমান্তের পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকার নির্দেশ রাখাইনে বড় সংঘাতের আশঙ্কা, বাসিন্দাদের সরে যাওয়ার নির্দেশ একদিনে পদ্মাসেতুর আয় পৌনে ৫ কোটি টাকা চামড়া সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে র‌্যাবের কঠোর হুঁশিয়ারি ঈদে ট্রেনে মানুষের নির্বিঘ্নে বাড়ি যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনে সকল রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ খাদ্যসামগ্রী ও দেড় শতাধিক মানুষ নিয়ে জাহাজ গেল সেন্ট মার্টিন কুমিল্লায় বেতন-বোনাসের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ আফজাল খান পত্নী বীর মুক্তিযোদ্ধা নার্গিস আফজালের ইন্তেকাল
  • মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৪ ১৪৩১

  • || ১০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

চাঁদপুরে কলেজে ভর্তির ভুতুড়ে আবেদনের অ্যাকাউন্ট অপসারণের নির্দেশ

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১১ জুন ২০২৪  

চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার দূর্গাপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজে ভর্তির জন্য বেআইনি পদ্ধতিতে তৈরি করা অ্যাকাউন্টগুলো (অননুমোদিত অ্যাকাউন্ট) সার্ভার থেকে ১২ ঘণ্টার মধ্যে অপসারণ করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের এ নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে।

সোমবার (১০ জুন) বিচারপতি নাইমা হায়দার ও বিচারপতি কাজী জিনাত হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার এ বি এম হামিদুল মিসবাহ। 

এর আগে গতকাল রোববার চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার দূর্গাপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজে ভর্তির জন্য বেআইনি পদ্ধতিতে তৈরি করা অ্যাকাউন্টগুলো (অননুমোদিত অ্যাকাউন্ট) সার্ভার থেকে অপসারণের নির্দেশনা চেয়ে রিট দায়ের করা হয়।

ভুক্তভোগী ৩৩ শিক্ষার্থীর অভিভাবকের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার এ বি এম হামিদুল মিসবাহ এ রিট দায়ের করেন।

গত ২ জুন চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার দূর্গাপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজে শিক্ষার্থীদের অজান্তে ভর্তির আবেদনপত্র গ্রহণ করার ঘটনায় প্রতিকার চেয়ে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়। নোটিশে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য আবেদনপত্র ছাড়াই বেআইনি পদ্ধতিতে তৈরি করা অ্যাকাউন্টগুলো (অননুমোদিত অ্যাকাউন্ট) সরানোর জন্য অবিলম্বে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়।

ভুক্তভোগী ৩৩ শিক্ষার্থীর অভিভাবকের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার এ বি এম হামিদুল মিসবাহ এ নোটিশ পাঠান। 

শিক্ষা সচিব, তথ্য ও প্রযুক্তি সচিব, চাঁদপুর জেলা শিক্ষা অফিসারসহ সংশ্লিষ্টদের এ নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

গত ৩০ মে ‘কলেজে ভর্তিতে ভুতুড়ে আবেদন, ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা’ শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়- এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে এবার কলেজে ভর্তির পালা। কিন্তু ডিজিটাল পদ্ধতিতে ভর্তির আবেদন করতে গিয়ে দেখে শিক্ষার্থীদের আবেদন অন্য কেউ করে ফেলেছে। এ নিয়ে চাঁদপুরের হাইমচরে ২০ থেকে ২৫ জন শিক্ষার্থী জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছে। এ সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে স্থানীয় প্রেস ক্লাবেও সংবাদ সম্মেলন করে তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, হাইমচর কেভিএন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আফরোজা ও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়সহ কয়েকটি স্কুল ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের অজান্তে ভর্তির আবেদন হাইমচর উপজেলার দূর্গাপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজে ভর্তির আবেদন করা হয়েছে। কিন্তু কে বা কারা এ আবেদন করেছে তা জানা যায়নি। এ নিয়ে ভোগান্তিতে পড়েছে শিক্ষার্থীরা।

বুধবার (২৯ মে) উপজেলা প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে কেভিএন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আফরোজা ও বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ফাতেমা জানান, ২০২৪ সালে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে তারা তাদের পছন্দের কলেজে ভর্তি আবেদন করতে গিয়ে দেখে কে বা কারা দূর্গাপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজে তাদের আবেদন করেছে। তারা আরও উন্নত মানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি হবে। ওই প্রতিষ্ঠানে অন্য কেউ আবেদন করার কারণে তাদের পছন্দের কলেজে ভর্তি আবেদন করতে পারছে না।

dhakapost

শিক্ষার্থীদের নিজেদের ও পরিবারের ইচ্ছার বাইরে কেন এমন আবেদন করল তার সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান তারা।

কেভিএন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিশ্বজিৎ নাথ বলেন, আমার বিদ্যালয়ের ১০ জন শিক্ষার্থীর একাদশ শ্রেণিতে কে বা কারা যেন আবেদন করে নিয়েছে। যারাই এ কাজটি করেছে ঠিক করেনি। শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ নিয়ে খেলা করছে তারা। তাদের মধ্যে দুইজন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছে। তারা যেকোনো ভালো কলেজে ভর্তি হতে পারবে। অন্য কলেজে আবেদন করার ফলে এখন তারা পছন্দের কলেজে ভর্তি আবেদন করতে পারছে না।

এদিকে দূর্গাপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ মো. রুহুল আমিন বলেন, কে বা কারা শিক্ষার্থীদের ভর্তির আবেদন করেছে তা আমাদের জানা নেই। বিষয়টি মিথ্যা এবং বানোয়াট।

হাইমচর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোস্তফা কামাল জানান, প্রায় ১৫ জন শিক্ষার্থী জেলা প্রশাসক এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগ দিয়েছে। আমরা বিষয়টি সম্পর্কে অবগত হয়েছি। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানিয়েছি। আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে যারা অভিযোগ করেছে তাদের রোল নম্বর এবং রেজিস্ট্রেশন নম্বর দেওয়া উচিত ছিল।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে সালমা নাজনীন তৃষা জানান, কিছু শিক্ষার্থী আমার কাছে অভিযোগ দিয়েছে। তাদের অজান্তে কলেজে ভর্তি আবেদন করা কাজটি ঠিক হয়নি। আমরা তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। শিক্ষার্থীরা যাতে নিজেদের পছন্দের কলেজে ভর্তি হতে পারে আমরা সেই ব্যবস্থা করব।

প্রসঙ্গত, চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল গত ১২ মে প্রকাশিত হয়েছে। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও ফলের ভিত্তিতে অনলাইনে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি নেওয়া হচ্ছে। ২০২৪-২৫ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণির ভর্তির নীতিমালা প্রকাশ করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। নীতিমালা অনুযায়ী, অনলাইনে ভর্তির আবেদন শুরু হয়েছে ২৬ মে থেকে। তিন ধাপে আবেদন চলবে আগামী ১১ জুন পর্যন্ত।