ব্রেকিং:
মিয়ানমারের উপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা পর্যাপ্ত নয়: জাতিসংঘ বদলি খেলোয়াড় নামানোর নতুন নিয়ম চালু আইসিসির বাংলাদেশ-ভারত-ভুটান বাণিজ্যে নবযাত্রার সূচনা জাতীয় মৎস্য পুরস্কারে স্বর্ণপদক পেল নৌবাহিনী ওষুধের পাতায় মেয়াদ-মূল্য স্পষ্ট থাকতে হবে: হাইকোর্ট জিম্বাবুয়েকে বহিষ্কার করল আইসিসি রোহিঙ্গা নির্যাতন: আইসিসি’র অনুমতি পেলে তদন্তে নামবে দল ক্রিকইনফোর একাদশেও সাকিব, নেই কোহলি রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের উদ্বেগ রিফাত হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে মিন্নি জেলা হাসপাতালগুলো দালালমুক্ত করার নির্দেশ জঙ্গি-চরমপন্থীদের আবির্ভাব যেন না হয়: ডিসিদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাছ উৎপাদনে আমরা প্রথম হতে চাই: প্রধানমন্ত্রী নয়ন বন্ডের ঘনিষ্ঠ রিশান ফরাজী গ্রেফতার ক্রাইস্টচার্চে নিহতদের স্বজনদের হজ করাবে সৌদি কঙ্গোতে ইবোলা সংক্রমণ: ‘বৈশ্বিক জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা মাটির নিচে মিলল অনন্ত জলিলের ২০ লাখ টাকা (ভিডিও) রিফাত হত্যায় মিন্নি জড়িত থাকার ভয়ংকর তথ্য জানালেন তদন্ত কর্মকর্তা বাংলাদেশে খাদ্য-নিরাপত্তা বেড়েছে পাসের হারে সারা দেশে কুমিল্লা বোর্ড প্রথম

শনিবার   ২০ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ৪ ১৪২৬   ১৭ জ্বিলকদ ১৪৪০

কুমিল্লার ধ্বনি
১০০২

জুয়া খেলে সর্বস্বান্ত হয়ে নিজের সন্তান বিক্রি করল পিতা!!

প্রকাশিত: ২ এপ্রিল ২০১৯  

কুমিল্লার দেবিদ্বারে মো. সেলিম মিয়া নামক এক বাবার বিরুদ্ধে, ২,৫৫০০০ টাকায় পাঁচ মাসের শিশুকে বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার জাফরগঞ্জ ইউপির বারুর গ্রামের মুন্সি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। শিশুটির নাম ইয়াছিন।
শিশুর মা বিলকিস বেগম বলেন, একটি মাইক্রোবাসে কয়েকজন আমার কোল থেকে শিশুকে ছিনিয়ে নিতে চেষ্টা করে। তাকে দিতে না চাইলে স্বামী মারধর করেন। এক পর্যায়ে তারা সন্তানকে ছিনিয়ে নিয়ে যায়। তার বাবা চরবাকর গ্রামের নুরুল ইসলামের মাধ্যমে, নিজ ছেলেকে বিক্রি করেছে বলে খবর পেয়েছি। সে জুয়া খেলে সর্বস্বান্ত হয়েছে। এখন ছেলেকে বিক্রি করেছে। আমার সন্তান কোথায় আছে জানি না। তাকে ফেরত চাই।
অভিযুক্ত স্বামী সেলিম মিয়া বলেন, ২২ বছর আগে বিয়ে করি। স্ত্রী ও পাঁচ ছেলে এবং এক মেয়ে নিয়ে অভাবে দিন কাটছে। তাই কুমিল্লার এক নিঃসন্তান পরিবারে ছেলেকে দত্তক দিয়েছি। এর বিনিময়ে টাকা পয়সা নেইনি। সন্তান ভাল থাকবে, লেখাপড়া শিখবে, মানুষের মতো মানুষ হবে।
নুরুল ইসলাম বলেন, সন্তান বিক্রয় করা হয়নি।ওই পরিবারের সম্মতি নিয়েই কুমিল্লার এক নিঃসন্তান শিক্ষক পরিবারে দত্তক দিয়েছি। তবে পরিবারের পরিচয় জানি না। যার কাছে শিশুটি দিয়েছি, তার নাম্বার নেন।
ফোন দিলে শামীম নামের এক শিক্ষক বলেন, আমি নিঃসন্তান। অনেকদিন ধরে একটি সন্তান দত্তক নেব বলে খোঁজছি। ছাত্রের মাধ্যমে সন্তান দত্তক নেয়ার মাধ্যম নুরুল ইসলামকে পাই। সে দুই লাখ টাকা দাবি করে। তবে আমার সামর্থ না থাকায় শিশুটিকে অন্য একটি ধনাঢ্য নিঃসন্তান পরিববারকে দেই।
তিনি বলেন, ১৬ মার্চ এসে বাচ্চা দেখে পছন্দ করেন অন্য নিঃসন্তান পরিবার। ২৯ মার্চ ৩০০ টাকার নন জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে এ বাচ্চা আর কখনো দাবি করতে পারবে না, তার খোঁজখবরও নিতে পারবে না শর্তে, তিনজন সাক্ষীর স্বাক্ষর নিয়ে ২ লাখ ৫৫ হাজার টাকা দিয়ে বাচ্চা নেয়া হয়।
তিনি আরো বলেন, বাচ্চা গ্রহীতার নাম মঞ্জু, তিনি চট্টগ্রামে অডিটর হিসেবে কর্মরত আছেন। বাচ্চাটি ভালো থাকবে। তিনি বিশাল সম্পদের মালিক। বড় হলে শিশুটি সবকিছুর মালিক হবে। স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল কালাম আজাদ জানান, বিষয়টি শুনেছি। সবার সঙ্গে যোগাযোগ করে বাচ্চাটিকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করব। দেবিদ্বার ইউএনও রবীন্দ্র চাকমা বলেন, এ বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেনি। যেহেতু বিষয়টি শুনেছি, তদন্ত করে বাচ্চা উদ্ধারসহ আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর