ব্রেকিং:
রামগঞ্জে শাশুড়িকে শ্বাসরোধে হত্যা, ছেলের বউ আটক পিকআপের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুতের নারী কর্মী নিহত ছেলেদের ঘরের মেঝেতে রক্তের দাগ, মিলল অস্ত্র-রক্তমাখা কাপড় আশুগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা সেবা সুরক্ষা সরঞ্জাম প্রদান সাবেক ভিপি নূরের বিরুদ্ধে দেবিদ্বারেও মামলা করোনা রোধে পোশাক কারখানার নতুন কৌশল বাড়ির কাছে পৌঁছে যাচ্ছে করোনার নমুনা সংগ্রহের গাড়ি করোনার মধ্যেই বাংলাদেশে উন্নতির লক্ষণ দেখছে বিশ্বব্যাংক লকডাউনেও মাছ, মাংস, দুধ, ডিম ও দুগ্ধজাত পণ্যের ভ্রাম্যমাণ বিক্রয় বিকাশে টাকা পাবে সাড়ে ১০ লাখ পরিবার করোনায় গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু বেড়েছে অন্ধকারে সুবর্ণচর উপজেলা,বিদ্যুৎ অফিস ঘেরাওয়ের হুমকি ৮ শতাধিক শতাধিক গরীব ও দুস্থদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ মোবাইলে অন্যজনের সঙ্গে প্রবাসীর স্ত্রী কথা, অতঃপর... ইস্টার্ন মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা ইউনিট উদ্বোধন কন্যা শিশুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার লালমাই স্ত্রী নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল স্ত্রী-কন্যার সামনে স্কুল শিক্ষককে লাঞ্ছনা দরিদ্রদের ইফতার সামগ্রী উপহার দিলেন এএসপি সোনাগাজীতে মানববন্ধনে সন্ত্রাসী হামলা
  • শুক্রবার   ২৩ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ১০ ১৪২৮

  • || ১০ রমজান ১৪৪২

ব্যবসায় আলোচিত ১০ ঝুঁকি ও মুক্তির উপায়

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ২০ মার্চ ২০২১  

ঝুঁকি ব্যবসার অন্যতম আলোচনার বিষয়। ব্যবসায় জড়িত ঝুঁকিগুলির কারণে প্রায়শই  ব্যবসা পরিচালনা করা  চেলেঞ্জিং হয়ে ওঠে । উদ্যোক্তাদের কখনও  কখনও পরিবর্তনশীল পরিস্থিতিতে দক্ষতা এবং বিচক্ষনতার সাথে ঝুঁকি মোকাবেলা করতে হয়। ব্যবসা বড় বা ছোট যা ই হোক সবাইকেই ঝুঁকির সম্মুখীন হতে হয়। আপনি যখন কোনও ব্যবসার জন্য পরিকল্পনা করেন তখন থেকেই ঝুঁকি শুরু হয় । এবং এটি   সম্পূর্ণভাবে শেষ না হওয়া পর্যন্ত  নানা  তীব্রতায় নানান রকম ঝুঁকি নানামুখী বাঁক নেয়।

উদ্যোক্তাগণ একটি ভাল পদ্ধতিতে এই ঝুঁকি মোকাবেলা করতে সক্ষম হবেন যদি নিচের কারণগুলি সম্পর্কে ভাল ধারনা রাখেন। নীচে সবচেয়ে বেশি আলোচিত দশটি ঝুঁকি বা  চেলেঞ্জের  বিষয় রয়েছে যার সাথে প্রতিটি উদ্যোক্তাকে  মুখোমুখি  হতে  হয়।

১। প্রতিযোগী ঝুঁকি

প্রতিযোগিতা  ব্যবসার অন্যতম একটি ঝুঁকি। একচেটিয়াভাবে যারা বাজার দখল করে আছে  বা ইতিমধ্যে যার ব্যবসা প্রতিষ্ঠিত , নতুন উদ্যোক্তা হিসেবে আপনাকে তাদের সাথে প্রতিযোগিতার মুখোমুখি হতেই হবে।

এই ঝুঁকি হ্রাস করার জন্য আপনাকে সঠিক SWOT (Strengths, Weaknesses, Opportunities, and Threats) বিশ্লেষণ চালানো উচিত এবং প্রতিযোগিতার আক্রমণগুলি মোকাবেলা করার কৌশলগুলি রপ্ত করা উচিত।

