ব্রেকিং:
রামগঞ্জে শাশুড়িকে শ্বাসরোধে হত্যা, ছেলের বউ আটক পিকআপের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুতের নারী কর্মী নিহত ছেলেদের ঘরের মেঝেতে রক্তের দাগ, মিলল অস্ত্র-রক্তমাখা কাপড় আশুগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা সুরক্ষা সরঞ্জাম প্রদান সাবেক ভিপি নূরের বিরুদ্ধে দেবিদ্বারেও মামলা করোনা রোধে পোশাক কারখানার নতুন কৌশল বাড়ির কাছে পৌঁছে যাচ্ছে করোনার নমুনা সংগ্রহের গাড়ি করোনার মধ্যেই বাংলাদেশে উন্নতির লক্ষণ দেখছে বিশ্বব্যাংক লকডাউনেও মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ও দুগ্ধজাত পণ্যের ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় বিকাশে টাকা পাবে সাড়ে ১০ লাখ পরিবার করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু বেড়েছে অন্ধকারে সুবর্ণচর উপজেলা,বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাওয়ের হুমকি ৮ শতাধিক শতাধিক গরীব ও দুস্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ মোবাইলে অন্যজনের সঙ্গে প্রবাসীর স্ত্রী কথা, অতঃপর... ইস্টার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা ইউনিট উদ্বোধন কন্যা শিশুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার লালমাই স্ত্রী নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল স্ত্রী-কন্যার সামনে স্কুল শিক্ষককে লাঞ্ছনা দরিদ্রদের ইফতার সামগ্রী উপহার দিলেন এএসপি সোনাগাজীতে মানববন্ধনে সন্ত্রাসী হামলা
  • শুক্রবার   ২৩ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ১০ ১৪২৮

  • || ১০ রমজান ১৪৪২

পুলিশের সাথে ব্যবসায়ীদের ‘চোর-পুলিশ’ খেলা

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ৭ এপ্রিল ২০২১  

করোনা ভাইরাসের সংক্রামণ রোধে সরকার এক সপ্তাহের লক ডাউন ঘোষণা করার দ্বিতীয় দিনেও কুমিল্লার চান্দিনায় সফল করা সম্ভব হয়নি সরকারি কর্মসূচী। মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) উপজেলার সদরসহ বিভিন্ন এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে ৫টি মামলায় জরিমানা আদায় করে। এ সময় ২হাজার ৩শত টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশ।  একই সময় থানা প্রশাসন থেকে মাইকিং করে সচেতনা করা হচ্ছে।

কিন্তু তাতেও তোয়াক্কা নেই ব্যবসায়ীদের। ভ্রাম্যমান আদালত ও পুলিশের অভিযানে তাৎক্ষনিক ভাবে ব্যবসায়ীরা দোকান-পাট বন্ধ করলেও প্রশাসনের লোকজন চলে গেলে ফের দোকান খুলে বসে প্রায় অর্ধেক ব্যবসায়ী। অবস্থা দৃষ্টে দেখা যায় যেন- প্রশাসনের সাথে ব্যবসায়ীরা ‘চোর পুলিশ’ খেলা খেলছে।

মঙ্গলবার দুপুরে চান্দিনা বাজার ঘুরে দেখা গেছে, বেশ কয়েকটি বড়-বড় স্টেশনারী দোকান, মোবাইল শো রুম, ফার্ণিচার দোকান, টাইলস-স্যানেটারী, ইলেক্ট্রিক ও ইলেক্ট্রনিক দোকান, হার্ডওয়ার, কোকারিজ দোকান, পলিথিন দোকান খোলা রয়েছে। যা নিত্য প্রয়োজনীয় ব্যবসায় পড়ে না।

সরকারের নির্দেশ অমান্য করে অর্ধেক ব্যবসায়ী দোকান-পাট খুলে ব্যবসা করায় যারা বন্ধ রাখছেন তাদের মধ্যেও চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। দোকান বন্ধ রাখা ব্যবসায়ীদের নির্দিষ্ট ক্রেতারা হাত ছাড়া হয়ে অন্য দোকানে চলে যাচ্ছে। একদিকে নির্দেশ অমান্যকারী ব্যবসায়ীরা অধিক মুনাফা অর্জন করছেন, অপরদিকে দোকান বন্ধ রাখা ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।

চান্দিনা বাজারের ব্যবসায়ী মানস নাহা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন- আমার স্টেশনারী দোকান। সরকারি নির্দেশ মান্য করে আমি ব্যবসা বন্ধ করেছি। কিন্তু একই দোকান বাজারে বেশ কয়েকটি খোলা রয়েছে। আমার অধিকাংশ কাস্টমার অন্য দোকানে চলে যাচ্ছে।

অপরদিকে, ক্রেতাদের ক্ষোভ যারা দোকান খোলা রাখছে তারা তুলনা মূলক দামও বেশি নিচ্ছে।

এ ব্যাপার চান্দিনা বণিক সমিতির সভাপতি এরশাদ আলী ভূইয়া জানান- বিষয়টি আমাদেরও নজরে এসেছে। তবে আমরা বণিক সমিতি সরকারের সিদ্ধান্ত মান্য করে ব্যবসায়ীদের সেই রকম নির্দেশণাও দিয়েছি। যারা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখছে তাদের কোন দায়-দায়িত্ব আমাদের সমিতি নিবে না। তবে ব্যবসায়ীদের সাথে একমত পোষণ করে সরকারের কাছে আহবান জানাচ্ছি দিনের নির্দিষ্ট একটি সময় দোকান-পাট খোলা রাখার জন্য সিদ্ধান্ত নেওয়া হউক।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) বিভীষণ কান্তি দাশ জানান- বিষয়টি আমরাও দেখছি। যারা এমনটা করছে তারা সরকারের নির্দেশ অমান্যকারী। আমাদের অভিযানে তাদের বিরুদ্ধেও যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।