ব্রেকিং:
সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ৮৬ শতাংশ ডেঙ্গু রোগী ১০৯ নম্বরে ফোন পেয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করেছে উপজেলা প্রশাসন স্বাধীনতা বিরোধীরা এখনো ষড়যন্ত্র করছে: আইনমন্ত্রী কর্মসৃজন প্রকল্পে দুর্নীতি, ২১ জেলায় দুদকের অভিযান ৯৯৯ এ ফোন করে উদ্ধার হলেন ২০০ লঞ্চ যাত্রী পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি পশু কোরবানি বাংলাদেশে বন্যাদুর্গতদের পুনর্বাসনে রয়েছে ১২০ কোটি টাকা বরাদ্দ ঘুষদাতার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী হুজুর সেজে ধর্ষককে ধরলেন পুলিশ কর্মকর্তা বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড তদন্তে কমিশন গঠনের দাবি তথ্যমন্ত্রীর ডেঙ্গুর বিস্তার রোধে জনসচেতনতা জরুরি বিয়ের অনুষ্ঠানে বোমা হামলা, নিহত বেড়ে ৬৩ ইন্দোনেশিয়া ও ফিলিপাইনের রমণীদের পছন্দ বাংলাদেশি ছেলে রোহিঙ্গা নির্যাতন তদন্তে ঢাকায় মিয়ানমারের তদন্ত দল টাইগারদের হেড কোচ হলেন রাসেল ডমিঙ্গো ‘চিকিৎসকদের উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশে পাঠানো হবে’ ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ড ছিল মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে কুমিল্লায় র‌্যাবের অভিযানসাড়ে ৫০০ ইয়াবাসহমাদক ব্যবসায়ী আটক স্মার্টকার্ড পাবে ছয় বছরের শিশুও! ডেঙ্গু আক্রান্তদের ৮৪ শতাংশ সুস্থ হয়ে ফিরেছেন

সোমবার   ১৯ আগস্ট ২০১৯   ভাদ্র ৩ ১৪২৬   ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

কুমিল্লার ধ্বনি
৯৫৮

নবজাতক কোলে নিয়ে ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে!

প্রকাশিত: ১১ জুলাই ২০১৯  

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে পিতৃহীন ৬ দিনের নবজাতক সন্তানকে কোলে নিয়েই বিয়ের পিঁড়িতে বসেছেন এক প্রসূতি নারী। 

মঙ্গলবার রাতে উপজেলা অডিটরিয়ামে সরকারি কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে এ বিয়ে হয়।  বর প্রবাসে থাকায় টেলিফোনের মাধ্যেমে করা হয়েছে সব আনুষ্ঠানিকতা।

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এ নারীকে টানা ধর্ষণের কারনে গর্ভবতী হন তিনি। এরপর সামাজিক চাপে বিদেশে পালিয়ে যান ধর্ষক।  গত শুক্রবার একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন ওই নারী। এ অবস্থায় উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ের মাধ্যেমে নবজাতক কন্যা ফিরে পায় তার পিতার পরিচয়। 

জানা যায়, গেল বছর ভোলাবো এলাকার সালাউদ্দিন ভূঁইয়ার ছেলে মোবারক হোসেন একই এলাকার নাঈম মিয়ার বুদ্ধি প্রতিবন্ধী মেয়ে নাদিয়া আক্তারকে ফুসলিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে এ ঘটনা কাউকে প্রকাশ করলে ভয়ভীতি দেখান। পরে একই কায়দায় ধষর্ণ করে যান তিনি।এক পর্যায়ে গর্ভবতী হয়ে পড়েন নাদিয়া। পরে নাদিয়ার কাছে বিস্তারিত জেনে তার পরিবার মোবারককে বিয়ের প্রস্তাব দিলে তিনি নাকচ করে দেন।  গত শুক্রবার একটি কন্যা শিশুর জন্ম দেন নাদিয়া। পরে স্থানীয়দের বিচারের আশায় ৫দিন ঘুরেও বিষয়টির উপযুক্ত কোনো সমাধান করতে না পেয়ে মেয়েটির পরিবার ইউএনও মমতাজ বেগমের কাছে বিচার দাবি করেন। ইউএনও বিষয়টিতে কঠোর অবস্থান নিয়ে ছেলের অপকর্মের কথা জানিয়ে মেয়েটিকে বিয়ে করার কথা বললে উভয় পরিবার বিষয়টি মেনে নেয়। মঙ্গলবার রাতে উভয় পরিবারের সম্মতিক্রমে ১০ লাখ টাকা কাবিন ও নবজাতকের নামে ২ শতক জমি লিখে দেয়ার চুক্তিতে প্রবাসী মোবারকের সঙ্গে ভিডিও কলে নাদিয়ার বিয়ে হয়।

বিয়ের শাড়ী, কাবিনের ফি ও বিভিন্ন খরচাদী ইউএনও নিজেই বহন করেন। বিষয়টির সুষ্ঠ ও সামাজিকভাবে সমাধান হওয়ায় স্থানীয়রা সন্তুষ্টি প্রকাশ করে।

বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ওমর ফারুক ভূঁইয়া, ভোলাব ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন টিটু, ইউপি আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাসান আশকারী, কাজী আব্দুল মতিনসহ ভোলাব এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর