ব্রেকিং:
কুবিতে সাংবাদিক মারধরের ঘটনায় ৩ শিক্ষার্থী বহিষ্কার পূর্ব যে কোন সময়ের তুলনায় এই সময়ে এসিড সন্ত্রাস কমে এসেছে বসন্তের আগেই বাসন্তী সাজে কুমিল্লা ইপিজেড! পুলিশকে ভয় পাবেন না বরং তাদেরকে বন্ধু ভাবুন ছাত্রলীগ নেতার সাহসিকতায় মাদক সম্রাট আটক সরু রাস্তার কারণে লাশের খাটিয়া বহনে বিড়ম্বনা একে একে বেরিয়ে আসছে কুমিল্লায় আলোচিত ৬ হত্যাকাণ্ডের ক্লু ছাড়পত্র আনতে ক্লিনিকগুলোকে সিভিল সার্জনের চিঠি কুমিল্লা জেলা পুলিশের ৮টি সেরা পুরস্কার অর্জন মহাসড়কের সৌন্দর্য ফেরাতে ময়লা-আবর্জনা অপসারণ কুবি`র পাঁচ শিক্ষার্থী পাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক কৃষিতে বেকারত্ব নিরসনের সম্ভাবনা কুমিল্লার তরুনদের ফেব্রুয়ারিতেই চালু হচ্ছে কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিনের জাহাজ নোট-গাইড পড়ানো ও বাড়তি ফি আদায় বন্ধের নির্দেশ আউটসোর্সিংয়ে বিশ্বে দ্বিতীয় স্থানে বাংলাদেশ পণ্য কিনে প্রতারিত হলে অভিযোগ করুন এভাবে সালাত ও জাকাতে অলসতাকারীর পরিণতি ১ম পর্ব নামের মিল থাকায় জেল খাটছেন চা দোকানি বাংলাদেশের সফরের আগে লাহোরে ৩ সন্ত্রাসী গ্রেফতার অধ্যক্ষের নগ্ন ভিডিও ফাঁস, ফেসবুকে তোলপাড়

বুধবার   ২২ জানুয়ারি ২০২০   মাঘ ৯ ১৪২৬   ২৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১

কুমিল্লার ধ্বনি
২৭

সিলগালা করা হাসপাতালে অস্ত্রোপচার, প্রসূতির মৃত্যু

প্রকাশিত: ১২ নভেম্বর ২০১৯  

পাবনায় সিলগালা করা চাটমোহর ইসলামিক হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় এক প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে কথিত সার্জন সাজ্জাদ হোসেন ও তার সহযোগী আসাদুজ্জামানকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।  

সোমবার রাতে পৌর শহরের নারিকেলপাড়া মহল্লার ক্লিনিকটিতে এ ঘটনা ঘটে। মৃত তাছলিমা খাতুন উপজেলার বিলচলন ইউপির বোঁথড় গ্রামের ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী।

আটক কথিত সার্জন সাদ্দাম হোসেন বড়াইগ্রাম উপজেলার বাসিন্দা। তবে ক্লিনিক মালিক আমির হোসেন বাবলু পালিয়ে গেছেন।

মৃতের স্বজনদের বরাতে চাটমোহর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. বায়েজীদ-উল ইসলাম জানান, সোমবার তাছলিমা খাতুনের প্রসব বেদনা উঠলে সিজার অপারেশনের জন্য স্বজনরা চাটমোহর ইসলামিক হাসপাতালে ভর্তি করেন। রাত সাড়ে ৮টায় কথিত সার্জন সাদ্দাম হোসেন নীরব, ক্লিনিক মালিক আমির হোসেন বাবলু, আসাদুজ্জামান ও দুই সেবিকা মিলে অস্ত্রোপচার শুরু করেন। এতে একটি মেয়ে নবজাতক ভূমিষ্ট হয়। এ সময় প্রসূতির অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে মৃতপ্রায় প্রসূতিকে সেলাই না করে কথিত সার্জন, তার সহকারী ও ক্লিনিক মালিক পালানোর চেষ্টা করে।

তিনি আরো জানান, বিষয়টি টের পেয়ে রোগীর স্বজনরা সার্জন ও তার সহযোগীকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। পরে প্রসূতিকে উদ্ধার করে পাবনা সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চাটমোহর থানার ওসি সেখ নাসির উদ্দিন জানান, সাদ্দাম হোসেন ও তার সহকারী আসাদুজ্জামানকে আটক করা হয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে ।

চলতি বছরের ৩ জুলাই চাটমোহর ইসলামিক হাসপাতালে এনেসথেসিয়া (অজ্ঞানকারী) চিকিৎসক ছাড়া রোগীর অস্ত্রোপচার ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে অস্ত্রোপচারের কারণে ক্লিনিক মালিককে জরিমানা করেন অ্যাসিল্যান্ড ইকতেখারুল ইসলাম। এছাড়া ক্লিনিকটি সিলগালা করে দেয়া হয়। তবে কাউকে না জানিয়ে সিলগালা ভেঙে আবারো ওই ক্লিনিকে অস্ত্রোপচার শুরু করে কথিত সার্জন সাদ্দাম হোসেন ও ক্লিনিক মালিক আমির হোসন বাবলু।

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর