ব্রেকিং:
দুধে ভেজাল আছে কি-না পরীক্ষা করুন এই উপায়ে অবৈধ ডিটিএইচ সংযোগ ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে সরানোর নির্দেশ বরখাস্ত হলেন কাউন্সিলর সাঈদ শাহ আমানতে সাড়ে ছয় কোটি টাকার সোনার বার উদ্ধার যুবলীগের বয়স নিয়ে সিদ্ধান্ত গণভবনে: কাদের আওয়ামীলীগ নেতার উপর বর্বরোচিত হামলা সবার আগে দৃষ্টি দুই নারী ব্যবসায়ীসহ গ্রেফতার ৫ চালকদের ডোপ টেস্ট করেছে হাইওয়ে পুলিশ অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি উত্তোলনে জরিমানা বেতন ভাতা উন্নীতকরণের দাবিতে মানববন্ধন শাসনগাছার খাজা হোটেলকে জরিমানা এ সমস্যা সমাধানে সম্মিলিত প্রচেষ্টা জরুরী গোপন অভিযানে চোরাইচক্রের মূল হোতা আটক পাঠক শূন্য কুমিল্লার পাঠাগার বাবাকে বাঁচাতে কুবি শিক্ষার্থীর আকুতি অবৈধ ড্রেজার মেশিনে হুমকীর মুখে সরকারি খাল নবাগত ওসি’র চমক, এক রাতেই ৯ পলাতক আসামি আটক স্কাউটিংই পারে ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে গড়ে তুলতে থানার পাশেই অবৈধ অস্ত্র

শনিবার   ১৯ অক্টোবর ২০১৯   কার্তিক ৩ ১৪২৬   ১৯ সফর ১৪৪১

কুমিল্লার ধ্বনি
৬৭৬

লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩০ কোটিরও বেশী আয়কর আদায়

প্রকাশিত: ৩ অক্টোবর ২০১৯  

৬টি জেলা নিয়ে গঠিত কর অঞ্চল কুমিল্লায় বিগত দু মাসেই জাতীয় রাজস্ব বোর্ড নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে আরো বেশী আয়কর আদায় হয়েছে। যা অতীতের তুলনায় রাজস্ব বৃদ্ধি ও রেকর্ড গড়েছে। কঠোর পরিশ্রমের জন্য কর অঞ্চলের ২২টি কর সার্কেলের ডেপুটি কমিশনারবৃন্দ এবং রেঞ্জ কর্মকর্তাগণকে ধন্যবাদ জানান কর অঞ্চলের কমিশনার এম এম ফজলুল হক।

কর অঞ্চলের সম্মেলন কক্ষ ‘ময়নামতি’তে কর কমিশনার এর সভাপতিত্বে ২ অক্টোবর অনুষ্ঠিত গুরুত্বপূর্ণ রাজস্ব সভায় এসব তথ্য উপস্থাপিত হয়। সভায় কর দাতাবৃন্দের জন্য সেবা বৃদ্ধির লক্ষ্যে পূর্ববর্তী রাজস্ব সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তবলীর বাস্তবায়ন অগ্রগতি পর্যালোচিত হয়। কর পরিশোধের জন্য করদাতাবৃন্দকে ধন্যবাদ জানাতেও কর কমিশনার সকলকে অনুরোধ জানান। করবান্ধব পরিবেশে সেবার মানোন্নয়নের মাধ্যমে করদাতাদের মনজয় করতেও তিনি কর্মকর্তাদের পরামর্শ প্রদান করেন।

সভায় জানান হয়, লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩০ কোটি টাকারও বেশী আয়কর রাজস্ব আদায় ছাড়াও সংশ্লিষ্টদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় কর জরীপের মাধ্যমে দু’মাসে রেকর্ড সংখ্যক প্রায় ৭,০০০ নতুন করদাতা করনেটে সংযুক্ত হয়েছেন। উল্লেখ্য,পূর্ববর্তী ২০১৮-১৯ বছরে সাকুল্যে ২৫,০০০ জন নতুন করদাতা কর নেটভূক্ত হন।

কর মামলার নিরীক্ষা ও নিষ্পত্তি কার্যক্রমে কয়েকগুণ গতিবৃদ্ধি হওয়ায় সৃষ্ট দাবী আদায়ে মনোযোগী হতেও কর কমিশনার সকলকে অনুরোধ জানান। বহু করদাতাই রিটার্ন খেলাপী হওয়ায় আলোচ্যবর্ষে রেকর্ড সংখ্যক রিটার্ন দাখিলে উদ্ধুদ্ধকরণের মাধ্যমে উৎসবের পরিবেশে ১৪-১৮ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ফলপ্রসূ কর মেলা আয়োজনেও সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশনা প্রদত্ত হয়। সংশ্লিষ্ট ৬টি জেলা ও উপজেলায় অনুষ্ঠিতব্য কর মেলার বিস্তৃত পরিকল্পনা ও প্রস্তুতি আলোচিত হয়।

সভায় আগামী তিন মাসের রাজস্ব কার্যক্রমের দিন ভিত্তিক কর্মপরিকল্পনাসহ রাষ্ট্রীয় কর সেবা বৃদ্ধিসহ রাজস্ব কার্যক্রম নিয়ে বিস্তুৃত আলোচনা হয়। রাজস্ব সভা শেষে সুনির্দিষ্ট ৪টি বিষয়ে ডেপুটি কমিশনারবৃন্দ প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানের সভাপতি এম এম ফজলুল হক কর অঞ্চলের সকল লক্ষ্য অর্জনে অভীষ্ট থাকতে সকলকে অনুরোধ জানান। কর অঞ্চলের সকল কার্যক্রমে সকলের আন্তরিক সহযোগিতাও প্রত্যাশা করেন তিনি।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর