ব্রেকিং:
রামগঞ্জে শাশুড়িকে শ্বাসরোধে হত্যা, ছেলের বউ আটক পিকআপের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুতের নারী কর্মী নিহত ছেলেদের ঘরের মেঝেতে রক্তের দাগ, মিলল অস্ত্র-রক্তমাখা কাপড় আশুগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা সুরক্ষা সরঞ্জাম প্রদান সাবেক ভিপি নূরের বিরুদ্ধে দেবিদ্বারেও মামলা করোনা রোধে পোশাক কারখানার নতুন কৌশল বাড়ির কাছে পৌঁছে যাচ্ছে করোনার নমুনা সংগ্রহের গাড়ি করোনার মধ্যেই বাংলাদেশে উন্নতির লক্ষণ দেখছে বিশ্বব্যাংক লকডাউনেও মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ও দুগ্ধজাত পণ্যের ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় বিকাশে টাকা পাবে সাড়ে ১০ লাখ পরিবার করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু বেড়েছে অন্ধকারে সুবর্ণচর উপজেলা,বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাওয়ের হুমকি ৮ শতাধিক শতাধিক গরীব ও দুস্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ মোবাইলে অন্যজনের সঙ্গে প্রবাসীর স্ত্রী কথা, অতঃপর... ইস্টার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা ইউনিট উদ্বোধন কন্যা শিশুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার লালমাই স্ত্রী নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল স্ত্রী-কন্যার সামনে স্কুল শিক্ষককে লাঞ্ছনা দরিদ্রদের ইফতার সামগ্রী উপহার দিলেন এএসপি সোনাগাজীতে মানববন্ধনে সন্ত্রাসী হামলা
  • শুক্রবার   ২৩ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ১০ ১৪২৮

  • || ১০ রমজান ১৪৪২

ট্রেন থেকে ছিটকে পড়লেন ছিনতাইয়ের শিকার মা

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ছয় বছরের সন্তানকে নিয়ে ভৈরব রেল স্টেশন থেকে ট্রেনের যাত্রী হন এক নারী। চার মিনিট পর ট্রেনটি স্টেশন ছেড়ে যায়। সন্তান নিয়ে ভীড় ঠেলে তখনো ওই নারী বগির ভেতরে পৌঁছাতে পারেনি। তার হাতে ছিল একটি ব্যাগ। প্ল্যাটফরম থেকে ট্রেনটি ১০০ গজ সামনে যেতেই ব্যাগটি ধরে এক ছিনতাইকারী টান দেয়, চলন্ত ট্রেন থেকে নারী ছিটকে লাইনের পাশে পড়ে যান। 

যাত্রীরা জানান, মা ছিটকে পড়লেও শিশুটি ট্রেনের ভেতরেই ছিল। মুমূর্ষু অবস্থায় ওই নারীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায় স্থানীয়রা। আর শিশুটি বিমানবন্দর রেলওয়ে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় নারীকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহত নারীর বয়স ৪৫ থেকে ৫০ বছর হতে পারে।

বিমানবন্দর পুলিশকে শিশুটি জানিয়েছে তার নাম মিরাজ। বাবা মিলন মিয়া। বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার চান্দুপুর গ্রামে। নিজের ও বাবার নাম বলতে পারলেও শিশুটি মায়ের নাম বলতে পারেনি। 

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের একজন ভৈরবের হানিফ নামে এক তরুণ বলেন, ট্রেনটি তখন ধীর গতিতেই চলছিল, একজন ছিনতাইকারী ব্যাগটি ধরে টান দিতেই ওই নারী ট্রেন থেকে ছিটকে নিচে পড়ে যায়। পরে আমরা শিশুটিকে সঙ্গে রাখি। রেললাইনের পাশে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় কয়েকজন আহত নারীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পর্যন্ত নিয়ে যায়। 

শহীদুল আলম সুমন একজন জানান, লাইন থেকে অন্তত দুই গজ দূরে পড়ে ছিল ওই নারী। তখন তার জ্ঞান ছিল না। পরে আমরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাই। 

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়ার পর প্রাথমিক চিকিৎসা দেন জরুরি বিভাগের চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল নোমান ভূইয়া। তিনি বলেন, ওই নারী মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছে। ভেতরে রক্তক্ষরণ হচ্ছিল এবং বমিও করেছে। সব মিলিয়ে আহত নারীর অবস্থা আশঙ্কাজনক।

ভৈরব রেলওয়ে থানার ওসি ফেরদৌস আহমেদ বিশ্বাস বলেন, আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পারি শিশুটি এখন বিমানবন্দর পুলিশ হেফাজতে রয়েছে। আহত নারীর নামটি এখনও জানা যায়নি। পুলিশ ছিনতাইকারীকে ধরতে মাঠে নেমেছে।