ব্রেকিং:
বিয়ের দিন বাড়িতে হাজির প্রথম স্ত্রী হাসপাতালে ভর্তি ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী ৫০ থেকে একশ শয্যায় উন্নীত হবে সব হাসপাতাল সেপটিক ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেল ২ রাজমিস্ত্রির মজুতদারি করে কারসাজি করলে কঠোর ব্যবস্থা ইঞ্জিনে ওভার হিট, মহাখালীতে প্রাইভেটকারে আগুন ১৫ লাখ টাকার মালামাল লুট ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ফিরে পেলেন ট্রাম্প অবশেষে ঝুঁকিপূর্ণ তিন রাস্তার সংযোগস্থলে গতিরোধক স্থাপন বাঙালি বিশ্ব মোড়লদের ধার ধারে না: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী যেসব কারণে ব্যাপক চাপ থাকবে সড়কে সুপ্রিম কোর্টের আদেশে সরকারের কোটা সংক্রান্ত পরিপত্র বলবৎ হয়েছে পানি নিষ্কাশনে ডিএনসিসির ৫ হাজার পরিচ্ছন্নতা কর্মী কাজ করছে সময় টিভির সাংবাদিকদের উপর কোটা বিরোধীদের হামলা প্রধানমন্ত্রীর অন্তর্ভুক্তিমূলক সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি গাজায় ‘যুদ্ধাবসানের সময় এসেছে’: বাইডেন ন্যাটো-রাশিয়াকে সংঘাতের ব্যাপারে সতর্ক করলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রাজধানীসহ সারাদেশে ভারী বৃষ্টি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুতে ইতিবাচক মিয়ানমার চীনা গণমাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর চীন সফর
  • রোববার ১৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩০ ১৪৩১

  • || ০৬ মুহররম ১৪৪৬

ফের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ কুবি শিক্ষার্থীদের

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ৯ জুলাই ২০২৪  

কোটা পদ্ধতি সংস্কারের দাবিতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশে আবারও অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) শিক্ষার্থীরা। সোমবার বিকেল পৌনে ৪টার দিকে মহাসড়কের কোটবাড়ী এলাকায় অবরোধ করেন তারা।

সরেজমিনে দেখা যায়, বাবুল আহমেদ নামের এক শিক্ষার্থী সাদা কাপড় গায়ে জড়িয়ে মহাসড়কের মাঝে দাঁড়িয়ে গাছসদৃশ একটি স্টিলের পাইপে ঝুলে প্রতীকী আত্মহত্যা করেন। সাদা কাপড়ে লেখা ‘মেধা থাকার পরও কোটা পদ্ধতি আমাকে বাঁচতে দেয়নি। তোর ছেলেকে আত্মহত্যা করতে বাধ্য করেছে মা।’

বাবুল আহমেদ বলেন, আমরা কোটা পদ্ধতির বাতিল চাই। সেজন্য আজকের এ প্রতিবাদ। প্রতীকী অর্থে আমি আজ এ বেশে এখানে দাঁড়িয়ে আছি। কোটা পদ্ধতির কারণে অনেক মেধাবী ঝড়ে যাচ্ছে। এ কোটা মেধাবীদের কাছে এক ধরনের হত্যার শামিল। আমার জায়গা থেকে প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

কোটা আন্দোলনের কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যলয়ের অন্যতম মোহাম্মদ সাকিব হোসাইন জাগো নিউজকে বলেন, সারা বাংলাদেশের সঙ্গে সমন্বয় করে তৃতীয় দিনের মতো আমাদের কুমিল্লার কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। ২০১৮ সালের পরিপত্র বহাল ও কোটাপদ্ধতি সংস্কার না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলমান থাকবে। আগামীতে আরও কঠোর কর্মসূচি আসতে পারে।