ব্রেকিং:
বিয়ের দিন বাড়িতে হাজির প্রথম স্ত্রী হাসপাতালে ভর্তি ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী ৫০ থেকে একশ শয্যায় উন্নীত হবে সব হাসপাতাল সেপটিক ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেল ২ রাজমিস্ত্রির মজুতদারি করে কারসাজি করলে কঠোর ব্যবস্থা ইঞ্জিনে ওভার হিট, মহাখালীতে প্রাইভেটকারে আগুন ১৫ লাখ টাকার মালামাল লুট ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ফিরে পেলেন ট্রাম্প অবশেষে ঝুঁকিপূর্ণ তিন রাস্তার সংযোগস্থলে গতিরোধক স্থাপন বাঙালি বিশ্ব মোড়লদের ধার ধারে না: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী যেসব কারণে ব্যাপক চাপ থাকবে সড়কে সুপ্রিম কোর্টের আদেশে সরকারের কোটা সংক্রান্ত পরিপত্র বলবৎ হয়েছে পানি নিষ্কাশনে ডিএনসিসির ৫ হাজার পরিচ্ছন্নতা কর্মী কাজ করছে সময় টিভির সাংবাদিকদের উপর কোটা বিরোধীদের হামলা প্রধানমন্ত্রীর অন্তর্ভুক্তিমূলক সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি গাজায় ‘যুদ্ধাবসানের সময় এসেছে’: বাইডেন ন্যাটো-রাশিয়াকে সংঘাতের ব্যাপারে সতর্ক করলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রাজধানীসহ সারাদেশে ভারী বৃষ্টি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুতে ইতিবাচক মিয়ানমার চীনা গণমাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর চীন সফর
  • রোববার ১৪ জুলাই ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৩০ ১৪৩১

  • || ০৬ মুহররম ১৪৪৬

ভারতের চোরাই মোবাইল আসে চট্টগ্রামে, নেপথ্যে যারা

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ৯ জুলাই ২০২৪  

ঘটনাটি বেশ কয়েকদিন আগের। পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় নিজের ব্যবহৃত আইফোন ১৪ প্লাস মোবাইল হারান দীপান্বিতা সরকার নামে এক নারী। এ ঘটনায় সেখানকার থানায় জিডি করেন তিনি। পরবর্তীতে প্রযুক্তির কল্যাণে দীপান্বিতা জানতে পারেন- তার হারানো মোবাইলটি সচল রয়েছে চট্টগ্রামে।

এরপর তিনি যোগাযোগ করেন  চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে। যেই কথা, সেই কাজ; দীপান্বিতার দেওয়া তথ্যে মোবাইলটি উদ্ধারে অভিযানে নামে সিএমপির গোয়েন্দা পুলিশ। শনাক্ত করে চোরাই মোবাইল বেচাকেনা চক্রের হোতাসহ কয়েকজনকে। কিন্তু এরমধ্যেই বিষয়টি টের পেয়ে যান হোতা। ফলে দীপান্বিতার মোবাইলটি কৌশলে পুলিশের কাছে পৌঁছে দিয়ে সটকে পড়েন তিনি। পরে মোবাইলটি ফিরিয়ে দেওয়া হয় কলকাতায় দীপান্বিতার কাছে।

সোমবার এসব তথ্য জানান সিএমপির এডিসি (মিডিয়া) কাজী মোহাম্মদ তারেক আজিজ। এর আগে, শনিবার নগরের কোতোয়ালি থানার রিয়াজউদ্দিন বাজারের তামাকুমন্ডি লেন থেকে মোবাইলটি উদ্ধার করা হয়। পরে রোববার আইনি প্রক্রিয়া মেনে সেটি কলকাতায় পৌঁছে দেওয়া হয়।

এডিসি কাজী মোহাম্মদ তারেক আজিজ বলেন, ঐ নারীর দেওয়া তথ্যে মোবাইলটি উদ্ধারে কাজ শুরু করে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। মোবাইলটিতে কোনো সিম প্রবেশ না করালেও নানা কৌশলে কাজ করে চার ব্যবসায়ীকে শনাক্ত করা হয়। যারা ভারত থেকে চোরাইপথে মোবাইল এনে রিয়াজউদ্দিন বাজারের তামাকুমন্ডি লেনে বিভিন্ন খুচরা দোকানদারের কাছে পৌঁছে দেন এবং নিজেরাও খুচরায় বিক্রি করেন। চক্রটির হোতাকে টার্গেট করে অভিযানের পরিকল্পনা করছিল পুলিশ, এরমধ্যে বিষয়টি বুঝতে পেরে এক ব্যবসায়ীর মাধ্যমে মোবাইলটি পুলিশের কাছে পৌঁছে দিয়ে পালিয়ে যান তিনি।

এডিসি বলেন, চক্রটি ভারতের সব চোরাই মোবাইল চট্টগ্রামে আনে এবং বাংলাদেশের চোরাই দামি মোবাইল ভারতে ও ভুটানে পাঠিয়ে থাকে। চক্রের সদস্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে, মোবাইল ফিরে পেয়ে  চট্টগ্রামের পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান ভারতীয় নাগরিক দীপান্বিতা সরকার।

তিনি বলেন, আমার আইফোন ১৪ প্লাস ফোনটি ছিনতাই হয় কলকাতার মহেশতলা থানার জিঞ্জিরা বাজার থেকে। এরপর আমি জিডি করি এবং ট্র্যাক করে দেখি ফোনটি বাংলাদেশের চট্টগ্রামে চলে গেছে। পরে আমি  চট্টগ্রামের পুলিশের কয়েকটি স্টেশনে যোগাযোগ করি। এরমধ্যে  চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের ফেসবুক পেজে মেসেজ দিয়ে আমি রেসপন্স পাই। যেটি আমার কাছে একদমই অনাকাঙ্খিত ছিল। পরে তাদের ঘটনা খুলে বলি। 

 

তিনি বলেন, ‘আমার ফোনটি উদ্ধারে এসআই রবিউল ইসলামকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। ফাইনালি  চট্টগ্রাম থেকে রবিউল এবং তার দলের সহায়তায় ফোনটি উদ্ধার হয়েছে। আমি চট্টগ্রাম পুলিশের সহায়তায় ফোন হাতে পেয়েছি। আমি বলে বোঝাতে পারবো না, আমি কতখানি কৃতজ্ঞ চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের প্রতি। আমি হৃদয়ের অন্তস্থল থেকে রবিউল দাদাকে কৃতজ্ঞতা জানাই জিনিসটিকে গুরুত্ব দেওয়ার জন্য।’

 চট্টগ্রামের নাগরিকদের পুলিশের ওপর ভরসা রাখার আহ্বান জানান দীপান্বিতা। বলেন, ‘আমি সবার কাছে বলতে চাই- চট্টগ্রাম পুলিশের ওপর আপনারা বিশ্বাস রাখুন। তাদের কাজকর্মের ধরণ আউটস্ট্যান্ডিং। আমি বিনা খরচেই ফোনটি হাতে পেয়েছি। আমি অবশ্যই বলবো এসব ক্ষেত্রে লেগে থাকতে।’