ব্রেকিং:
কুমিল্লা সমাবেশে রুমিনের মোবাইল ছিনতাই করল যুবদল কর্মী হাইমচরে নৌকার পক্ষে প্রচারণায় মাঠে ডা:টিপু ও মেয়র জুয়েল চাঁদপুর শহরের গ্রীণ ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা আজ বিশেষ মুনাজাতের মধ্যে শেষ হচ্ছে চাঁদপুর জেলা ইজতেমা মতলব উত্তর ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ রামপুরে বিষ প্রয়োগে অসহার কৃষকের মাছ নিধন ‘গুসি শান্তি পুরস্কার’ পেলেন শিক্ষামন্ত্রী মতলবের ধনাগোদা নদীতে কচুরিপানা জটে নৌ চলাচল বন্ধ মতলবের ধনাগোদা নদীতে কচুরিপানা জটে নৌ চলাচল বন্ধ ৩৫ বছরে শৈশবের স্বাদ, হতে চান উচ্চশিক্ষিত লক্ষ্মীপুরে ছাত্রদলের ১৫১ জনের বিরুদ্ধে মামলা দক্ষিণ আফ্রিকায় নোয়াখালীর ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা অটোরিকশা-মোটরসাইকেল সংঘর্ষ, প্রাণ গেল ২ তরুণের মুরাদনগরের সিদল যাচ্ছে বিদেশে ট্রেনে কাটা পড়ে নারীসহ ২ জনের মৃত্যু যোগাযোগ সম্প্রসারণে বাংলাদেশের সহযোগিতা চায় আমিরাত বঙ্গবন্ধু টানেলে গাড়ি চলবে জানুয়ারিতে বিদেশিদের মন্তব্যে বিরক্ত সরকার আমনের বাম্পার ফলন রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রে পরীক্ষামূলক উৎপাদন শুরু
  • রোববার   ২৭ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৩ ১৪২৯

  • || ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

হাত-পায়ে ভর দিয়ে চলা প্রতিবন্ধী আনোয়ার পেল হুইল চেয়ার

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১৬ নভেম্বর ২০২২  

মো: আনোয়ার হোসেন। অন্য সব মানুষের মতো তার আছে দু'হাত-দু'পা। তবে তার দু'হাত-দু'পা অন্য সবার মতো স্বাভাবিকভাবে কাজ করে না। হাতে-পায়ে ভর দিয়ে করতে হয় চলাচল। মানুষের সাহায্য সহযোগিতা চলে তার জীবন। আনোয়ার কুমিল্লার মেঘনা উপজেলার জয়নগর গ্রামের কৃষক মো: রব মিয়ার বড় ছেলে।

 

জানা যায়, আনোয়ার হোসেন জন্ম থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধী। ৩ ভাই ও ৩ বোনের মধ্যে তিনি সবার বড়। ৩৮ বছর ধরে হাত-পায়ে ভর করে বিভিন্ন বাজারে বাজারে সাহায্য চান তিনি। আার্থিক সংকটের জন্য কিনতে পারেন নেই একটি হুইল চেয়ার। তার এই কষ্ট দেখে হুইল চেয়ার দিয়ে তার পাশে দাঁড়িয়েছেন তিতাস উপজেলার জগতপুর ইউনিয়নের মাছুমপুর গ্রামের সমাজসেবক আল-আমিন। হুইল চেয়ার পেয়ে প্রতিবন্ধী আনোয়ার হোসেনের মুখে ফুটেছে হাসি।

 

হুইলচেয়ার পেয়ে প্রতিবন্ধী আনোয়ার এর মা বলেন, ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে আমার ছেলেটা জন্ম থেকেই প্রতিবন্ধী হলেও স্বামী-স্ত্রী মিলে কখনো তার অযত্ন বা অবহেলা করিনি। ছেলেটা ধীরে ধীরে বড় হওয়ায় অনেক কষ্ট হয় তাকে নিয়ে চলাফেরা করতে। সংসারে অভাব অনাটন থাকায় ছেলেটির একটি হুইলচেয়ার কিনে দেওয়ার মতো সামর্থ্য আমাদের ছিলো না। আজ আমার ছেলে একটা হুইলচেয়ার পেয়ে খুব খুশি। এখন থেকে ছেলের চলাফেরা করতে অনেকটা কষ্ট কম হবে এবং আমাদেরও কিছুটা কষ্ট দূর হবে।