ব্রেকিং:
ফসলের ফলন বাড়ছে তরল সার উদ্ভাবনে প্রাণ ফিরেছে পর্যটনে, জমজমাট হোটেল ব্যবসা দুর্গম চরে আশার আলো ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ১০৯১ গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার অক্সিজেনের ন্যূনতম মূল্য ১০০-১২০ টাকা টিকা দেওয়ার ছক প্রস্তুত উন্নয়ন দেখতে বাংলাদেশে আসতে চান বেলজিয়ামের রাজা ফিলিপ মহাকাশ চর্চার যুগে প্রবেশ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ শিক্ষার্থীদের বাসায় রাখা নিশ্চিত করবেন প্রতিষ্ঠান প্রধানরা নতুন ৬ মেডিকেল কলেজের মাস্টারপ্ল্যান শরীয়তপুরে ধর্ষণ মামলার মীমাংসা করতে ডেকে নিয়ে ফের গণধর্ষণ সরকারি স্কুলে ২০ জানুয়ারির মধ্যে ভর্তির নির্দেশ বিএসএফের আমন্ত্রণে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষের অনুষ্ঠানে বিজিবি ৭০০০ অ্যাম্বুল্যান্স মালিক যুক্ত হয়েছেন ৯৯৯ জরুরি সেবায় হোয়াইট হাউজের শীর্ষ পদে বাংলাদেশের জায়ান স্বাভাবিক জীবনে ৯ জঙ্গি আবিদা বলল, ভুল পথে ছিলাম বিশ্বজুড়ে করোনায় ২০ লাখের বেশি মানুষের মৃত্যু রাজনীতি ছেড়ে দেব এমপি বাহার,কিন্তু কেন ?? রিকশা বিক্রির টাকায় কুরআন বিতরণ করলেন তারা মিয়া কুমিল্লায় কীটনাশক পানে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা
  • শনিবার   ১৬ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ৩ ১৪২৭

  • || ০১ জমাদিউস সানি ১৪৪২

১৪৫

জামায়াত-শিবির আর জঙ্গিতে পূর্ণ হেফাজতের কমিটি

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ২২ ডিসেম্বর ২০২০  

হেফাজতের নবগঠিত কমিটিতে বেশ ক'জন জামায়াত-শিবিরের সাবেক নেতা, জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে ঘনিষ্ঠরাও আছে। তাদের মধ্যে অন্যতম ইসলামী ছাত্র শিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি আহমদ আবদুল কাদের। এছাড়া জঙ্গি সংগঠন হুজি ও লস্কর-ই-তৈয়্যবা ঘনিষ্ঠতার অভিযোগে একাধিকবার গ্রেপ্তার হওয়া বেশ কজনও রয়েছেন কমিটিতে। অনেকেই নতুন এই কমিটিতে তিক্ততা প্রকাশ করে বলছেন- এ যেন নতুন বোতলে পুরোনো মদ!

গত ১৫ নভেম্বর (রবিবার) কওমি মাদ্রাসাভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের ১৫১ সদস্যের কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষণা করা হয়। যা হেফাজতের আরেকটি অংশ মানছে না। বিতর্কিত এই ব্যক্তিদের কমিটিতে রাখা সংগঠনের আদর্শবিরোধী বলছেন হেফাজতের সাবেক নেতারা।

হেফাজতে ইসলামের আমির শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুর পর ধর্মভিত্তিক বড় এই সংগঠনটির নিয়ন্ত্রণ নিতে বিএনপি-জামায়াতপন্থি অংশের নেতারা দৌড়ঝাঁপ শুরু করেছেন। তারা শফীপন্থিদের বাদ দেওয়ার পাঁয়তারা করছেন। হেফাজতের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের জন্য ১৮ সদস্যের কাউন্সিল বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটিতে থাকা বিএনপি-জামায়াতপন্থিরা নানামুখী তৎপরতা শুরু করেছে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাজনীতি সচেতনরা।

তথ্যসূত্রে জানা যায়, জামায়াতে ইসলামের সাথে সংশ্লিষ্ট নিম্নোক্ত ব্যক্তিবর্গ হেফাজতে ইসলামের বিতর্কিত এই কমিটিতে আছেন-

সালাউদ্দিন আইয়ুবি, যিনি ছিলেন শিবিরের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। আব্দুল আলিম, শিবিরের সাংস্কৃতিক সম্পাদক। হাবিবুল্লাহ আজাদী, জামায়াতের রুকন। জুনায়েদ বাবুনগরীর মামাতো বোনের স্বামী অ্যাডভোকেট নেজাম উদ্দিন, চট্টগ্রাম নগর জামায়াতের সাবেক আইনবিষয়ক সম্পাদক। আহমদ আবদুল কাদের, যিনি ১৯৮২ সালে ইসলামী ছাত্র শিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ছিলেন।

সংগঠনের বর্তমান মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরীর নেতৃত্বে ১৮ সদস্যের যে কাউন্সিল বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করা হয়েছে, সেখানে অনেকেই সরাসরি বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে সংশ্নিষ্ট। কেউ কেউ জামায়াত নেতাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করে চলেন। নতুন কমিটি গঠনকে সামনে রেখে প্রায় প্রতিদিনই বিএনপি-জামায়াতের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত হেফাজতের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, মাওলানা মীর ইদ্রিস, মাওলানা জাকারিয়া নোমান ফয়জী, মাওলানা নাসির উদ্দিন মুনির, মাওলানা জাফর আলম নিয়মিত গোপন বৈঠক করে কমিটির তালিকা তৈরি করছেন।

এই কমিটির মাধ্যমেই বাবুনগরী এবং জামায়াতের এজেন্ডা খুবই স্পষ্ট রূপে প্রতীয়মান হয়।  আর তা হলো- দেশকে আবার অস্থিতিশীল পরিবেশের দিকে ঠেলে দেয়া।

কুমিল্লার ধ্বনি
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর