ব্রেকিং:
তদন্তে গাফিলতি প্রমাণিত হলে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা: রেলমন্ত্রী টুটুলের আবিষ্কার: পলিথিন থেকে জ্বালানি বাংলাদেশের ফুটবলে চমক উপহার দিতে চায় ব্রাজিল জঙ্গিবাদের রূপ দিতে আবির্ভাব হয় সাম্প্রদায়িক অশুভ শক্তি চার ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান রাজধানীতে ৫০ কোটি টাকার সাপের বিষ উদ্ধার ভারতের দূর্বল জায়গায় আঘাত করবে বাংলাদেশের স্পিন অস্ত্র! মাদকাসক্ত হলেই সরকারি কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা রিকশা চালক শিশু স্বপ্না ডাক্তার হতে চায় ১১ বছরে ৩৩৯টি কলেজ সরকারিকরণ করা হয়েছে: সংসদে শিক্ষামন্ত্রী রাজনৈতিক স্থিতিশীলতায় বাংলাদেশ এখন অনন্য উচ্চতায় রোহিঙ্গাদের ফেরাতে মিয়ানমারকে বোঝানোর জন্য চীনের প্রতি আহ্বান বৃদ্ধা মাকে সড়কে ফেলে গেলো সন্তান, ওসি দিলেন বুকে ঠাঁই জেনারেল আজিজ- একজন নিবেদিতপ্রাণ গলফার সেনাপ্রধান ‘প্রাণ-মিল্কভিটা-আড়ংসহ পাস্তুরিত সব দুধই মানহীন’ বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে লিভার প্রতিস্থাপনে সফল অস্ত্রোপচার ২০৩০ সালের মধ্যে দারিদ্র্য শূন্যের কোটায় আসবে কালো সোনা সাদা করে হাজার কোটি টাকা পাচ্ছে সরকার মেয়াদোত্তীর্ণ ইনজেকশনে আপত্তি, নার্সকে পেটাল ফার্মেসির লোক ২৮ জুন বসবে পদ্মা সেতুর ১৪তম স্প্যান

বৃহস্পতিবার   ২৭ জুন ২০১৯   আষাঢ় ১৪ ১৪২৬   ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

কুমিল্লার ধ্বনি
১৫৯৮২

শিক্ষিত যুবকদের শতভাগ চাকুরির ব্যবস্থা করা হবে- পরিকল্পনা মন্ত্রী

প্রকাশিত: ২৩ ডিসেম্বর ২০১৮  

পরিকল্পানামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এমপি বলেছেন, আগামীতে ক্ষমতায় আসলে দেশে আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করা হবে। আমরা জ্ঞান নির্ভর শিক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তুলবো। প্রত্যেকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শুধু অবকাঠামো সুবিধা নয়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রোবোটিক শিক্ষা এবং মেডিক্যাল সায়েন্স থেকে শুরু করে আধুনিক ক্লাশ রুম হবে। আমাদের শক্তি যুব সমাজ। তাদেরকে উপযুক্ত শিক্ষা ও  প্রশিক্ষণ দিয়ে দেশ পরিচালনার উপযোগী করে গড়ে তুলবো। শিক্ষিত যুবকদের শতভাগ চাকুরির ব্যবস্থা করা হবে। দুরবীন দিয়েও চাকুরি পায় নাই এমন কাউকে খুঁজে পাবেন না। আমি অনেক সৌভাগ্যবান। আমি বঙ্গবন্ধুর সান্নিধ্য পেয়েছি। এখন কাজ করছি, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে। বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথ অনুসরণ করে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আগামী প্রজন্মের জন্য আমরা শক্তিশালী ফাউন্ডেশন করে যাবো। আমি আপনাদের মন্ত্রী না। পরিবারের একজন সদস্য। আমি যতদিন বেঁচে থাকবো, আপনাদের ভালোবাসা নিয়ে বেঁচে থাকবো। আমি আপনাদের যে ভালোবাসা পেয়েছি, আপনারা বিজয়ী হবেন। আমি আমার এলাকার হাবিব উল্লা মিয়াসহ প্রত্যেকটি মানুষের সাহায্য নিয়ে লেখাপড়া করেছি। ২০০৮ সাল থেকে ২০১৮সাল। ১০টি বছর। ২০০৮সালে নাঙ্গলকোট আমার জন্য নতুন এলাকা ছিল। গত ১০বছর পূর্বে আমি যখন এ এলাকায় আসি, তখন আমার চিন্তা ছিল, আপনাদের মন জয় করবো। আল্লাহর রহমতে আমি আপনাদের মন জয় করেছি। আগামীতে আবার দায়িত্ব পেলে নতুন-নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী গতকাল শনিবার নাঙ্গলকোটের ময়ুরা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে নির্বাচনী পথ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। 

পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, প্রত্যেকটি গ্রামকে শহরে রুপান্তর করা হবে। আমাকে একটি ভোট দিলে সেটি প্রধানমন্ত্রী পাবে। বাংলাদেশ সম্পর্কে সারা বিশ্বের মানুষের চিন্তা চেতনা পাল্টে গেছে। আগামী পাঁচ বছরে বাংলাদেশকে আমরা আরো বিকশিত করে ১০গুণ উন্নয়ন বাড়িয়ে দেবো। তাছাড়া শিল্প, কর্ম ও ব্যবসা বান্ধব অর্থনীতি গড়ে তুলবো। আমাদের অগ্রযাত্রাকে এগিয়ে নেবো। যারা কর দেয়ার যোগ্য তাদেরকে করের আওতায় আনা হবে। করের হার কমানো হবে। সামাজিক নিরাপত্তা বিস্তার লাভ করবে। বাংলাদেশকে এগিয়ে নেয়ার লক্ষ্যে আগামী ৩০ ডিসেম্বর দলমত নির্বিশেষে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় যাওয়ার সুযোগ করে দিবেন। নাঙ্গলকোটের বিভিন্ন উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, আগামীতে এ নির্বাচনী এলাকাকে এমনভাবে সাজাবো, যাতে সারা বাংলাদেশের মানুষ দেখতে আসে। নাঙ্গলকোট এলাকা ঢাকার হাতিরঝিলের মত হবে। যাতে মানুষ দেখতে আসে। এ এলাকা হবে শান্তির আভাসস্থল। আগামী পাঁচ বছরে যে সকল কাজ বাকি আছে, সকল কাজ সম্পন্ন করা হবে। নাঙ্গলকোট পৌরসভার আয়তন বৃদ্দি করা হবে। বাঙ্গড্ডা এবং বটতলী ইউনিয়নকে পৌরসভা করার দাবি উঠেছে। এগুলোর উন্নয়ন নাঙ্গলকোট পৌরসভার চাইতে কোন অংশে কম হবে না। আরো দৃষ্টি নন্দন করা হবে। একটি উন্নত দেশের রাস্তা যে রকম হয়, আমরা সে রকম রাস্তা করবো। ব্রিজ করে দেবো। কোনো বাঁশের সাঁকো থাকবে না। পরিকল্পনামন্ত্রী পথসভায় আগত বোনদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনাদের ছেলেমেয়েরা আমার ভাগিনা, ভাগনি। মামা হিসেবে আপনাদের সন্তানের দায়িত্ব আমি নেবো।

মৌকারা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ আহবায়ক এম এ মতিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পথ সভায় বক্তব্য রাখেন, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি শিল্পপতি সালাহ উদ্দিন আহমেদ, উপজেলা চেয়ারম্যান সামছুউদ্দিন কালু, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান মজুমদার, উপজেলা আওয়ামীলীগ আহবায়ক রফিকুল হোসেন চেয়ারম্যান, সদস্য সচিব অধ্যক্ষ আবু ইউসুফ, পৌর মেয়র আবদুল মালেক, জেলা পরিষদ সদস্য আবু বকর ছিদ্দিক, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবু ইউছুফ ভুঁইয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ন আহবায়ক আবুল খায়ের আবু, মৌকারা ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের, উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগ সভানেত্রী নাছরিন আক্তার মুন্নী, সাবেক মৌকারা ইউপি চেয়ারম্যান সাইফ উদ্দিন আলমগীর, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক সুমন প্রমুখ। একইদিন মন্ত্রী উপজেলার মৌকারা, হেসাখাল, মক্রবপুর ও পেড়িয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন স্থানে গণসংযোগ ও পথসভায় বক্তব্য রাখেন।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর