ব্রেকিং:
এপ্রিলেই মিলবে ক্ষতিপূরণের ১২০ কোটি টাকা জাতিসংঘ শান্তিবিনির্মাণ কমিশনের সহ-সভাপতি হলো বাংলাদেশ রোজা উপলক্ষে ভারত থেকে ৩৮০০ মেট্রিক টন মসুর ডাল আমদানি বাংলাদেশ-ভারত অকৃত্রিম বন্ধু: প্রণয় ভার্মা গণতন্ত্র সূচকে দুই ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ সমৃদ্ধ রাজস্ব ভাণ্ডার গড়ে তোলার ওপর প্রাধান্য দিচ্ছে সরকার সামাজিক সংগঠন চাঁদমুখ এর কমিটি গঠন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কোয়াটার উদ্বোধন মতলব দক্ষিনে পৌর শ্রমিক লীগের পরিচিতি সভা স্মার্ট রাজনীতিতে দেশের স্বার্থ সবচাইতে আগে প্রাধান্য পাবে ফরিদগঞ্জে বৃদ্ধকে কুপিয়ে জখম : আটক ১ মনোনয়ন প্রত্যাশী রেদওয়ান খান বোরহানের গণসংযোগ ১০ দফা দাবিতে বিএনপি কুমিল্লা বিভাগীয় সমাবেশ আজ জনগণের মাঝে দীপু আপার উন্নয়নের কথা পৌঁছাতে হবে -আলী এরশ্বাদ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মায়া চৌধুরীর জন্মদিন পালিত কচুয়ায় আমিনুল ইসলামকে নাগরিক সংবর্ধনা প্রদান শেখ হাসিনা সরকার আমলে কেউ কষ্টে নেই: এমপি রুহুল শেখ হাসিনা দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফুটানোর জন্য কাজ করছে কচুয়ায় ৫১ বছর পর অবশেষে কাঠালিয়া গ্রামবাসীর স্বপ্ন পূরন বুড়িচংয়ে ১৬৮ হেক্টর জমিতে সরিষার চাষ বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা
  • রোববার   ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২৩ ১৪২৯

  • || ১৩ রজব ১৪৪৪

২৫০ টাকা দিয়েও মিলেনি আড়াই মাসের শিশুর জন্মনিবন্ধন

কুমিল্লার ধ্বনি

প্রকাশিত: ১৬ জানুয়ারি ২০২৩  

আড়াই মাসের শিশু উম্মে হাবীবার জন্মনিবন্ধন করতে গত বুধবার (১০ জানুয়ারি) ইউনিয়ন পরিষদে যান তার মা মোরশেদা বেগম (৩০)। সেখানে গেলে ইউপি সচিব বলেন, যত বেশি বয়স তত বেশি টাকা দিতে হবে। আড়াই মাস বয়স তাই ২৫০ টাকা দিতে হবে। সচিবের কথা অনুযায়ী ২৫০ টাকা জমা দেন মোরশেদা। তার হাতে ২৫০ টাকার একটি রিসিট ধরিয়ে দিয়ে রোববার আসতে বলেন।

সচিবের কথা অনুযায়ী রোববার (১৫ জানুয়ারি) ইউনিয়ন পরিষদে যান মোরশেদা। সেখানে গেলে সচিব জানান, উম্মে হাবীবা নামে জন্মনিবন্ধন হবে না। কেননা এই নামে অন্য কেউ নিবন্ধন করেছে। বাবা এবং মায়ের নামও মিলে গেছে। তাই হাবীবার নাম পাল্টাতে বলা হয়। হাবীবার মা হতাশা নিয়ে বাড়ি ফিরে এলেও, ফেরত দেওয়া হয়নি তার কাছ থেকে জন্মনিবন্ধন ফি বাবদ রাখা ২৫০ টাকা।

ঘটনাটি কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার উত্তর খোশবাস ইউনিয়নের। ভুক্তভোগী মোরশেদা ওই ইউনিয়নের আরিফপুর গ্রামের আল আমিনের স্ত্রী। রোববার দুপুরে তিনি ঢাকা পোস্টকে এসব কথা জানান।

উত্তর খোশবাস ইউনিয়ন পরিষদের সচিব তফাজ্জল হোসেন  বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, সার্ভারে শিশুর নাম, বাবা-মায়ের নাম মিলে যাওয়ায় তার নিবন্ধন করা যায়নি। তবে আমরা তার কাছ থেকে যে ২৫০ টাকা ফি নিয়েছি সেটা ভুক্তভোগীকে ফেরত দেব, অথবা নাম পরিবর্তন করলে নিবন্ধন করে দেব।

dhakapost

এ বিষয়ে উত্তর খোশবাস ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমুল হাসান সর্দার  বলেন, ফি কিছুটা বেশি নেওয়া হয় এটা সত্য। কারণ পরিষদে যে উদ্যোক্তা আছে তার কোনো সরকারি বেতন নেই। তিনি অনেক পরিশ্রম করে কাজগুলো করেন। তার ইন্টারনেট, প্রিন্টারের কালি, বিদ্যুৎ বিল দিতে হয়। তাই কিছু টাকা বেশি নেওয়া হয়। তবে আমি সচিব এবং উদ্যোক্তাকে নির্দেশ দিয়েছি রিসিটের মাধ্যমে যেন টাকা আদায় করা হয়। না হয় দালালরা মানুষের কাছ থেকে ১০০০-১৫০০ টাকা হাতিয়ে নেয়। আর নাম, বাবা-মায়ের নাম মিলে গেলেও তার জন্মনিবন্ধন হবে, ইউএনও স্যার স্বাক্ষর করলেই হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বরুড়া উপজেলার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদী হাসান বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ চলে ইউনিয়ন পরিষদের বিধি অনুযায়ী। আমাকে আগে দেখতে হবে বিধির বাইরে কোনো অনিয়ম হয়েছে কি না। হয়ে থাকলে বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কুমিল্লা জেলা প্রশাসনের স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক অর্পণা বৈদ্য  বলেন, ৪৫ দিন থেকে ৫ বছর পর্যন্ত শিশুদের জন্মনিবন্ধনের সরকারি ফি ২৫ টাকা। এর বাইরে নেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। আমি খোঁজ নিচ্ছি। অতিরিক্ত অর্থ নিয়ে থাকলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর শিশুর নাম, অভিভাবকের নাম মিলে যাওয়ার বিষয়টি আমি দেখছি। কথা বলে এ বিষয়ে পরে জানানো হবে।