ব্রেকিং:
আবারও রাখাইন ছেড়েছে ৪৫ হাজার রোহিঙ্গা আরাকান আর্মির গুলিতে বাংলাদেশি নিহত তারেক জিয়াকে কি দেশে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে? দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর পাঁচ নির্দেশনা মুম্বাইয়ের তাজ হোটেল ও এয়ারপোর্ট উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি তারেককে ফেরাতে ব্রিটিশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা চলছে : প্রধানমন্ত্রী বেনজীর আহমেদ কি গ্রেপ্তার হতে পারেন? বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী দিবসে যোগ দেবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড় রেমাল: রাজধানীতে উর্ধ্বমুখী কাঁচা বাজার ফিলিস্তিন রাষ্ট্র না থাকলে ইসরায়েলের অস্তিত্ব থাকতে পারে না: সৌদি স্ত্রীর নামে প্রতিদিন গড়ে ১৫.১৬ শতাংশ জমি কিনেছে বেনজীর তারেককে ফিরিয়ে এনে সাজা কার্যকর করব: প্রধানমন্ত্রী ধর্মনিরপেক্ষতা মানে ধর্মহীনতা নয়: প্রধানমন্ত্রী কেন সাধারণ বমরা বর্জন করেছে কেএনএফকে? কলাপাড়ায় প্রস্তুত ১৫৫ আশ্রয়কেন্দ্র ও ২০ মুজিব কিল্লা ঢাকায় কোনো বস্তি থাকবে না, দিনমজুররাও ফ্ল্যাটে থাকবে সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত নজরুলের লেখনীতে ফুটে ওঠে আর্ত-পীড়িত মানব মনের কথা বন্ধুরাষ্ট্রের কাছে কথিত এমপিরাও নিরাপদ নয়: ফখরুল বঙ্গোপসাগরে ঘাঁটি বানাতে দিচ্ছি না বলেই কিছু সমস্যা হচ্ছে
  • বৃহস্পতিবার ৩০ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৬ ১৪৩১

  • || ২১ জ্বিলকদ ১৪৪৫

ভাসানচরের সহায়তা কার্যক্রমে সন্তুষ্ট জাতিসংঘের প্রতিনিধিদল

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১১ সেপ্টেম্বর ২০২৩  

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার ভাসানচরের সহায়তা কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব কান্নি উইগনারাজাসহ জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) ৯ সদস্যদের প্রতিনিধিদল।

রোববার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ভাসানচরে শরণার্থী, ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন (আরআরআরসি) কার্যালয়ের অফিস কক্ষে আলোচনা সভায় এ সন্তোষ প্রকাশ করেন।

 

এ সময় অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (ভাসানচর) মো. মাহফুজার রহমান (উপসচিব), ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইনচার্জ তরিকুল ইসলাম, ভাসানচর আশ্রয়ণ প্রকল্পের পিডি ক্যাপ্টেন মো. হাবিব- উল-আলম,  ভাসানচর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ডিপিডি কমান্ডার মোহাম্মদ আনোয়ারুল কবির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব কান্নি উইগনারাজা বলেন, ভাসানচর অনেক গুছানো ও পরিপাটি। এখানে চলমান মানবিক সহায়তা কার্যক্রমসমূহ সন্তোষজনক। ভাসানচর রোহিঙ্গাদের বসবাসের জন্য উপযোগী।

অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (ভাসানচর) মো. মাহফুজার রহমান (উপসচিব) ঢাকা পোস্টকে বলেন, জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব কান্নি উইগনারাজাসহ ৯ সদস্যের একটি দল ভাসানচর পরিদর্শন করেছেন। প্রতিনিধিদল প্রথমেই অতিরিক্ত শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার কার্যালয়ে একটি মতবিনিময় সভায় মিলিত হয়। সেখানে আমি ভাসানচর সম্পর্কে একটি চিত্র তুলে ধরি। পরে প্রতিনিধিদল ব্র্যাক ও প্রত্যাশী কর্তৃক পরিচালিত লাইভিহুড কার্যক্রম, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম, ২০ শয্যাবিশিষ্ট সরকারি হাসপাতাল এবং বিশ্বখাদ্য কর্মসূচি পরিচালিত ই-ভাউচার শপ পরিদর্শন করে।

তিনি আরও বলেন, পরিদর্শন শেষে জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব কান্নি উইগনারাজাসহ প্রতিনিধিদল ভাসানচরের সহায়তা কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করে এবং ভাসানচর পরিপাটি ও থাকার উপযোগী বলে মন্তব্য করে। প্রতিটি স্থানে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলাপ করেই এমন সন্তোষ প্রকাশ করেছেন তারা। শেষে তারা বিমানবাহিনীর একটি বিমানে করে ভাসানচর ত্যাগ করেন।

dhakapost

এর আগে রোববার জাতিসংঘের প্রতিনিধিদল বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টারযোগে হরেন্দ্র মার্কেট এলাকায় অবতরণ করে। সেখানে উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুরাইয়া আক্তার লাকী ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহবুব মোর্শেদ লিটন তাদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। পরে জাতিসংঘের প্রতিনিধিদল সেলিম বাজার বেড়িবাঁধ এলাকায় বিভিন্ন জেলে পরিবারের সুযোগ-সুবিধা নিয়ে তাদের সঙ্গে কথা বলেন এবং বিভিন্ন সমস্যা-সম্ভাবনার গল্প শুনেন। এ সময় জেলেরা শিক্ষা, চিকিৎসা ও যাতায়াত নিয়ে বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরেন। পরবর্তীতে বিদ্যুৎ অফিসের কনফারেন্স রুমে উপজেলার সকল সরকারি, বেসরকারি চাকরিজীবী ও কৃষক-শ্রমিকসহ সর্বস্তরের মানুষের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। মতবিনিময় সভা শেষে জাতিসংঘ হাতিয়ার পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে সহযোগিতা করবে বলে জানান।

হাতিয়া উপজেলার চেয়ারম্যান মাহবুব মোর্শেদ লিটন ঢাকা পোস্টকে বলেন, জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব কান্নি উইগনারাজাসহ জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) ৯ সদস্যদের প্রতিনিধিদল হাতিয়ার জেলেদের জীবনযাত্রার মান দেখতে আসে। তারা জেলে নারীদের ক্ষমতায়ন ও সরকারি ভাতা পান কিনা সে বিষয়ে খবর নেন। মতবিনিময় সভা শেষে জাতিসংঘ হাতিয়ার পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে সহযোগিতা করবে বলে জানায়।

হাতিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুরাইয়া আক্তার লাকী ঢাকা পোস্টকে বলেন, জেলেরা নদী ভাঙনের কথা জানান এবং তাদের শিক্ষা, চিকিৎসাসহ বিভিন্ন সুবিধা অসুবিধার কথা প্রতিনিধিদলকে জানিয়েছেন। প্রতিনিধিদল সব শ্রেণি-পেশার মানুষের অংশগ্রহণে কাঙ্ক্ষিত জীবনমানের উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছে।

প্রসঙ্গত, কক্সবাজারে চাপ কমাতে সরকার এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। গত বছরের ডিসেম্বর রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে সরিয়ে নেওয়া শুরু হয়। এ পর্যন্ত বিভিন্ন দফায় মিয়ানমারের ৩২ হাজারের অধিক রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে নেওয়া হয়েছে। সরকার নিজস্ব অর্থায়ন এবং দেশি-বিদেশি সাহায্য সংস্থাকে যুক্ত করে ভাসানচরের রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে।