ব্রেকিং:
মাস্কের টুইটে উত্তাল ভারতের রাজনীতি চার মাসে বিদেশে চাকরি কমেছে ২০ শতাংশ রাজধানীর বড় বড় হাসপাতাল যেন ‘বাতির নিচে অন্ধকার’ ঈদের দিন যেসব উন্নত খাবার পেলেন কারাবন্দিরা আসুন ত্যাগের মহিমায় দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করি হাসিল নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল বাজারে লঙ্কাকাণ্ড টিনের বেড়ায় বিদ্যুতের তার চাঁদপুরে অর্ধশত গ্রামে ঈদ উদযাপন স্বস্তিতে ঘরমুখো মানুষ যেভাবে গড়ে ওঠে শতবর্ষী কুমিল্লা কেন্দ্রীয় ঈদগাহ বেশি ভাড়া রাখায় উপকূল পরিবহনকে জরিমানা মিয়ানমার সীমান্তের পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকার নির্দেশ রাখাইনে বড় সংঘাতের আশঙ্কা, বাসিন্দাদের সরে যাওয়ার নির্দেশ একদিনে পদ্মাসেতুর আয় পৌনে ৫ কোটি টাকা চামড়া সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে র‌্যাবের কঠোর হুঁশিয়ারি ঈদে ট্রেনে মানুষের নির্বিঘ্নে বাড়ি যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আয়োজনে সকল রাজনৈতিক দলকে আমন্ত্রণ খাদ্যসামগ্রী ও দেড় শতাধিক মানুষ নিয়ে জাহাজ গেল সেন্ট মার্টিন কুমিল্লায় বেতন-বোনাসের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ আফজাল খান পত্নী বীর মুক্তিযোদ্ধা নার্গিস আফজালের ইন্তেকাল
  • মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৪ ১৪৩১

  • || ১০ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

জ্যেষ্ঠতা ফেরত দেয়ার দাবিতে কুবি শিক্ষকের অবস্থান কর্মসূচি

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ৬ জুন ২০২৪  

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা শিক্ষা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোসা. শাহীনুর বেগম তার জ্যেষ্ঠতা ফিরিয়ে দেয়ার দাবিতে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে।
এই অবস্থান কর্মসূচি চলাকালে শিক্ষক সমিতির নেতাকর্মীদের পাশাপাশি শাহীনুর বেগমের সাথে দাঁড়িয়েছেন একই বোর্ডে পদোন্নতি পেয়ে সহযোগী অধ্যাপক হওয়া সাহেদুর রহমানও।
বুধবার (৫ জুন) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে প্রশাসনিক ভবনের সামনে 'অন্যায়ের হোক বলিষ্ঠ প্রতিবাদ', 'শাহীনুর বেগমের সিনিয়রিটি ফিরিয়ে দেওয়া হোক', 'সিনিয়র কিভাবে জুনিয়র হলো, কর্তৃপক্ষ জবাব চাই' সম্বলিত প্লে-কার্ড হাতে শিক্ষকদের দাড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।
এ ব্যাপারে মোসা. শাহীনুর বেগম বলেন, 'আমার দুইজন সহকর্মীকে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছে। আমার কিউ ওয়ান জার্নালে আর্টিকেল থাকা সত্ত্বেও আমাকে দেওয়া হয়নি। আমার পিএইচডি হয়ে গিয়েছিল, তখন সনদ পাইনি এবং কিছু ফরমালিটিজ বাকি ছিল। আমাকে দেওয়া হয়নি এর কারণ জিজ্ঞেস করলে বলে যে বোর্ড দেয়নি। তারা একটা অযৌক্তিক কারণ দেখিয়েছে কেননা বিশ্ববিদ্যালয়ের যে নীতিমালা অনুযায়ী পদোন্নতি দেওয়া হয় সে অনুযায়ী আমি যোগ্য। পরে পুনর্বিবেচনার আবেদন করলেও এখনো কোনো সিদ্ধান্ত আসেনি। ন্যায্য দাবি আদায়ে আমি এখানে দাড়িয়েছি, আমার যে সিনিয়রিটি কেড়ে নেওয়া হয়েছে তা যেন প্রশাসন দ্রুত ফিরিয়ে দেয় সেজন্য দাড়িয়েছি।'
যোগ্যতা থাকা সত্ত্বেও শাহীনুর বেগম পদোন্নতি পায়নি কিন্তু একই বোর্ডে সহযোগী পদে পদোন্নতি পেয়ে সিনিয়র হওয়া সাহেদুর রহমান অবস্থান কর্মসূচিতে দাঁড়ানোর ব্যাপারে বলেন, 'কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের পদন্নোতির নিয়ম অনুযায়ী সে আবেদন করেছে। বোর্ড দুইজনকে দিয়েছে, তাকে দেয়নি। তাকে দেয়নি এর ফলে সহমর্মিতা জানিয়ে আমি তার পাশে দাড়িয়েছি। এক্ষেত্রে বোর্ড বা সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত কী হয়েছে সেটা বলার এখতিয়ার আমার নাই।'