ব্রেকিং:
বিএনপি উন্নয়নেও নেই, দুর্দিনেও নেই ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের কারিকুলাম পরিবর্তন করতে হবে’ দেশে একদিনে আরো ৫৫ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ২৭৩৮ ‘মাধ্যমিকে সাইন্স, আর্টস, কমার্স নামে বিভাজন থাকবে না’ আগামী সাড়ে তিন বছরে ফরিদগঞ্জের কোনো কাজই বাকি থাকবে না `প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা` তালিকা নিয়ে আইনমন্ত্রীর ক্ষোভ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১০ শয্যার সেন্ট্রাল অক্সিজেন সরবরাহ চাঁদপুরে নতুন ৩২ জনের করোনা পজিটিভ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনায় আক্রান্ত বেড়ে ১১৭৮ কুমিল্লায় আরো ৮৬ জন করোনায় আক্রান্ত চামড়াশিল্প রক্ষায় আসছে একগুচ্ছ প্রণোদনা সবাই মাস্ক পরলে ৯০ ভাগ করোনা নিয়ন্ত্রণ সম্ভব জমির রেজিস্ট্রেশন ফি কমল ত্রাণ পেয়েছে ৭ কোটি ৩৫ লাখ মানুষ কোভিড-১৯ চিকিৎসা শুরু করছে বিএসএমএমইউ দেশে একদিনে আরো ২৯ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৩২৮৮ প্রতিবন্ধকতা না এলে ডিসেম্বরেই মিলবে দেশের করোনা ভ্যাকসিন চলতি মাসেই জুনের বেতন পাবেন রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকরা অন্য দেশের চেয়ে বাংলাদেশে করোনা পরিস্থিতি ভালো করোনাকালে অর্থনীতির চাকা সচল রাখছে আইসিটি খাত
  • রোববার   ০৫ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২১ ১৪২৭

  • || ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪১

৫৩৫

যে মাছ দেখামাত্র মেরে ফেলার পরামর্শ!

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০১৯  

নাম স্নেক হেড। নামেও আজব, স্বভাবেও। যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়ায় শিকারী এক ব্যক্তি এই সাস্নেকহেড মাছটি প্রথম দেখতে পান গুইনেট কাউন্টির একটি পুকুরে। 

এরপর জর্জিয়া প্রাকৃতিক সম্পদ, বন্যপ্রাণ সম্পদ বিভাগের পক্ষ থেকে ওই মৎস্যজীবীকে ধন্যবাদ জানান বিভাগীয় মুখপাত্র ম্যাট টমাস। তিনি বলেন, ওই মৎস্যজীবীর বার্তা পেয়েই তাদের কর্মীরা ওই পুকুরে গিয়ে তদন্ত করে নিশ্চিত হন সেখানে ওই প্রজাতির মাছের অস্তত্ব নিয়ে।

প্রাণীবিজ্ঞানীরা বলছেন, মূলত পূর্ব এশিয়ার বাসিন্দা সরু আকার, কালচে খয়েরি রং'র স্নেক হেড মাছ প্রায় তিন ফুট পর্যন্ত লম্বা হয়। ওজন প্রায় ১৮ পাউন্ড। মুখে সরু, তীক্ষ্ণ দাঁতের সারি। এরা টানা চার দিন মড়ার মতো পড়ে থেকে ডাঙাতেও বেঁচে থাকতে পারে এবং খোলা বাতাসে শ্বাস নিতে পারে যদি কোনও স্যাঁতস্যাঁতে জায়গায় থাকে। খরার সময় মাটির ভিতর ঢুকে নিজের জীবন রক্ষা করতে পারে এরা। 
সাধারণত যে জলাশয়ে এরা জন্মায় সেখানের প্রাণীজগতের পক্ষে ক্ষতিকারক হয় এরা। কারণ এদের খাবার ছোট মাছ, কীটপতঙ্গ থেকে ছোট ইঁদুর, উভচর প্রাণী। পুষ্টিদায়ক খাদ্য হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রেস্তোরাঁয় এই মাছ পাওয়া যেত। কিন্তু ২০০২ সালে যুক্তরাষ্ট্রের মৎস্য এবং বন্যপ্রাণ পরিষেবা দফতর স্নেক হেড মাছকে বন্যপ্রাণের পক্ষে ক্ষতিকারক হিসেবে ঘোষণার পর তা বন্ধ হয়।  

টমাস বলেন, তারা ইতিমধ্যেই সতর্কতামূলক বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলেছেন, যদি কোনও ব্যক্তি ওই মাছের সংস্পর্শে আসেন, তাহলে সেটিকে যেন তৎক্ষণাৎ মেরে ফেলা হয়। আপাতত ওই পুকুরের প্রাণীজগতের উপর পরীক্ষা চালানো হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ১৪টি স্টেটে স্নেক হেড মাছ পাওয়া গেলেও টমাসের আশা জর্জিয়ায় এখনই হয়ত সেভাবে বংশবিস্তার করতে পারেনি।

কুমিল্লার ধ্বনি