ব্রেকিং:
ভারতের তৈরি ভ্যাকসিন নিয়ে করোনা আক্রান্ত স্বাস্থ্যমন্ত্রী তালিকা হচ্ছে কিশোর অপরাধীদের, বাদ যাবে না ‘বড় ভাইরাও’ রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলা, আইনজীবীদের টিম গঠন করবে কমনওয়েলথ প্রাথমিকে উপবৃত্তির টাকা বিতরণ করা হবে ‘নগদে’ বিজয় দিবসের আগেই পদ্মা জয় দেশে দ্বিতীয় সাইবার ফরেনসিক ল্যাব হচ্ছে চট্টগ্রামে সাশ্রয়ী মূল্যে সবার জন্য ভ্যাকসিন নিশ্চিত করতে হবে-প্রধানমন্ত্রী বিএনপির আমলে দেশে ধর্ষণের ঘটনা বেশি হয়েছে সম্পদ ওয়াকফ করে দেবন বেগম জিয়া, বঞ্চিত হচ্ছেন তারেক-শর্মিলা! নোয়াখালীতে বিএনপি নেতার হামলায় ছাত্রলীগ নেতা গুরুতর আহত আসামিকে ছয় মাস পর পর দিতে হবে ডোপ টেস্ট কৃষকদের চাপে সংশোধন হচ্ছে ভারতের কৃষি আইন ৩ ক্ষেত্রে গুরুত্ব দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে বিমানে `করোনামুক্ত` সনদ বাধ্যতামূলক ছেঁড়া পায়জামায় বিয়ের আসরে আদিত্য নারায়ণ....! আড়তে পচছে পেঁয়াজ, বাজারে কমছে দাম সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ: কেউ পারবেন সর্বোচ্চ দেড় কোটি, কেউ এক কোটি রোহিঙ্গাদের জন্য দেশের ক্ষতি হচ্ছে: কাদের হাম-রুবেলা টিকাদান শুরু ১২ ডিসেম্বর যুবলীগকে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে
  • শনিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৭

  • || ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

২৪

বি.বাড়ীয়া ইটভাটা স্থানান্তরের সময় বৃদ্ধির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ২১ নভেম্বর ২০২০  

করোনা পরিস্থিতির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিকটবর্তী স্থান থেকে ইটভাটা সরাতে আরো কিছুদিন সময় চান ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ইটভাটা মালিকরা। গতকাল সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে তারা এ দাবি জানান। এতে জেলার ইটভাটার মালিকরা উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি ও জেলা ইট প্রস্তুতকারক মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আজিজুল হক। তিনি বলেন, ‘ইটভাটা থেকে সরকার প্রচুর পরিমাণ রাজস্ব পেয়ে থাকেন। এ ছাড়া আবাসন, দেশের অবকাঠামো খাত ও বেকার সমস্যা লাঘবে ইটভাটার ভূমিকা অনস্বীকার্য। সরকার দেশের পরিবেশগত অবস্থা বিবেচনা করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট এলাকায় ইটভাটা স্থাপন নিষিদ্ধ করেছে। আমরা ইটভাটা মালিকরা সরকারের এই নিষেধাজ্ঞা মেনে চলার চেষ্টা করছি’।

 

তিনি আরো বলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে এমনিতেই   ইটভাটা ব্যবসা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। চলতি বছর আমরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট এলাকা থেকে  ইটভাটা   স্থানান্তর করতে পারিনি।  কারণ হলো- করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকালীন সময়ে নতুন জায়গা কেনা বা ভাড়া নেয়া দুঃসাধ্য হয়ে দাঁড়িয়েছিল। প্রতিটি ইটভাটাতেই   দুই-তিন কোটি টাকা করে বিনিয়োগ রয়েছে। আর বিনিয়োগকৃত এসব টাকা বিভিন্ন ব্যাংক থেকে ঋণ নেয়া’।
ইটভাটা   স্থানান্তরে   আরো কিছুদিন   সময় চেয়ে আজিজুল হক বলেন,   ‘এখন ইটভাটা স্থানান্তর করতে গেলে আমরা আর্থিক এবং মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবো। ব্যাংকের দেনা শোধ করতে  পারবো না। শ্রমিকরা বেকার হয়ে পড়বেন এবং প্রান্তিক পর্যায়ে দুর্দশা বেড়ে যাবে। এ ছাড়া চাহিদা অনুযায়ী ইট প্রস্তুত না হলে আবাসন এবং সরকারের উন্নয়নমূলক অবকাঠামোগত খাতে ইট সরবরাহে ঘাটতি দেখা দেবে। এতে করে আবাসন এবং অবকাঠামো খাতে ব্যয় বেড়ে যাবে। সংবাদ সম্মেলনে বিজয়নগর উপজেলা ইট প্রস্তুতকারক মালিক সমিতির সভাপতি তৌফিকুল   ইসলাম মুকুল ও ইটভাটা মালিক  আমজাদ হোসেন রনি  উপস্থিত ছিলেন’।

কুমিল্লার ধ্বনি
সারাবাংলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর