ব্রেকিং:
ভারতের তৈরি ভ্যাকসিন নিয়ে করোনা আক্রান্ত স্বাস্থ্যমন্ত্রী তালিকা হচ্ছে কিশোর অপরাধীদের, বাদ যাবে না ‘বড় ভাইরাও’ রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলা, আইনজীবীদের টিম গঠন করবে কমনওয়েলথ প্রাথমিকে উপবৃত্তির টাকা বিতরণ করা হবে ‘নগদে’ বিজয় দিবসের আগেই পদ্মা জয় দেশে দ্বিতীয় সাইবার ফরেনসিক ল্যাব হচ্ছে চট্টগ্রামে সাশ্রয়ী মূল্যে সবার জন্য ভ্যাকসিন নিশ্চিত করতে হবে-প্রধানমন্ত্রী বিএনপির আমলে দেশে ধর্ষণের ঘটনা বেশি হয়েছে সম্পদ ওয়াকফ করে দেবন বেগম জিয়া, বঞ্চিত হচ্ছেন তারেক-শর্মিলা! নোয়াখালীতে বিএনপি নেতার হামলায় ছাত্রলীগ নেতা গুরুতর আহত আসামিকে ছয় মাস পর পর দিতে হবে ডোপ টেস্ট কৃষকদের চাপে সংশোধন হচ্ছে ভারতের কৃষি আইন ৩ ক্ষেত্রে গুরুত্ব দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর আজ থেকে বিমানে `করোনামুক্ত` সনদ বাধ্যতামূলক ছেঁড়া পায়জামায় বিয়ের আসরে আদিত্য নারায়ণ....! আড়তে পচছে পেঁয়াজ, বাজারে কমছে দাম সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ: কেউ পারবেন সর্বোচ্চ দেড় কোটি, কেউ এক কোটি রোহিঙ্গাদের জন্য দেশের ক্ষতি হচ্ছে: কাদের হাম-রুবেলা টিকাদান শুরু ১২ ডিসেম্বর যুবলীগকে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে
  • শনিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২২ ১৪২৭

  • || ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

৫৪

সরাইল পিডিবি’র কাজে নিম্নমানের সামগ্রী

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ২১ নভেম্বর ২০২০  

সরাইল পিডিবিতে নিম্নমানের সামগ্রী ব্যবহার করে ইচ্ছামতো কাজ করছেন ঠিকাদার। ময়লাযুক্ত ৩ নম্বর ইটের দায় দিচ্ছেন নির্বাহী প্রকৌশলীর উপর। নির্বাহী প্রকৌশলীও তা মেনে নিচ্ছেন। তবে কার্যাদেশের নেই এমন কাজ নিম্নমানের ইটা দিয়ে করার কথা জানিয়েছেন তিনি।  লেপফোজ করে ১০ লক্ষাধিক টাকার কাজের বিষয়টি মানতে নারাজ স্থানীয়রা। সরজমিন দেখা যায়, সরাইল পিডিবি’র নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ের ভেতরে কাজ চলছে। ১০ লক্ষাধিক টাকার এ কাজটি করছেন মেসার্স রহমান এন্টারপ্রাইজ নামের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। স্তূপ করে রাখা হয়েছে শেওলা ও ময়লাযুক্ত কয়েক হাজার ইটা। সেই ইটা দিয়েই কাজ করছেন ঠিকাদারের লোকজন।

 

কাজ তদারকি করছেন শেখ মো. রফিক মিয়া নামের এক লোক। রফিক মিয়া ইটগুলি নিম্নমানের তা স্বীকার করে বলেন, কাজের বিষয়ে মূল ঠিকাদার ভাল বলতে পারবো। আমি মূল ঠিকাদার নয়। ইটগুলো আমরা ক্রয় করিনি। নির্বাহী প্রকৌশলী ক্রয় করে এনেছেন। এ সময় উপস্থিত নির্বাহী প্রকৌশলী নওয়াজ আহমেদ খান ইট ক্রয়ের কথা স্বীকার করে বলেন, কার্যাদেশে ইটের কথা নেই। তবুও আমি ঢালাইয়ের নিচের সলিংয়ের জন্য নিজের টাকায় ইটগুলো দিয়েছি। এগুলো তো নিচেই থাকবে। সমস্যা হবে না। অফিসের সামনের ফাঁকা জায়গা সলিং ঢালাই, পাশে শেড তৈরি, দু’টি কলাপসিবল গেইট, প্রধান ফটকের টাইল্‌স ফিটিং ও অফিসের নাম-ঠিকানা সহ অন্যান্য কিছু কাজ হবে। সব মিলিয়ে ১০ লক্ষাধিক টাকার কাজ।

কুমিল্লার ধ্বনি
সারাবাংলা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর