ব্রেকিং:
আবরার হত্যায় রুমমেট মিজান পাঁচ দিনের রিমান্ডে সড়ক পরিবহন আইন কার্যকর ১ নভেম্বর থেকে ধরা খেয়ে ৫১ লাখ টাকা দেনমোহরে বিয়ে করলেন পুলিশ কর্মকর্তা মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ হলেন শিরিন আক্তার শিলা বিকাশের দোকানে ক্যাসিনো ব্যবসা, আটক ৫ সরকারি জমিতে বস্তি, নিয়ন্ত্রণ বেসরকারি বিসিবির আশ্বাসে ক্রিকেটারদের আন্দোলন স্থগিত ক্যাসিনোকাণ্ড: দুই এমপিসহ ২২ জনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা রেমিট্যান্স আয়ে এগিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের প্রবাসীরা বিমান উড্ডয়নে যত্নবান হতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ব্রাহ্মণপাড়ায় শিক্ষার্থীদের ওপর বহিরাগতদের হামলা ৪ কি. মি. জ্যামের নেপথ্যে.. এলাকাবাসীর হাতে ইয়াবা সম্রাট আটক পেঁয়াজের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিতে বিশেষ অভিযান সংস্কারের অভাবে সড়কের বেহাল দশা কোটি টাকা নিয়ে উধাও এনজিও! ইসলামের বিরুদ্ধে কটুক্তিকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি সেতুর অভাবে ভোগান্তিতে ২০ হাজার মানুষ পুলিশের সাথে সাংবাদিকদের মতবিনিময় আত্মহত্যা নাকি পরিকল্পিত হত্যা?

বৃহস্পতিবার   ২৪ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৮ ১৪২৬   ২৪ সফর ১৪৪১

কুমিল্লার ধ্বনি
৮৩১

মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশনে আপত্তি, নার্সকে পেটাল ফার্মেসির লোক

প্রকাশিত: ২৫ জুন ২০১৯  

রাজধানীর উত্তরার ‘উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশনে আপত্তি করায় সিনিয়র স্টাফ মেল নার্স মনিরুল ইসলামের ওপর ফার্মেসির লোকেরা হামলা চালিয়েছে।

উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আহত ওই সিনিয়র স্টাফ নার্স ‘বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন’র উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান বলে জানা গেছে।

পরবর্তীতে জড়িতদের বিচারের দাবি ও হামলার প্রতিবাদে রাত ৮টা থেকে হাসপাতালের নার্সরা তাদের কার্যক্রম বন্ধ করে জরুরি বিভাগের পাশের রাস্তায় অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে।

এদিকে হামলার পর নার্সদের কার্যক্রম বন্ধ করে অবস্থান কর্মসূচিতে একাত্মতা প্রকাশ করেছেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

আধুনিক হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. মো. জাকির হোসেন বলেন, অতর্কিত হামলায় মনিরুলের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তিনি বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ বিষয়ে হাসপাতালটির সাধারণ সম্পাদক মো. ফয়সাল কবীর বলেন, ঘুমের ইনজেকশনে মেয়াদের তারিখ না থাকায় রোগীর স্বজনকে পরিবর্তন করে আনতে পাঠানো হয়। এর জেরে হঠাৎ করেই হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সিনিয়র স্টাফ নার্স মনিরুল ইসলামের ওপর হামলা চালায় ফার্মেসির লোকজন। হামলায় ‘কাকরাইল ফার্মেসি’র ১০ থেকে ১২ লোক ছিল।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, মনিরুলকে মারধরের সময় হামলাকারী বলতে থাকে, ‘তোরা কি জানিস না এটা যে কাকরাইল ফার্মেসির ইনজেকশন। জানার পরও কেন পরিবর্তনের জন্য পাঠালি?’

অবস্থানরত নার্সরা বলেন, নার্সের ওপর অন্যায়ভাবে হামলা চালানো হয়েছে। আমরা এর সুষ্ঠু বিচার চাই। 

নার্সদের অবস্থান কর্মসূচির কারণে বিপাকে পড়েছেন হাসপাতালের রোগীরা।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর