ব্রেকিং:
রামগঞ্জে শাশুড়িকে শ্বাসরোধে হত্যা, ছেলের বউ আটক পিকআপের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুতের নারী কর্মী নিহত ছেলেদের ঘরের মেঝেতে রক্তের দাগ, মিলল অস্ত্র-রক্তমাখা কাপড় আশুগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা সুরক্ষা সরঞ্জাম প্রদান সাবেক ভিপি নূরের বিরুদ্ধে দেবিদ্বারেও মামলা করোনা রোধে পোশাক কারখানার নতুন কৌশল বাড়ির কাছে পৌঁছে যাচ্ছে করোনার নমুনা সংগ্রহের গাড়ি করোনার মধ্যেই বাংলাদেশে উন্নতির লক্ষণ দেখছে বিশ্বব্যাংক লকডাউনেও মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ও দুগ্ধজাত পণ্যের ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় বিকাশে টাকা পাবে সাড়ে ১০ লাখ পরিবার করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু বেড়েছে অন্ধকারে সুবর্ণচর উপজেলা,বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাওয়ের হুমকি ৮ শতাধিক শতাধিক গরীব ও দুস্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ মোবাইলে অন্যজনের সঙ্গে প্রবাসীর স্ত্রী কথা, অতঃপর... ইস্টার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা ইউনিট উদ্বোধন কন্যা শিশুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার লালমাই স্ত্রী নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল স্ত্রী-কন্যার সামনে স্কুল শিক্ষককে লাঞ্ছনা দরিদ্রদের ইফতার সামগ্রী উপহার দিলেন এএসপি সোনাগাজীতে মানববন্ধনে সন্ত্রাসী হামলা
  • শুক্রবার   ২৩ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ১০ ১৪২৮

  • || ১০ রমজান ১৪৪২

নেশার টাকা না পেয়ে মাকে মেরেই ফেললেন পাপিয়া

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে নেশার টাকা না পেয়ে মাকে হত্যা করেছেন মেয়ে। এ ঘটনায় ঘাতক পাপিয়াকে আটক করেছে পুলিশ।

রোববার সকালে উপজেলার আইয়ুবপুর ইউনিয়নের দশানী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম রহিমা বেগম।

নিহতের স্বজনরা জানান, সকালে কাপড় সেলাই করছিলেন রহিমা। এ সময় তার কাছে টাকা চান পাপিয়া। নেশা করবে বুঝতে পেরে মেয়েকে টাকা দেননি মা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে কাপড় কাটার কাঁচি দিয়ে মায়ের পেটে ঢুকিয়ে দেন পাপিয়া। পরে রহিমাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন চিকিৎসকরা। দুপুরে ফের রক্তক্ষরণ শুরু হলে হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের ছোট মেয়ে বলেন, দীর্ঘদিন ধরেই মাদক সেবন করেন পাপিয়া। তিনি প্রায় সময় টাকার জন্য আমাদের সবাইকে বিভিন্নভাবে জ্বালাতন করতেন। এর আগেও একবার মাকে খুন করার চেষ্টা করেছিলেন।

বাঞ্ছারাপুর মডেল থানার ওসি মো. রাজু আহমেদ বলেন, এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে পাপিয়াকে আটক করা হয়েছে। লাশটি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।