ব্রেকিং:
দুর্ঘটনা রোধে নতুন প্রযুক্তি উদ্ভাবন শিক্ষার্থীদের রিফাতকে হারিয়ে স্বজনদের আর্তনাদ কুমিল্লায় ফের অস্থির পেঁয়াজের দর জেএসসি’র প্রবেশপত্রে ভুল সংশোধন ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত এবার আঙুলের রিং হবে স্মার্ট! যে মাছ দেখামাত্র মেরে ফেলার পরামর্শ! শ্বশুরকে বিষ দিয়ে হত্যা করল বড় বউ! রাজীবের সঙ্গে ভাইরাল ভিডিও নিয়ে যা বললেন মেহজাবিন একটি মিষ্টি কুমড়ার ওজন ৯৮৬ কেজি! বিসিবিতে ক্ষুব্ধ ক্রিকেটাররা! সর্বদলীয় মুসলিম ঐক্য পরিষদের দাবি মেনে নিল প্রশাসন আশ্রয়ণ প্রকল্পের নতুন ঘর পেলো তিনশ’ গৃহহীন পরিবার হা’মলা থেকে রক্ষায় মন্দিরের নিরাপত্তায় মাদ্রাসাছাত্ররা স্বাবলম্বী হতে গিয়ে ৬৯ বছরে বিয়ে, বাবা হলেন ৭১-এ পাঠাগার আছে,পাঠক কই? শিক্ষার্থীদের নির্যাতনের সময় বাজানো হয় গান কুবির প্রথম সমাবর্তন ২৭শে জানুয়ারি সূর্যের আলো ও পানি দিয়ে গ্যাস-বিদ্যুৎ উপাদান অল্পের জন্য রক্ষা পেলো ইন্টার মিলান পরিকল্পিতভাবে দাঙ্গা সৃষ্টিতে জামায়াত শিবিরের চক্রান্ত!

মঙ্গলবার   ২২ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৬ ১৪২৬   ২২ সফর ১৪৪১

কুমিল্লার ধ্বনি
১০৬

চান্দিনায় অর্ধ বার্ষিক পরীক্ষায় অতিরিক্ত ফি আদায়

প্রকাশিত: ২৪ জুন ২০১৯  

কুমিল্লার চান্দিনার কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে অর্ধ বার্ষিক পরীক্ষায় অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ উঠেছে।

রোববার সকালে এসব বিদ্যালয়গুলোতে গিয়ে স্বাভাবিকের চেয়ে অতিরিক্ত ফি আদায়ের চিত্র দেখা গেছে।

ডা. ফিরোজা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম থেকে দশম শ্রেণিতে পরীক্ষার ফি ৫০০ টাকা নেয়া হচ্ছে। এছাড়া ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণিতে নেয়া হচ্ছে ৪০০ টাকা ফি। এসব ফি নিচ্ছেন শিক্ষকরা।

চান্দিনা সরকারি মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সব শ্রেণিতে ৪০০ টাকা ফি নেয়া হচ্ছে।

পৌর এলাকার হারং উচ্চ বিদ্যালয় ও বড়গোবিন্দপুর আলী মিয়া ভূঁইয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণিতে ৩৫০ টাকা নেয়া হচ্ছে। এছাড়া নবম ও দশম শ্রেণিতে ৪০০ টাকা ফি নেয়া হচ্ছে।

উপজেলার অম্বরপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে নবম-দশম শ্রেণিতে ৪০০ টাকা, অষ্টম শ্রেণিতে ৩৫০, ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণিতে ৩০০ টাকা ফি নেয়া হচ্ছে।  

এ ব্যাপারে বড়গোবিন্দপুর আলী মিয়া ভূঁইয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা জাহানারা নাছরিন বলেন, এ বছর বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের সভায় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৫০ টাকা বাড়ানো হয়েছে।

চান্দিনা সরকারি মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ এমদাদুল হক বলেন,  এ বছর শুধু ষষ্ঠ থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত ৫০ টাকা পরীক্ষার ফি বাড়ানো হয়েছে। আমাদের ২৭ জন খন্ডকালীন শিক্ষক রয়েছেন। তাদের বেতন দিতে হয়। এছাড়া শিক্ষার্থীদের বেতন কমানো হয়েছে। খাতা-কাগজ, প্রশ্ন তৈরি, ছাপানোর ব্যয় বেড়েছে।

চান্দিনা ডা. ফিরোজা পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা সুমিতা দাস জানান, এ বছর কাগজের দাম বেড়েছে। আমাদের প্রতিষ্ঠানের মাল্টিমিডিয়াসহ অন্যান্য খরচের ব্যাপার রয়েছে। আর এ ফি গত বছর থেকেই নেয়া হচ্ছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বলেন, পরীক্ষার ফি সম্পর্কে প্রতিষ্ঠানগুলো আমাদের কিছুই জানায় না। খোঁজ নিয়ে পদক্ষেপ নেয়া হবে।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর