ব্রেকিং:
মুজিববর্ষ উপলক্ষে ছাত্রলীগের বৃক্ষরোপন কর্মসূচি দুর্বৃত্তের আগুনে পুড়ে ছাই যুবকের স্বপ্ন কৈলাইন হাই স্কুলে গ্রন্থাগারিক নিয়োগে অনিয়ম বার্ডে এলজিআরডি মন্ত্রী তাজুল ইসলাম কুমিল্লায় বিদেশি পিস্তল উদ্ধার বিশ্বে অনাহারের মুখে ২৭ কোটি মানুষ দেশে একদিনে ৩২ মৃত্যু, শনাক্ত দেড় হাজারের বেশি ১২ টাকা কেজিতে তুরস্ক থেকে আসছে কয়েক হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ ‘ভাল উদ্যোক্তা হতে প্রয়োজন গভীর আত্মবিশ্বাস’ যেভাবে দেশসেরা আলেম হলেন আল্লামা আহমদ শফী জরুরি অভিযোগ কেন্দ্রের ফোন নম্বর জানালো তিতাস গ্যাস কমিটিতে ত্যাগী নেতাদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে: কাদের অ্যাপের মাধ্যমে ধান কিনবে সরকার প্রবৃদ্ধির আশা দেখাচ্ছে চট্টগ্রাম বন্দর মসজিদে বিস্ফোরণ মামলা: তিতাসের বরখাস্ত ৮ কর্মকর্তা গ্রেফতার একদিনেই শনাক্ত ৩ লাখের বেশি, মৃত্যু ৫৪৬৫ চীনে ছড়িয়ে পড়া নতুন রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন বহু মানুষ হাই-টেক পার্কে চার হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ সুখবর পাচ্ছে নন-এমপিও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ২৫ হাজার টন পেঁয়াজ রফতানির সিদ্ধান্ত ভারতের
  • রোববার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৫ ১৪২৭

  • || ০১ সফর ১৪৪২

১৮

বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ ঘোষণা করলো ভারত

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২০  

পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বেনাপোলসহ দেশের বিভিন্ন স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে ভারতের পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ ছিলো। সোমবার রাতে পেঁয়াজ রফতানি আনুষ্ঠানিকভাবেই বন্ধ ঘোষণা করলো দেশটি।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন সংস্থা ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেন ট্রেড পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের এই নির্দেশনা দেয়। এতে বলা হয়েছে, অনতিবিলম্বে এই নির্দেশ কার্যকর হবে। রাতেই ভারত সরকারের রফতানি বন্ধের নির্দেশনা দেশটির আমদানিকারকদের হাতে পৌঁছেছে বলে জানা গেছে।

ভারত থেকে মূলত সাতক্ষীরার ভোমরা, দিনাজপুরের হিলি ও যশোরের বেনাপোল দিয়ে বেশি পেঁয়াজ আমদানি হয়।

হিলি স্থলবন্দরের কাস্টম হাউসের ডেপুটি কমিশনার সাইদুল আলম বিকেলে বলেন, গতকাল রোববার পর্যন্ত ভারত থেকে ১২৯টি পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। যা পরিমাণে প্রায় ৮০০ টন। সোমবার সারা দিন পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ ছিলো। 

তিনি বলেন, দুপুরের পরে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। তারা (ভারতীয় কর্তৃপক্ষ) তাদের সংকটের কথা জানিয়েছেন। তারা নিজ দেশেও (ভারত) পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির কথা বলছেন।

বাংলাদেশে যতটুকু পেঁয়াজ আমদানি হয়, তার সিংহভাগ আসে ভারত থেকে। ভারতে দুই সপ্তাহ আগে দাম বাড়তে থাকে। সঙ্গে বাংলাদেশেও পেঁয়াজের দাম বেড়ে যায়।

ঢাকার বাজারে এখন প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ জাত ও আকারভেদে ৬০ থেকে ৭০ টাকা এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ৫০ থেকে ৫৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এক মাস আগেও দেশি পেঁয়াজ কেজিপ্রতি ৪০ থেকে ৪৫ টাকা এবং ভারতীয় পেঁয়াজ ৩০-৩৫ টাকার মধ্যে ছিল। দেশে গত বছর নভেম্বরে পেঁয়াজের কেজিপ্রতি দাম ৩০০ টাকা পর্যন্ত উঠেছিলো। 

মূল্যবৃদ্ধির শুরুটা হয়েছিলো ভারত থেকে সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ায়। ভারত নিজেদের বাজার সামাল দিতে গত বছর ১৩ সেপ্টেম্বর পেঁয়াজ রফতানিতে ন্যূনতম মূল্য টনপ্রতি ৮৫০ ডলার বেঁধে দেয়। ৩০ সেপ্টেম্বর রফতানিই নিষিদ্ধ করে দেয় দেশটি। এরপর দেশের বাজারে পেঁয়াজের দামে তিনশ’ টাকা পর্যন্ত ওঠে। তখন আকাশ পথেও পেঁয়াজ আমদানি করা হয়।

কুমিল্লার ধ্বনি
অর্থনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর