ব্রেকিং:
দাউদকান্দি শিশু ধর্ষণের অভিযোগ অপ্রতিরোধ্য বসুন্ধরা কুমিল্লায় নির্বিচারে শিশুশ্রম কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অচেতন করে ব্যাংক লুট বাঞ্ছারামপুর থানা থেকে লোক ছাড়াতে নেতা নিলেন দেড় লাখ টাকা! পদুয়ার বাজারে ফুটপাত ও সড়ক দখলমুক্ত করতে উচ্ছেদ অভিযান বিডিআর বিদ্রোহ:অভিযুক্তদের পক্ষে কেন আইনি লড়াই করে বিএনপি? বিএনপি-জামায়াতের ষড়যন্ত্রের ফসল বিডিআর বিদ্রোহ একদিনে আরো পাঁচজনের মৃত্যু, শনাক্ত ৪১০ জাতীয় বিশ্ববিদ্যায়ের স্থগিত পরীক্ষাসমূহের নতুন সূচি ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রে অনিবন্ধিত বাংলাদেশিদের বৈধ করার আহ্বান মোমেনের সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪৪০০ কোটি ছাড়াল মেট্রো রেল প্রকল্পে গড় অগ্রগতি ৫৬.৯৪% দেশে হচ্ছে আরও সাত নভোথিয়েটার আসছে তাৎক্ষণিকভাবে ভোটার হওয়ার সুযোগ শঙ্কা কেটে পুনরুদ্ধারের পথে অর্থনীতি করোনা নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশ বিশ্বে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপণ করেছে শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশের ভূয়সী প্রশংসায় যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধুর দুর্নীতিবিরোধী ভাষণ দূরদর্শিতার প্রমাণ
  • শুক্রবার   ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৪ ১৪২৭

  • || ১৩ রজব ১৪৪২

নারীর গোসলখানায় সিসি ক্যামরা

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

হাজীগঞ্জে নারীর গোসলখানা  বরাবর সিসি ক্যামরা স্থাপনকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে হাজীগঞ্জ থানা পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

ঘটনাটি মঙ্গলবার বিকালে হাজীগঞ্জ পৌরসভার  ৮নং ওয়ার্ড টোরাগড় পাইলট স্কুল এন্ড কলেজের পেছনে কাজী ও সরকার বাড়ীতে ঘটেছে।

ঘটনার বিবরণে জানা যায়, কাজী বাড়ীর নুরু কাজীর মেয়ে সালমা আক্তার (২৫) মঙ্গলবার দুপুরে তাদের ঘরের সামনে কলের গোড়ায় গোসল করতে যায়। তাদের চার পাশে বাউন্ডারি বেড়ার কারনে কলের চার পাশে তেমন কোন পর্দা দেওয়া হয়নি। নুরু কাজীর মেয়ে সালমা গোসলখানা থেকে পাশ্ববর্তী সরকার বাড়ীর জলিল সরকারের ঘরে চোঁখ পড়ে। কাছে গিয়ে দেখে দুইটা সিসি ক্যামরা লাগানো। এ দৃশ্য দেখে সালমা আক্তার ডাক চিৎকার করলে উভয় ঘরের লোকজনসহ সাধারন মানুষ জড়ো হয়।

এক পর্যায়ে নুরু কাজী পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল এসে কারন জানার পরেও জলিল  ও তার দুই ছেলে রায়হান ও সৈকতকে নির্দেশ দেয় সিসি ক্যামরা খুলে ফেলতে।

পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে যাওয়ার পর পরই উভয় পরিবারের নারী পুরুষ মারামারিতে লিপ্ত হয়। এতে করে উভয় পরিবারের প্রায় ১০ জন আহত হয়েছে বলে জানাযায়।

আহতরা হলেন, নুরু কাজীর মেয়ে সালমা, মামুন, জুয়েল, টুটুল, শাকিব ও আনু এবং প্রতিপক্ষ জলিল সরকারের মেয়ে দিপা,রত্নাসহ ১০ জন।

 নুরু কাজী বলেন, আমার সীমানায় বহুতল ভবনের কাজ চলমান থাকায় ঘরের বাহিরে টিউবলের কাছে আমার মেয়ে গোসল করতে হয়। জলিল সরকারের  ছেলে রায়হান ও সৈকত সরকার তাদের বসতঘর থেকে সিসি ক্যামরা আমাদের গোসলখানা বরাবর কি কারনে লাগিয়েছে তার জন্য আমরা বিচার চাই।

এ বিষয়ে প্রতিপক্ষ  জলিল সরকার বলেন, তাদের ঘরে নাকি রাতের বেলায় কে বা কারা ঢুকে টিন নষ্ট করে যে কারনে আমরা দোষারাপ থেকে বাঁচতে সিসি ক্যামরা লাগিয়ে ছিলাম।

কুমিল্লার ধ্বনি