ব্রেকিং:
কুমিল্লায় শ্যামলী পরিবহনের বাসচাপায় নিহত ৩ কুমিল্লায় গ্রাহকদের ৪০ কোটি টাকা নিয়ে কোম্পানি উধাও ড্রিমলাইনার ‘রাজহংস’ এখন ঢাকায় দাউদকান্দিতে প্রতিবন্ধি কিশোরীকে ধর্ষণ: মামলা দায়ের লালমাই আ.লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন আগে খাল উদ্ধার তারপর চালু হবে ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট : তাজুল ইসলাম সংবাদকর্মীদের বেতন বাড়ল ৮৫ শতাংশ ফার্ম করে স্বাবলম্বী এক ঝাঁক তরুণ মুরাদনগরে শিশু ধর্ষনের ঘটনায় মাতব্বর গ্রেফতার হাজার কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে ইউএই সোয়া কোটি টাকা লুটের অভিযোগে প্রতারক জামাল গ্রেফতার প্রাইভেটের পথে স্কুল ছাত্রীকে ছুরিকাঘাত ব্রাহ্মণপাড়ায় গ্রেফতার চার আসামি কারাগারে প্রধানমন্ত্রী পুলিশের প্যারেড পরিদর্শন করবেন আজ আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন ডিসেম্বরে শোভন-রাব্বানী বাদ, ছাত্রলীগের দায়িত্বে নাহিয়ান-লেখক কুমিল্লার ভারতীয় সীমান্ত থেকে চোরাইমালসহ ২ জন আটক আন্তর্জাতিক কোরআন প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় কুমিল্লার শিহাব লাকসামে অস্ত্রসহ কিশোর গ্যাংয়ের ছয় সদস্য আটক বদলে যাচ্ছে কারিগরি শিক্ষা, ৪০০ কোটি টাকার পরিকল্পনা

সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯   ভাদ্র ৩১ ১৪২৬   ১৬ মুহররম ১৪৪১

কুমিল্লার ধ্বনি
৭১

মাঝ সাগরে জাহাজে কী সেই রহস্য!

প্রকাশিত: ১১ জুন ২০১৯  

অবাক পৃথিবীতে কতোই না রহস্য রয়েছে। এর অনেকগুলো এখনো ভেদ করা সম্ভব হয়নি। তেমনি এক রহস্য রয়েছে ‘মেরি সেলেস্ট’ জাহাজকে ঘিরে। এই জাহাজের ভাগ্যে কি জুটেছিল, যেটি পৃথিবীতে অন্যতম রহস্যময় ঘটনা হিসেবে প্রাধান্য পেয়েছে। এবার সেই ঘটনাই জানা যাক।

রহস্যে ঘেরা এই জাহাজটির প্রথম নাম ছিল ‘আমাজন’। এটি ১৮৬০ সালের শেষের দিকে নোভা স্কোশিয়ার ‘বে অফ ফান্দি’র পাড়ে স্পেনসার দ্বীপে তৈরি করা হয়। পরে জাহাজটি মার্কিন এক বণিকের কাছে বিক্রি করা হয়। এর নতুন নাম হয় ‘মেরি সেলেস্ট।

জানা যায়, ১৮৭২ সালের ৭ নভেম্বর ক্যাপ্টেন বেঞ্জামিন ব্রিগস তার স্ত্রী, সন্তান এবং ৭ জন নাবিককে নিয়ে নিউইয়র্ক থেকে জিনোয়ার উদ্দেশে যাত্রা করেন। মাঝ পথে তাদের প্রবল ঝড় এবং ভয়ঙ্কর ঢেউয়ের মুখোমুখি হতে হয়। কিন্তু এত বিপদে পড়েও কোন রকম ক্ষতি হয়নি জাহাজটির।

পরে ১৮৭২ সালের ৫ ডিসেম্বর পর্তুগালের তট থেকে প্রায় দেড় হাজার কিলোমিটার দূরে অতলান্তিক মহাসাগরে আজর দ্বীপের কাছে ব্রিটিশ জাহাজ ‘দি গ্রাসিয়া’ এর নাবিকরা দেখতে পায় জাহাজটিকে। ফাঁকা জাহাজ দেখে সন্দেহ হয় নাবিকদের। দেখা যায়, জাহাজটিতে ছয় মাসের খাবার থেকে শুরু করে নাবিকদের জামাকাপড় সবই সঠিক অবস্থায় রয়েছে। নেই শুধু কোনো মানুষের চিহ্ন। আশ্চর্যজনকভাবে নিখোঁজ ছিল একটি লাইফ বোটও।

গ্রাসিয়ার ক্যাপ্টেন পরে জানিয়েছিলেন, এই ভুতুড়ে জাহাজে তিনি বা তার সহকর্মীরা কাউকেই দেখতে পাননি। শুধু জাহাজের নীচে কিছুটা পানি জমে থাকতে দেখেন। সে সময় মেরি সেলেস্ট জাহাজটিকে নিয়েই ‘দি গ্রাসিয়া’ জিব্রাল্টারের উদ্দেশে রওনা হয়।

জাহাজটিকে ঘিরে রহস্যের জট এ কারণেই যে, এর কোন ধরনের ক্ষয়ক্ষতি না হওয়া। অথচ জাহাজটিতে কেন কেউ ছিলেন না- তা নিয়ে শুরু হয় নানা জল্পনা-কল্পনা। নানা তত্ত্ব সামনে আসতে থাকে। যদিও ধারণাগুলোর সমর্থনে কোন প্রমাণ মেলেনি।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর