ব্রেকিং:
৮৫ হাজার কোটি টাকার প্লাস্টিক পণ্য রফতানির টার্গেট ১৬ই ডিসেম্বরের মধ্যে রাজাকারের তালিকা প্রকাশ ২৭ জানুয়ারি করোনার প্রথম টিকা পাবেন কুর্মিটোলার নার্স আন্তর্জাতিক মানের করা হচ্ছে মাদরাসা শিক্ষাকে ১৮ ফসলের ১১২ জাত আবিষ্কার করেছে বিনা শ্রমবাজারে নতুন সম্ভাবনা! হাসপাতালে ১০ পরীক্ষার ফি নির্ধারণ ধীরাশ্রমে হচ্ছে দেশের বৃহত্তম কনটেইনার ডিপো ঢাকা-সিলেট চার লেন কাজ শুরু জুলাইয়ে বাড়ি পেয়ে প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘায়ু কামনা গৃহহীনদের ঘর উপহার মুজিববর্ষে বড় উৎসব : প্রধানমন্ত্রী ২২ বছর পর ফিরলেন মৃত ব্যক্তি, বিক্রি করলেন জমিও দেশে উদ্ভাবিত প্রথম পিসিআর টেস্ট কিট অনুমোদন নতুন ঘর পেয়ে দারুণ খুশি নদী ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্তরা বিশ্বজুড়ে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়াল ২১ লাখ ৩০ হাজার আন্তর্জাতিক ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতায় কু.বি শিক্ষার্থী পুরস্কৃত ভাষাসৈনিক আলী তাহের মজুমদার আর নেই আ স ম মাহবুব-উল আলম লিপনের পথসভা রেপার্টরী গার্ডেন থিয়েটারের পরিবেশনায় মঞ্চস্থ হল ‘পুরোনো পালা` দেশে করোনায় মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়ালো
  • রোববার   ২৪ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ১১ ১৪২৭

  • || ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

২০

পরিবেশবান্ধব ও টেকসই খাতে বার্ষিক ঋণের লক্ষ্য ১৫ শতাংশ

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১৩ জানুয়ারি ২০২১  

ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর পরিবেশবান্ধব ও টেকসই অর্থায়ন খাতে ঋণ বিতরণের বার্ষিক লক্ষ্যমাত্রা ও অর্জনের হার ঠিক করে দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এখন থেকে পরিবেশবান্ধব ও টেকসই অর্থায়ন খাতে ঋণ বিতরণের বার্ষিক লক্ষ্যমাত্রা ১৫ শতাংশ নির্ধারণ করতে হবে। এর মধ্যে ন্যূনতম ২ শতাংশ বিতরণ করতে হবে পরিবেশবান্ধব খাতে।

অন্যদিকে, বার্ষিক ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের ২০ শতাংশের কম হতে পারবে না। এর মধ্যে পরিবেশবান্ধব অর্থায়নের অর্জনের হার হতে হবে কমপক্ষে ৫ শতাংশ। আজ মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাসটেইনেবল ফাইন্যান্স বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত সার্কুলার জারি করা হয়েছে।

জানা যায়, এতদিন পরিবেশবান্ধব ও টেকসই অর্থায়ন খাতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর বার্ষিক ঋণ বিতরণের লক্ষ্যমাত্রা ছিল তাদের মোট ফান্ডেড ঋণ বা বিনিয়োগের ৫ শতাংশ। আর এ খাতে ঋণ বিতরণ অর্জনের হারও ছিল ৫ শতাংশ। ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে এ নিয়মেই পরিবেশবান্ধব ও টেকসই অর্থায়ন খাতে ঋণ বিতরণ করে আসছিল ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো। তবে পরিবেশবান্ধব ও টেকসই অর্থায়ন খাতে ঋণ বিতরণে ব্যাংকগুলোকে আরো আগ্রহী করতে নতুন এ সীমা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

সার্কুলার অনুযায়ী, পরিবেশবান্ধব ও টেকসই অর্থায়ন খাতে ঋণ বিতরণের হার তাদের আগের বছরের ৩১ ডিসেম্বর ভিত্তিক নীট বকেয়া ঋণ ও অগ্রিম স্থিতির ভিত্তিতে নির্ণীত হবে। আর অর্জনের হার তাদের বিতরণকৃত মোট ঋণের ভিত্তিতে বিবেচিত হবে। তবে পরিবেশবান্ধব ঋণের অর্জনের হার শুধু তাদের বিতরণকৃত মেয়াদী ঋণের ভিত্তিতে বিবেচিত হবে। 

সার্কুলারে বলা হয়, পরিবেশবান্ধব ও টেকসই অর্থায়ন ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে সব ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান তাদের ব্যাংকের শাখায় সাসটেইবেল ফাইন্যান্স শীর্ষক হেল্পডেস্ক স্থাপন এবং প্রধান কার্যালয়ের সংশ্লিস্ট ইউনিটির কর্মপরিধির আলোকে তার কর্মকান্ড পরিচালনা করবে।

এতে আরো বলা হয়, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের পরিবেশবান্ধব ও টেকসই অর্থায়ন কার্যক্রমের অর্জন তাদের ক্যামেলস রেটিং এবং সাসটেইনেবিলিটি রেটিংয়ের মূল্যায়নে বিবেচিত হবে।

কুমিল্লার ধ্বনি
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর