ব্রেকিং:
মামুনুলের বিরুদ্ধে মামলা করবেন দুই স্ত্রী হেফাজতের নেতৃত্ব বর্জনের আহ্বান ৬২ আলেমের মামুনুলের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ ৩৬ লাখ পরিবার পাবে প্রধানমন্ত্রীর `ঈদ উপহার` পুলিশের উদ্যোগে ৫ টাকায় ইফতার বাংলাদেশকে ৬০ লাখ ডোজ টিকা দেওয়ার প্রস্তাব সিনোফার্মের ব্যক্তিগত ছবি ভাইরাল: গৃহবধূকে কুপিয়ে খুন করল পরকীয়া প্রেমিক ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আরো ৩০ হেফাজত কর্মী গ্রেফতার রমজানে বেড়েছে মুড়ির উৎপাদন করোনা প্রতিরোধ সামগ্রী উৎপাদনে উদ্যোক্তাদের সহায়তা দেবে সরকার সুস্পষ্ট প্রমাণের ভিত্তিতে মামুনুল হক গ্রেফতার: ডিসি হারুন দেশে একদিনে ফের সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ কোম্পানীগঞ্জে অতিরিক্ত র‌্যাব-পুলিশ মোতায়েন সেতুমন্ত্রীর বাড়ির সামনে ককটেল বিষ্ফোরণ ট্রাক্টর চাপায় মাদ্রাসাছাত্রের মৃত্যু ফেনীতে করোনায় দুই দিনে ষাটোর্ধ্ব ৫ ব্যক্তির মৃত্যু যুবলীগ নেতা সাইফুল মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত গভীর রাতে চা দোকান পুড়ে চাই মাস্ক না পড়ায় জরিমানা
  • সোমবার   ১৯ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ৬ ১৪২৮

  • || ০৬ রমজান ১৪৪২

প্রাণে মারার ভয় দেখিয়ে বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে ধর্ষণ

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১০ জানুয়ারি ২০২১  

কুমিল্লার হোমনায় এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনার দশদিন পর শনিবার জানতে পেরে হোমনা-মেঘনা সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) ফজলুল করিমের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ভিকটিমকে উদ্ধার এবং ধর্ষণকাণ্ডে জড়িত চার যুবককে গ্রেফতার করে। 

গত ২৯ ডিসেম্বর মঙ্গলবার উপজেলার আসাদপুর ইউনিয়নের চারকুড়িয়া গ্রামে ভিকটিমের বাড়িতে রাতে এ ঘটনা ঘটে। এরপর চারজনকে আসামি করে শনিবার হোমনা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন গৃহবধূর স্বামী। গ্রেফতারকৃতরা হলেন একই গ্রামের সিদ্দিকুর রহমানের ছেলে হাসান (২৭), মোহন মিয়ার ছেলে রাসেল (২০), জয়নাল আবেদীনের ছেলে ইউসুফ প্রকাশ বাদশা (২৫) ও মজিবুর রহমানের ছেলে সোহাগ মিয়া (১৬)। 

স্থানীয় এবং থানা পুলিশ সূত্রে জনা যায়, ভিকটিম এবং তার স্বামী দুজনেই বুদ্ধি প্রতিবন্ধী। তাদের সংসারে আড়াই বছর এবং এক বছরের দুটি ছেলে সন্তান রয়েছে। ২৯ ডিসেম্বর রাত দুইটার দিকে আসামিরা ঘরে ঢুকে ওই বুদ্ধি প্রতিবন্ধী গৃহবধূকে পাঁচশ’ টাকা, নতুন জামা কিনে দেয়ার লোভ দেখায়। স্বামীকে ভয়ভীতি ও মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে ধর্ষণ করে। আসামি হাসান এর আগেও কয়েকবার ওই নারীকে ধর্ষণ করার কথা স্বীকার করেছে পুলিশের কাছে। এ নিয়ে গ্রাম্য সালিশ বৈঠকে টাকার বিনিময়ে মীমাংসার চেষ্টা করা হয়েছিল বলেও শোনা গেছে। 

হোমনা-মেঘনা সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) ফজলুল করিম বলেন, শনিবার রাতেই অভিযান চালিয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করি এবং অভিযুক্ত চার আসামিকে গ্রেফতার করি। বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা হয়েছিল বলেও শোনা গেছে।

হোমনা থানার ওসি আবুল কায়েস আকন্দ বলেন, গণধর্ষণের দায়ে থানায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্ত চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রোববার আসামিদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে এবং ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হবে।