ব্রেকিং:
তদন্তে গাফিলতি প্রমাণিত হলে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা: রেলমন্ত্রী টুটুলের আবিষ্কার: পলিথিন থেকে জ্বালানি বাংলাদেশের ফুটবলে চমক উপহার দিতে চায় ব্রাজিল জঙ্গিবাদের রূপ দিতে আবির্ভাব হয় সাম্প্রদায়িক অশুভ শক্তি চার ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান রাজধানীতে ৫০ কোটি টাকার সাপের বিষ উদ্ধার ভারতের দূর্বল জায়গায় আঘাত করবে বাংলাদেশের স্পিন অস্ত্র! মাদকাসক্ত হলেই সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা রিকশা চালক শিশু স্বপ্না ডাক্তার হতে চায় ১১ বছরে ৩৩৯টি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে: সংসদে শিক্ষামন্ত্রী রাজনৈতিক স্থিতিশীলতায় বাংলাদেশ এখন অনন্য উচ্চতায় রোহিঙ্গাদের ফেরাতে মিয়ানমারকে বোঝানোর জন্য চীনের প্রতি আহ্বান বৃদ্ধা মাকে সড়কে ফেলে গেলো সন্তান, ওসি দিলেন বুকে ঠাঁই জেনারেল আজিজ- একজন নিবেদিতপ্রাণ গলফার সেনাপ্রধান ‘প্রাণ-মিল্কভিটা-আড়ংসহ পাস্তুরিত সব দুধই মানহীন’ বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে লিভার প্রতিস্থাপনে সফল অস্ত্রোপচার ২০৩০ সালের মধ্যে দারিদ্র্য শূন্যের কোটায় আসবে কালো সোনা সাদা করে হাজার কোটি টাকা পাচ্ছে সরকার মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশনে আপত্তি, নার্সকে পেটাল ফার্মেসির লোক ২৮ জুন বসবে পদ্মা সেতুর ১৪তম স্প্যান

বৃহস্পতিবার   ২৭ জুন ২০১৯   আষাঢ় ১৪ ১৪২৬   ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

কুমিল্লার ধ্বনি
১০৮

ফেনীর রোমিও-জুলিয়েটের থাকলো না কিছুই

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০১৯  

প্রিয়জনের মৃত্যুর ঘটনা যে কাউকে চরমভাবে নাড়া দেয়। এর বাইরে নন ফেনীর আবু বক্কর সিদ্দিকও। প্রিয়তমা স্ত্রীকে হারিয়ে সে শোক যেন কিছুতেই সইতে পারছেন না তিনি।

গত ৫ জুন আবু বক্কর সিদ্দিককে ছেড়ে না ফেরার দেশে চলে গেছেন তার স্ত্রী আমেনা আক্তার। ভবঘুরে জীবন হলে কি হবে, ভালোবাসার দিক থেকে এ দম্পতির মিল-মহব্বত ছিল বড়ই অকৃত্রিম। স্ত্রী-সন্তানের প্রতি গভীর ভালোবাসা দেখে স্থানীয়রা এ দম্পতির নাম দিয়ে ছিলেন‘রোমিও-জুলিয়েট’। 
 
২০১৬ সাল ফেনীতে এসেছিলেন এ দম্পতি। এসময় তাদের কোলজুড়ে ছিল একটি ফুটফুটে মেয়ে সন্তানও। প্রথমে সড়কের পাশে ফুটপাতে সংসার পাতেন তারা। পরে শহরের রাজাঝিদিঘীর পাড়ে, কখনো কোনো সরকারি অফিস-আদালতের বারান্দায় রাত কাটাতেন তারা। একদিন তাদের আদরের সন্তানটি চুরি হয়। নিজেদের সন্তানকে হারিয়ে তখন খুব কষ্টে দিন কাটছিল তাদের।

২০১৭ সালের ১৫ মে। শহরের শিশু নিকেতন স্কুল মার্কেটের বারান্দায় আরো একটি মেয়ে সন্তান জন্ম দেয় এ দম্পতি। স্থানীয়রা মেয়েটির নাম দেয় আনিসা আক্তার রানী। পুনরায় সন্তান পেয়ে তাদের সংসার ভালোভাবেই চলছিল। মানুষের সহযোগিতায় ধীরে ধীরে বেড়ে উঠতে থাকে রানী। কিন্তু তাদের সংসারে আবারো দুর্যোগ নেমে আসে। হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ে রানী। পরে স্থানীয় ৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সিরাজুল ইসলাম তাকে আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৫ ডিসেম্বর রানী মারা যায়। পরে তাকে পৌর কবরস্থানে দাফন করা হয়।

ওই দিন হাসপাতালে এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। রানীকে কোল থেকে কিছুতেই নামাতে দিচ্ছিলেন না আমেনা আক্তার। অন্যদিকে কবর দেয়ার সময় আবু বক্কর সিদ্দিক তাকে রেখে দিতে বার বার অনুরোধ করেন।

ফেনী পৌরসভার ১০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাহতাব উদ্দিন মুন্না জানান, শুনেছি ঈদের কয়েক দিন আগে মহিপালে মালবাহী ট্রাকের ধাক্কায় আমেনা আক্তার গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাকে কে বা কারা একটি ভ্যানে রেখে চলে যায়। সেখানে তার মৃত্যু হলে ঈদের দিন পৌর কবরস্থানে মেয়ের পাশেই তাকে দাফন করা হয়।

তিনি আরো বলেন, স্ত্রী মারা যাওয়ার পর নিঃসঙ্গ আবু বক্কর সিদ্দিককে সেলুনে নিয়ে চুল কেটে গোসল করিয়ে নতুন জামা কাপড় কিনে দেন তিনি। পরে তাকে বুঝিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে অনুরোধ জানান। পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে সিদ্দিককে একটি রিকশা, থাকার জায়গা ও লেপ-তোষক কিনে দেন তিনি।

আবু বক্কর সিদ্দিক জানান, ফেনী শহরতলির বাহিপুরের আবদুল আজিজ ও কদ বানুর পাঁচ সন্তানের মধ্যে কনিষ্ঠ সন্তান সে। বাবা আবদুল আজিজের কোনো মেয়ে সন্তান না থাকায় ছোটবেলা থেকে আমেনা আক্তারকে লালন-পালন করেন। মানসিক ভারসাম্যহীন সে আমেনার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে সিদ্দিকের। পরে বিয়ে করে সংসার পাতে দু’জন। আমেনাকে বিয়ে করার কারণে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়া হয়।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর