ব্রেকিং:
মিয়ানমারের উপর যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা পর্যাপ্ত নয়: জাতিসংঘ বদলি খেলোয়াড় নামানোর নতুন নিয়ম চালু আইসিসির বাংলাদেশ-ভারত-ভুটান বাণিজ্যে নবযাত্রার সূচনা জাতীয় মৎস্য পুরস্কারে স্বর্ণপদক পেল নৌবাহিনী ওষুধের পাতায় মেয়াদ-মূল্য স্পষ্ট থাকতে হবে: হাইকোর্ট জিম্বাবুয়েকে বহিষ্কার করল আইসিসি রোহিঙ্গা নির্যাতন: আইসিসি’র অনুমতি পেলে তদন্তে নামবে দল ক্রিকইনফোর একাদশেও সাকিব, নেই কোহলি রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের উদ্বেগ রিফাত হত্যায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে মিন্নি জেলা হাসপাতালগুলো দালালমুক্ত করার নির্দেশ জঙ্গি-চরমপন্থীদের আবির্ভাব যেন না হয়: ডিসিদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাছ উৎপাদনে আমরা প্রথম হতে চাই: প্রধানমন্ত্রী নয়ন বন্ডের ঘনিষ্ঠ রিশান ফরাজী গ্রেফতার ক্রাইস্টচার্চে নিহতদের স্বজনদের হজ করাবে সৌদি কঙ্গোতে ইবোলা সংক্রমণ: ‘বৈশ্বিক জরুরি অবস্থা’ ঘোষণা মাটির নিচে মিলল অনন্ত জলিলের ২০ লাখ টাকা (ভিডিও) রিফাত হত্যায় মিন্নি জড়িত থাকার ভয়ংকর তথ্য জানালেন তদন্ত কর্মকর্তা বাংলাদেশে খাদ্য-নিরাপত্তা বেড়েছে পাসের হারে সারা দেশে কুমিল্লা বোর্ড প্রথম

শনিবার   ২০ জুলাই ২০১৯   শ্রাবণ ৪ ১৪২৬   ১৭ জ্বিলকদ ১৪৪০

কুমিল্লার ধ্বনি
১১৪

৩৯ বছর বয়সে ৪৪ সন্তানের জন্ম দিলেন এই নারী

প্রকাশিত: ১৪ মে ২০১৯  

বয়স মাত্র ৩৯, তবে এর মধ্যেই ৪৪ সন্তানের জন্ম দিয়ে বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন উগান্ডার নারী ম্যারিয়ন নাবাতানজি। ফলে তাকে উগান্ডায় গর্ভধারণে সবচেয়ে সক্ষম নারীর খেতাব দিয়েছেন দেশটির চিকিৎসকরা। 

তিনি একসঙ্গে চার সন্তান, চারবার একসঙ্গে তিন সন্তান এবং ছয়বার যমজের জন্ম দিয়েছেন। এছাড়া একসঙ্গে পাঁচ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন এমন ঘটনাও ঘটেছে তিনবার।

বৃটিশ সংবাদমাধ্যম ডেইলি মিরর জানায়, মাত্র ১২ বছর বয়সে বিয়ে হয় ম্যারিয়নের। তখন তার স্বামীর বয়স ছিল ৪০ বছর। বিয়ের এক বছরের মাথায় যমজ সন্তানের জন্ম দেন তিনি। এরপর থেকে ম্যারিয়নের ২৩ বছর বয়স পর্যন্ত একে একে তার ঘরে আসে ২৫ সন্তান।  

আড়াই বছর আগে ম্যারিয়ন শেষ সন্তান প্রসব করেন। এ সময়ও তিনি জন্ম দেন যমজ। তবে প্রস্রবের জটিলতার কারণে তার এক সন্তানের মৃত্যু হয়। 

ম্যারিয়ন জানান, আমি ছয় সন্তানের মা হতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আমি চারবার মা হই এবং প্রত্যেকবারই যমজ সন্তানের জন্ম দিই। তবে আট সন্তান আমার চাওয়ার চেয়েও বেশি ছিল। তাই আমি হাসপাতালে গিয়ে ডাক্তারকে বলি, তিনি যেন আমার সন্তান জন্ম দেওয়া বন্ধ করে দেন। আমি জন্মনিরোধক ব্যবহারেরও চেষ্টা করেছি, কিন্তু সেগুলো কাজ করেনি। উল্টো ডাক্তারি পরীক্ষায় আমার হাইপাররোভ্যুলেশন নামে বিরল এক শারীরিক অবস্থা ধরে পড়ে। এটি এমন একটি অবস্থা যেখানে আক্রান্ত নারী যখনই মা হবেন তখন তিনি যমজ, তিন বা চারটি সন্তানের জন্ম দেবেন। 

তিনি আরো জানান, শেষ সন্তানের জন্মের পরই তার স্বামী তাকে ছেড়ে চলে যান। তখন থেকেই তার অনেক কষ্টে দিন কাটছে। সন্তানদের মুখে খাবার তুলে দিতে করতে হয়েছে বিভিন্ন ধরনের কাজ। তার বড় ছেলের নাম ইভান কিবুকা (২৩)। ছোট ছোট ভাই-বোনের মুখে খাবার জোটাতে তারও ছাড়তে হয়েছে পড়ালেখা, আর যোগ দিয়েছেন পরিবারের জন্য অর্থ উপার্জনে।    

দেখুন ভিডিও>>> 

কুমিল্লার ধ্বনি
কুমিল্লার ধ্বনি
এই বিভাগের আরো খবর