২। প্রযুক্তিগত ঝুঁকি

প্রযুক্তি দ্রুত  পরিবর্তনশীল । পরিবর্তিত সময়ের জন্য  প্রত্যেক ব্যবসাকেই প্রযুক্তিগত ঝুঁকি মোকাবেলা করতে হয়।  আজকে যার ভীষণ চল  আগামীকালই তা হয়ে ওঠে ভীষণ অপ্রচলিত ।  ভবিষ্যৎকে  সঠিকভাবে হিসাব করা উদ্যোক্তাদের পক্ষে সব সময় ই সহজ নয় ।

তাই শুধু আজকের জন্য পরিকল্পনা নয়, আগামীকালের  নতুন প্রযুক্তির  জন্যও  আপনাকে প্রস্তুত থাকতে হবে।

৩। রাজনৈতিক এবং আইনি ঝুঁকি

সবক্ষেত্রেই  এই ঝুঁকি বিদ্যমান কিন্তু বিশেষ করে ব্যবসার ক্ষেত্রে  এটি প্রায়শই অনিশ্চিত পরিবেশে তৈরি করে। হঠাৎ  করেই রাজনৈতিক পটপরিবর্তন বা  আইন/ বিধান পরিবর্তন ব্যবসাকে বড় ধরনের ঝুঁকির সামনে ফেলে দেয়। বহুজাতিক ব্যবসায়  এই ঝুঁকির মাত্রা সবচেয়ে বেশি কারন প্রতিটি দেশে তাদের ব্যবসা আছে । আর প্রতিটি দেশে নিশ্চয়ই  আলাদা আলাদা রাজনৈতিক এবং আইনি বাস্তবতা রয়েছে।

এই বিষয়ের সঠিক সমাধানের জন্য আপনার নমনীয় নীতিমালা থাকা উচিত যাতে সরকার তার কোনও নীতি পরিবর্তন করলেই পরিবর্তনগুলি অন্তর্ভুক্ত করা যেতে পারে।

৪। অর্থনৈতিক ঝুঁকি

এই ধরনের ঝুঁকিটির একটি ভাল উদাহরণ হল সাম্প্রতিক অর্থনৈতিক মন্দা যা বিশ্বব্যাপী দেখা গিয়েছিল। এই ঝুঁকিটি একটি   চক্রের মত  যা উচ্চ সমৃদ্ধি- মন্দার সময়কাল ও বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত করে।

সঠিকভাবে এর পূর্বাভাস পাওয়া যাবে না কিন্তু প্রাথমিক পরিকল্পনার সময় এ বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে।

৫। আর্থিক ঝুঁকি

আর্থিক ঝুঁকি যে কোন ব্যবসার একটি চলমান ঝুঁকি। সফলভাবে একটি ব্যবসা চালানোর জন্য উদ্যোক্তাদের একটি ভাল আর্থিক জ্ঞান থাকা জরুরি। অর্থের নগদ প্রবাহ পরিচালনা, চাহিদা এবং প্রয়োজন অনুসারে সরবরাহ  করা সহ আর্থিক সকল সিদ্ধান্ত সঠিকভাবে গ্রহণ করা নতুন উদ্যোক্তার জন্য বেশ চেলেঞ্জিং।

বড় বা ছোট প্রতিটি সিদ্ধান্তই মুনাফা এবং একটি কোম্পানির আর্থিক অবস্থার উপর উল্লেখযোগ্য প্রভাব রাখে তাই এ বিষয়ে সতর্ক হওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

৬। কর্মচারী ঝুঁকি

একটি ব্যবসা সফল হওয়ার জন্য জনবল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলির মধ্যে একটি। উদ্যোক্তাদের দায়িত্ব হচ্ছে  একটি শক্তিশালী  ব্যবস্থাপক  টীম  গড়ে তুলে দেয়া  যারা কর্মীদের সঠিক পথে পরিচালিত করতে পারে। কোনও সংস্থা তার কর্মীদের সাহায্য ছাড়া তার লক্ষ্য অর্জন করতে পারে না ।

