ব্রেকিং:
বিয়ের দিন বাড়িতে হাজির প্রথম স্ত্রী হাসপাতালে ভর্তি ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী ৫০ থেকে একশ শয্যায় উন্নীত হবে সব হাসপাতাল সেপটিক ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেল ২ রাজমিস্ত্রির মজুতদারি করে কারসাজি করলে কঠোর ব্যবস্থা ইঞ্জিনে ওভার হিট, মহাখালীতে প্রাইভেটকারে আগুন ১৫ লাখ টাকার মালামাল লুট ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ফিরে পেলেন ট্রাম্প অবশেষে ঝুঁকিপূর্ণ তিন রাস্তার সংযোগস্থলে গতিরোধক স্থাপন বাঙালি বিশ্ব মোড়লদের ধার ধারে না: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী যেসব কারণে ব্যাপক চাপ থাকবে সড়কে সুপ্রিম কোর্টের আদেশে সরকারের কোটা সংক্রান্ত পরিপত্র বলবৎ হয়েছে পানি নিষ্কাশনে ডিএনসিসির ৫ হাজার পরিচ্ছন্নতা কর্মী কাজ করছে সময় টিভির সাংবাদিকদের উপর কোটা বিরোধীদের হামলা প্রধানমন্ত্রীর অন্তর্ভুক্তিমূলক সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি গাজায় ‘যুদ্ধাবসানের সময় এসেছে’: বাইডেন ন্যাটো-রাশিয়াকে সংঘাতের ব্যাপারে সতর্ক করলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রাজধানীসহ সারাদেশে ভারী বৃষ্টি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুতে ইতিবাচক মিয়ানমার চীনা গণমাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর চীন সফর
  • রোববার ১৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩০ ১৪৩১

  • || ০৬ মুহররম ১৪৪৬

চাঁদপুরে মাদক কারবারির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১০ জুলাই ২০২৪  

চাঁদপুরে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের মামলায় মো. জসিম (২৮) যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) বিকেলে চাঁদপুরের জ্যেষ্ঠ জেলা ও দায়রা জজ মো. মহসিনুল হক এ রায় দেন। এ সময় আদালতে আসামি উপস্থিত ছিলেন না।

কারাদণ্ডপ্রাপ্ত জসিম কক্সবাজার জেলার টেকনাফ থানার ২ নম্বর হ্নিলা ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের পূর্ব পালখালি এলাকার মৃত বশির আহমদের ছেলে।

মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ২০২৩ সালের ১ এপ্রিল চাঁদপুর শহরের বড় স্টেশন সুন্দরবন আবাসিক হোটেলে অভিযান চালায় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)-১১। এ সময় ১৭ হাজার ৬০০টি ইয়াবা ট্যাবলেটসহ মাদক কারবারি জসিমকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় চাঁদপুর সদর মডেল থানায় জসিমের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়। মামলাটি তদন্ত করেন থানাটির উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আকরামুল হক। তিনি তদন্ত শেষে ২০২৩ সালের ২৩ মে আদালতে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেন।

সরকার পক্ষের আইনজীবী সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) রণজিৎ রায় চৌধুরী বলেন, মামলাটি চলমান অবস্থায় আদালত সাতজনের সাক্ষ্য ও শুনানিতে আসামির বিরুদ্ধে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় এ রায় দেন আদালত।

আসামিপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট ফারজানা আক্তার।