ব্রেকিং:
ভুল নীতিতে ডুবছে পাকিস্তান, সঠিক নীতিতে এগোচ্ছে বাংলাদেশ চলমান ‘লকডাউন’ ২৩ মে পর্যন্ত বাড়ছে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর নামে সড়ক, শেখ হাসিনার নামে বাড়ি ফিলিস্তিনে পশ্চিমবঙ্গে লকডাউন, বাংলাদেশিদের রবিবার থেকে এনওসি দেওয়া হবে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের চার দশক পূর্তিতে তথ্যচিত্র ধেয়ে আসছে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘টাউকটে’ তিন ওয়ানডে খেলতে ঢাকায় শ্রীলংকা ক্রিকেট দল ইসরায়েলকে সমর্থন জানিয়ে বাইডেনের ফোন ফিলিস্তিনে ইসরায়েলের হামলায় নিহত বেড়ে ১৪৯ ফের বাড়ল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি ঈদ উপলক্ষে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের প্রধানমন্ত্রীর উপহার আরো সাতদিন বাড়ছে লকডাউন, রোববার প্রজ্ঞাপন করোনায় ভাই হারালেন মমতা ব্যাংক-বিমা ও শেয়ারবাজার খুলছে কাল গাজায় ৪০ মিনিটে ৪৫০ ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ল ইসরায়েল স্বাস্থ্যবিধি পালনে সর্বোচ্চ সতর্কতার আহ্বান কাদেরের দেশেই টিকা উৎপাদনের ব্যবস্থা নিয়েছি: প্রধানমন্ত্রী উপকূলের ঘরে ঘরে ডিজিটাল ব্যাংক ভারতে আটকে পড়া বাংলাদেশিদের ফেরার ব্যবস্থা ঈদের পর বঙ্গবন্ধু সেতুতে টোল আদায়ের সর্বোচ্চ রেকর্ড
  • রোববার   ১৬ মে ২০২১ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ২ ১৪২৮

  • || ০৩ শাওয়াল ১৪৪২

ভালো নেই কুমিল্লার ৩০ হাজার বাস শ্রমিক

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ৪ মে ২০২১  

ভালো নেই কুমিল্লার ৩০ হাজারের বেশি বাস শ্রমিক। আয় না থাকায় হতাশায় দিন পার করছেন তারা। এদিকে বাস মালিকরাও এসব শ্রমিক ধরে রাখতে পারবেন কিনা তা নিয়ে দু:চিন্তায় রয়েছেন। অনেকে জীবন জীবিকার প্রয়োজনে পেশা পরিবর্তন করছেন।
বাস মালিক ও শ্রমিকদের সূত্র জানায়, কুমিল্লা নগরীর শাসনগাছা,জাঙ্গালিয়া ও চকবাজার থেকে জেলার ভেতরে এবং দেশের বিভিন্ন রুটে বাস চলাচল করে। এখানের বাস গুলোতে ২০ হাজারের বেশি বাস চালক,সুপার ভাইজার ও হেলপার কাজ করেন। এছাড়া রয়েছেন কাউন্টারের দায়িত্বে থাকা লোকজন। এদিকে নগরীর তিনটি বাস টার্মিনাল ছাড়াও জেলার পদুয়ার বাজার, মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ, লাকসাম, চৌদ্দগ্রাম, নাঙ্গলকোট, দাউদকান্দি, বরুড়া, চান্দিনা সদর থেকে বিভিন্ন স্থানে বাস চলাচল করে। সেখানেও ১০ হাজারের বেশি শ্রমিক কাজ করেন। এদিকে টার্মিনাল গুলোতে এখন আগের মতো নেই হাঁকডাক,চারদিকে সুনশান নিরবতা।
কুমিল্লা জেলা বাস ও মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়ন সভাপতি মোহাম্মদ আলী বলেন,জেলায় ৩০হাজারের বেশি বাস শ্রমিক রয়েছে। এবার তারা ঈদে সন্তানদের নতুন জামা দূরে থাক পরিবারের খাবারও জোটাতে পারছে না। তারা না পারছে কাজ করতে, না পারছে হাত পাততে। জেলার ভেতরে বাস চলাচলের কথা বলা হলেও তাতে অধিকাংশ শ্রমিকই কাজ পাবে না। স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস চলাচল উন্মুক্ত করার দাবি জানান তিনি।
কুমিল্লা মোটর এসোসিয়েশন (বাস মালিক সমিতি) সভাপতি জামিল আহমেদ খন্দকার ও সেক্রেটারি তাজুল ইসলাম বলেন,এখন বাস মালিক ও শ্রমিকদের দুর্দিন চলছে। আমরা ব্যক্তিগত ভাবে শ্রমিকদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছি। তবে তা যথেষ্ট নয়। তাদের বেশি আরো সহযোগিতার জন্য এমপি মহোদয় ও প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করেছি।