কোন গুরুত্বপূর্ণ কর্মীর পদত্যাগ বা কোনও গুরুত্বপূর্ণ দিনে কর্মীদের কাজ না করার সিদ্ধান্ত ব্যবসার ক্ষেত্রে অনেক বড়  ঝুঁকির ব্যাপার।   কর্মচারী বেতন বৃদ্ধি,সন্তুষ্টি, নিম্ন আউটপুট বা প্রশিক্ষণ ইত্যাদি নানা বিষয় মাথায় রাখলে কর্মচারী ঝুঁকি কিছুটা হাতের নাগালে রাখা যায়।

৭।  কৌশলগত ঝুঁকি

যে কোন কৌশল যে কোন কারনে  ব্যর্থ   হতে পারে। তাই ব্যবসায় কৌশল নির্ধারণ করতে হবে বিচক্ষণতার সাথে।  ভবিষ্যতে অনিশ্চিত কিছু ঘটনার একটি সুযোগ রয়েছে এবং সবসময় সঠিক পূর্বাভাস ও পাওয়া যায় না।

উদ্যোক্তাদের দূরদর্শিতা থাকতে হবে যাতে তারা সঠিকভাবে পরিকল্পনা করতে পারে। একজন ব্যবসায়ীর প্রতিটি বিষয় সম্পর্কে জ্ঞান থাকতে পারে না; তাই তিনি সংশ্লিষ্ট বিভাগ থেকে সাহায্য চাইতে হবে।

৮।  স্বাস্থ্য এবং নিরাপত্তা ঝুঁকি

ব্যবসায়ীর দায়িত্ব হলো তার কর্মীদের সঠিক পরিবেশ সরবরাহ করা যাতে তাদের কোনও ধরণের স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরি না হয়।  সব দেশেই কর্মচারী ও শ্রম আইন রয়েছে যাতে ক্যান্টিন থেকে বাথরুম  ইত্যাদি  সবকিছু নিয়ে পরিষ্কারভাবে গাইড লাইন তৈরি  করে দেয়।

যদি কোনও সংস্থা এটিকে অনুশীলন করতে ব্যর্থ হয় তবে এটি কোম্পানির জন্য আইনি ও ইমেজ সংকট তৈরি করতে পারে।

৯।  পরিবেশগত ঝুঁকি


পরিবেশের সঙ্গে যুক্ত ঝুঁকিই পরিবেশগত ঝুঁকি । এর অধীন যে ঝুঁকি সবসময় তা নিয়ন্ত্রণ করা যাবে না। বন্যা ,খরা অতিবৃষ্টির মত প্রাকৃতিক দুর্যোগ এর অন্তর্ভুক্ত। উপরন্তু, প্রাকৃতিক সম্পদ অভাব এই ঝুঁকির অন্যতম কারন।

এই ঝুঁকি ফ্যাক্টরকে অতিক্রম করার সেরা বিকল্প হচ্ছে ব্যবসা শুরুর আগে সঠিক গবেষণা করা।

১০। অপারেশনাল  ঝুঁকি


প্রশাসনিক পদ্ধতির সঙ্গে যুক্ত ঝুঁকি অপারেশনাল ঝুঁকি।পুরানো আইটি সিস্টেম, দুর্বল সাপ্লাই চেইন এবং অগোছালো রেকর্ড কিপিং অপারেশনাল ঝুঁকি তৈরি করে।এই সমস্যাগুলি কোম্পানির জন্য অনেক বড় বড় সমস্যা বয়ে আনে। অগোছালো রেকর্ড কোম্পানির সঠিক চিত্র দিতে ব্যর্থ হয় ফলে কার্যকরী কোন নতুন সিদ্ধান্ত নেয়া যায় না।

এক্ষেত্রে রিস্ক ফ্যাক্টরটি কমিয়ে আনার জন্য  ব্যবসার সবকিছুতে নজর রাখা গুরুত্বপূর্ণ।

এটা অবশ্যই বোঝা উচিত যে ঝুঁকি ব্যবসার অংশ। এটা সম্পূর্ণরূপে মুছে ফেলা যাবে না। তাই, প্রতিটি উদ্যোক্তা ক্ষতি কমানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত। যত্নশীল এবং সতর্কতার সাথে সিদ্ধান্ত তৈরীর মধ্যমে যে কোন ঝুঁকি এড়ানো সম্ভব।