ব্রেকিং:
মিয়ানমারের উপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা পর্যাপ্ত নয়: জাতিসংঘ বদলি খেলোয়াড় নামানোর নতুন নিয়ম চালু আইসিসির বাংলাদেশ-ভারত-ভুটান বাণিজ্যে নবযাত্রার সূচনা জাতীয় মৎস্য পুরস্কারে স্বর্ণপদক পেল নৌবাহিনী ওষুধের পাতায় মেয়াদ-মূল্য স্পষ্ট থাকতে হবে: হাইকোর্ট জিম্বাবুয়েকে বহিষ্কার করল আইসিসি রোহিঙ্গা নির্যাতন: আইসিসি’র অনুমতি পেলে তদন্তে নামবে দল ক্রিকইনফোর একাদশেও সাকিব, নেই কোহলি রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের উদ্বেগ রিফাত হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে মিন্নি জেলা হাসপাতালগুলো দালালমুক্ত করার নির্দেশ জঙ্গি-চরমপন্থীদের আবির্ভাব যেন না হয়: ডিসিদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাছ উৎপাদনে আমরা প্রথম হতে চাই: প্রধানমন্ত্রী নয়ন বন্ডের ঘনিষ্ঠ রিশান ফরাজী গ্রেফতার ক্রাইস্টচার্চে নিহতদের স্বজনদের হজ করাবে সৌদি কঙ্গোতে ইবোলা সংক্রমণ: ‘বৈশ্বিক জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা মাটির নিচে মিলল অনন্ত জলিলের ২০ লাখ টাকা (ভিডিও) রিফাত হত্যায় মিন্নি জড়িত থাকার ভয়ংকর তথ্য জানালেন তদন্ত কর্মকর্তা বাংলাদেশে খাদ্য-নিরাপত্তা বেড়েছে পাসের হারে সারা দেশে কুমিল্লা বোর্ড প্রথম

শনিবার   ২০ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ৪ ১৪২৬   ১৭ জ্বিলকদ ১৪৪০

কুমিল্লার ধ্বনি
২৪৪

দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশেও যাচ্ছে কুমিল্লার বাটিক কাপড়

প্রকাশিত: ৫ মে ২০১৯  

কুমিল্লার বেশ কয়েকটি গ্রামে যুগ যুগ ধরে তৈরি হচ্ছে বাটিক কাপড়। ঐতিহ্যের ধারাবাহিতা বজায় রাখা আর ক্রেতাদের চাহিদার কথা ভেবে সুতি কাপড়ে মোম ব্যবহার করে নিত্য নতুন ডিজাইন ফুটিয়ে তুলছেন স্থানীয় কারিগররা।
স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন জেলাতে সরবরাহের পাশাপাশি দেশের বাইরেও যাচ্ছে এসব কাপড়।
কুমিল্লার বাটিক ব্যবসায়ী চন্দন দেব রায় জানান, বাটিক কাপড় তৈরি হয় সম্পূর্ণ হাতে। কাঠের প্লেটে খোদাই করে নকশা তৈরি করা হয়। পরে মোমের ব্লক দিয়ে কাপড়ে ফুটিয়ে তোলা হয় হরেক রকম ডিজাইন। গুণগত মানও হয় ভালো।
‘বাংলাদেশের মধ্যে প্রতিষ্ঠিত কুমিল্লার বাটিক শিল্প, খদ্দরের পাশাপাশি বাটিক শিল্প শ্রী বৃদ্ধি পাচ্ছে সারা বাংলাদেশে। সরকারি সহায়তা পেলে বাটিক শিল্প বাংলাদেশেই নয় সারা বিশ্বে সমাদৃত হবে, বলেন চন্দন দেব।
তিনি আরো বলেন, কুমিল্লার সুঁতির বাটিক কাপড়ের চাহিদা রয়েছে পুরো বছর জুড়ে। আরামদায়ক এ কাপড়টির আরো প্রসার ঘটাতে প্রয়োজন সরকারি সহযোগিত। তাহলেই দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিদেশেও সুনাম কুড়াবে বাটিক।
কুমিল্লায় খদ্দর কাপড়ের পাশাপাশি বাটিক কাপড়ও জনপ্রিয় হয়ে উঠে বেশ কয়েক বছর আগ থেকেই। কালের আবর্তে খদ্দর কাপড়ের চাহিদা কিছুটা কমলেও বাটিক রয়েছে স্ব-গৌরবে।
জেলার সদর উপজেলার কমলপুর ও সদর দক্ষিণ উপজেলার গলিয়ারা গ্রামে বাটিক কাপড় তৈরি হচ্ছে স্বাধীনতার বহু আগ থেকে। দু’টি গ্রামে ১৫টিরও বেশি বাটিক কারখানা রয়েছে। শাড়ী, থ্রী পিস, বিছানার চাদর, ওড়না, প্রিন্ট কাপড়সহ হরেক রকম কাপড় তৈরি হয় গ্রামটিতে।
বাটিক কারিগর রাসেল হোসেন বলেন, বাটিক কাপড়ের চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় এর বিপুল চাহিদা রয়েছে। তাই তারাও কাজে ব্যস্ত থাকছে। এতে মজুরীও ভালো মিলছে।
দক্ষিণ উপজেলার গলিয়ারা গ্রামের বাটিক কাপড় ব্যবসায়ী সিরাজুল কাদের বলেন, এখন দিনরাত চলছে কাপড় তৈরির কাজ। চাহিদা থাকায় উৎপাদনও বেশ ভালো। কারিগররাও লাভবান হচ্ছে। ভালো মজুরী পায় তারা।
সরকারি সহযোগিতা পেলে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাটিক কাপড় রপ্তানি করা যাবে বলে জানান এ ব্যবসায়ী।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর